শেয়ার বিক্রির পরিকল্পনা ইন্ডিগোর, ডিসেম্বরেই পুরো দমে চালু হতে পারে অন্তর্দেশীয় পরিষেবা

TV9 Bangla Digital

TV9 Bangla Digital | Edited By: Soumya Saha

Updated on: Sep 12, 2021 | 12:33 PM

Indigo : চলতি বছরের মার্চ থেকে জুন মাসের মধ্যে ইন্ডিগোর ৩ হাজার ১৮০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

শেয়ার বিক্রির পরিকল্পনা ইন্ডিগোর, ডিসেম্বরেই পুরো দমে চালু হতে পারে অন্তর্দেশীয় পরিষেবা
নিষেধাজ্ঞা আন্তর্জাতিক বিমান পরিবহণে। ফাইল চিত্র

নয়াদিল্লি : করোনার ধাক্কা অনেকটাই সামলে উঠেছে ভারত। সংক্রমণ কমছে। বিধি-নিষেধও অনেকটা শিথিল হয়েছে। বিমানে যাত্রীর সংখ্যাও ধীরে ধীরে বাড়তে শুরু করেছে। আর দেরি করতে চাইছে না ইন্ডিগো। অন্তর্দেশীয় উড়ান পরিষেবা ডিসেম্বরের মধ্যেই পুরো দমে চালু করে দিতে চাইছে তারা।

এশিয়ায় কম দামের টিকিটে যে বিমান পরিষেবাগুলি পাওয়া যায়, তার মধ্যে সবথেকে বড় নেটওয়ার্ক ইন্ডিগোর। শুধু অন্তর্দেশীয় উড়ানই নয়, আন্তর্জাতিক পরিষেবাও যতটা সম্ভব বাড়ানোর চেষ্টা করছে সংস্থা। চলতি বছরের শেষের দিকে দুই তৃতীয়াংশেরও বেশি আন্তর্জাতিক উড়ান পরিষেবা চালু করে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে ইন্ডিগো।

ইন্ডিগোর চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার রণজয় দত্ত জানিয়েছেন, পরিস্থিতির ধীরে ধীরে উন্নতি হচ্ছে। যাত্রী সংখ্যাও বাড়ছে। এমন একটা সময়ে পরিষেবা না বাড়ানোর কোনও মানে হয় না।

করোনা পরিস্থিতি ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হতেই বিভিন্ন দেশে নিয়ম-বিধি শিথিল হয়েছে। ভারতেও ছবিটা অনেকটা একইরকম। এখন ইন্ডিগোর যতগুলি বিমান চলছে, তার ৭০ শতাংশ টিকিট বিক্রি হচ্ছে। আগামী দিনে এই হার আরও অনেকটা বাড়তে পারে বলে আশা করছে ইন্ডিগো।

করোনার প্রাদুর্ভাবের পর থেকে মুখ থুবড়ে পড়েছিল উড়ান সংস্থাগুলি। যাত্রী পরিষেবা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। সেখান থেকে এখন অনেকটাই স্বাভাবিক ছন্দে ফিরে এসেছে। ইন্ডিগো এখন বেশ ভাল মুনাফাও দেখতে শুরু করেছে বলে জানান সংস্থার চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার ।

দ্বিতীয় ঢেউ থেকে আপাতত কিছুটা নিস্তার পেলেও আবার করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন অনেকে। বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, অক্টোবরে সংক্রমণ ফের লাগামছাড়া হতে পারে। তাই কোনও ঝুঁকি নিতে চাইছে না সংস্থা। আর সেই কারণে নিজেদের পুঁজি বাড়িয়ে রাখতে চাইছে ইন্ডিগো। সংস্থায় বিনিয়োগের জন্য আহ্বান করা হচ্ছে। রণজয় দত্তের মতে, এমনটা হলে উড়ান সংস্থাগুলি লাভের হার আবার কিছুটা ধাক্কা খেতে পারে।

করোনা পরিস্থিতির কারণে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আন্তর্জাতিক উড়ান পরিষেবা বন্ধ রেখেছে ভারত। অন্তর্দেশীয় পরিষেবার ক্ষেত্রেও আগের তুলনায় ৭২.৫ শতাংশ যাত্রী নিয়ে বিমান ওঠা-নামার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে ইন্ডিগোর বর্তমানে প্রায় ৭০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে যাতায়াত করছে, যা বর্তমান পরিস্থিতির নিরীখে অনেকটাই ভাল বলে মনে করছে সংস্থা।

তবে মাসখানেক আগেও পরিস্থিতি এতটা ভাল ছিল না। গতবছর যখন করোনা প্রাদুর্ভাব শুরু হয়েছিল, তখন এই একই সময়ের মধ্যে ক্ষতির অঙ্ক ছিল ২ হাজার ৮৫০ কোটি টাকা। চলতি বছরের মার্চ থেকে জুন মাসের মধ্যে ইন্ডিগোর ৩ হাজার ১৮০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। যাত্রী পরিষেবা একেবারে তলানিতে এসে ঠেকেছিল। প্রায় বন্ধই হয়ে গিয়েছিল যাত্রী পরিষেবা। উড়ান সংস্থার অনেক কর্মীকে বিনা বেতনে ছুটিতে পাঠিয়ে দিতে বাধ্য হয়েছিল ইন্ডিগো। এই আর্থিক ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে শেয়ার বিক্রির দিকে জোর দিচ্ছে ইন্ডিগো। মে মাসে সংস্থার তরফে জানানো হয়েছিল, বড় বড় বিনিয়োগকারীদের কাছে শেয়ার বিক্রি করে প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকা তুলে নিতে চাইছে ইন্ডিগো।

আরও পড়ুন : ভারতীয় বাজারে কী পরিকল্পনা টেসলার ? জানতে চাইল কেন্দ্র

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla