Share Market Crash: ফের করোনার থাবা শেয়ার বাজারে, নতুন ভ্যারিয়েন্টের আতঙ্কে হুড়মুড়িয়ে পতন শেয়ার সূচকে

Sensex -Nifty Fall: শেয়ার বাজার বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনা ভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্টের খোঁজ মেলার পরই আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। নতুন ভ্যারিয়েন্ট রুখতে করোনা টিকাও কার্যকরী হবে না, এই আশঙ্কায় নতুন করে বিনিয়োগ করতে রাজি নন বিনিয়োগকারীরা।

Share Market Crash: ফের করোনার থাবা শেয়ার বাজারে, নতুন ভ্যারিয়েন্টের আতঙ্কে হুড়মুড়িয়ে পতন শেয়ার সূচকে
শেয়ার বাজারে বড় ধস (ফাইল ছবি)

মুম্বই: করোনা ভাইরাসের(COVID-19) প্রভাবে একসময়ে ডুবতে বসেছিল শেয়ার বাজার (Share Market)। সংক্রমণ কমতেই ফের ঘুরে দাঁড়িয়েছিল সেই বাজার, তরতরিয়ে উঠছিল শেয়ারের অঙ্কও। কিন্তু করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্টের (New Variant of COVID-19) খোঁজ মিলতেই এদিন সকালে ফের পতন হল শেয়ার সূচকের। শুক্রবার সকালে বাজার খুলতেই সেনসেক্সের (Sensex) সূচকে প্রায় ১২০০ পয়েন্ট পতন হয়। অন্যদিকে, নিফটি(Nifty)-র সূচকও ১৭ হাজার পয়েন্টে নেমে এসেছে। সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ সেনসেক্স সূচক ছিল ৫৭ হাজার ৫৫৪ অঙ্ক এবং নিফটি সূচক ছিল ১৭ হাজার ১৬৬ অঙ্ক।

শেয়ার বাজার বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনা ভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্টের খোঁজ মেলার পরই আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। নতুন ভ্যারিয়েন্ট রুখতে করোনা টিকাও কার্যকরী হবে না, এই আশঙ্কায় নতুন করে বিনিয়োগ করতে রাজি নন বিনিয়োগকারীরা। এদিনের শেয়ার বাজারে পতনে রিলায়েন্স ইন্ড্রাস্ট্রিজ, এইচডিএফসি ব্যাঙ্ক, কোটাক মাহিন্দ্রা ব্য়াঙ্ক, ইনফোসিস ও স্টেট ব্য়ঙ্ক অব ইন্ডিয়ার শেয়ারের সূচকে পতন হয়েছে।

নতুন ভ্য়ারিয়েন্টের প্রভাবে এশিয়ান স্টক মার্কেটেও ব্যপক পতন হয়েছে। বিনিয়োগকারীরা নতুন বিনিয়োগের বদলে ডলার, ইয়েন বাঁচাতেই উদ্যোগী হয়েছেন। জাপান বাদে এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের শেয়ার বাজারে সূচক ১.৩ শতাংশ পতন হয়েছে। হংকংয়ে ক্যাসিনো, পানীয়ের শেয়ার দরে যেমন পতন হয়েছে, সিডনিতেও ভ্রমণের স্টকে পতন হয়েছে। জাপানের নিক্কেই ২.৫ শতাংশ পতন হয়েছে এবং আমেরিকার ক্রুড ওয়েলের বাজারে প্রায় ২ শতাংশ পতন হয়েছে।

এদিন সকাল ১১টায় সেনসেক্সের সূচকে ১৪০৮ পয়েন্ট পতন হয়, ফলে সেনসেক্স সূচকের অঙ্ক ৫৭ হাজার ৩১৫-এ কমে দাঁড়ায়।নিফটিতেও ৪২৬ পয়েন্ট পতন হওয়ায়, তা ১৭ হাজার ১১০ অঙ্কে পৌঁছয়। এদিনের শেয়ার সূচকের পতনে অটোমোবাইল, ধাতু, তেল, গ্যাস, বিদ্যুৎ, তথ্য প্রযুক্তি, টেলিকম, ব্যাঙ্কিং, ফিন্যান্স সহ একাধিক ক্ষেত্রে ব্যাপক প্রভাব পড়েছে।  প্রত্যেকটি শিল্পক্ষেত্রেই শেয়ারের সূচক ২ থেকে ৩.৫ শতাংশ পতন হয়েছে।

মারুতি সুজুকি, কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাঙ্ক, টাটা মোটরস, হিন্দালকো, জেএসডব্লু স্টিল, টাটা স্টিল, বাজাজ ফিন্যান্স, এইচডিএফসি, গ্রাসিম ইন্ডাস্ট্রিজ, টাইটান, মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মাহিন্দ্রা ও রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজোর শেয়ারে ২ থেকে ৪ শতাংশ পতন হয়েছে। অন্যদিকে, লাভের মুখ দেখেছে সিপলা, ডঃ রেড্ডিজ ল্যাব, সান ফার্মা, পাওয়ার গ্রিড ও কোল ইন্ডিয়া।

বাজার বিশেষজ্ঞদের মতে, গত বছরও করোনা সংক্রমণের কারণে বাজারে যে অনিশ্চয়তার সৃষ্টি হয়েছিল, ফের একবার নতুন ভ্যারিয়েন্টের খোঁজ মিলতেই তার প্রভাবই দেখা যাচ্ছে। সংক্রমণের সূচনায় সাধারণ মানুষের জীবনই অনিশ্চিত হয়ে পড়ায়, গোটা শেয়ার বাজার যেভাবে উল্টে গিয়েছিল, সেই অভিজ্ঞতাকে মাথায় রেখেই বর্তমানে বিনিয়োগকারীরা আর ঝুঁকি নিতে চাইছেন না। বাজারের হাল ফিরতে আরও কিছু দিন সময় লেগে যেতে পারে বলেই তাদের মত।

আরও পড়ুন: LPG Subsidy: এলপিজি সিলিন্ডারে সাবসিডি চাই, তাহলে আজই ফটাফট করে ফেলুন এই কাজ 

আরও পড়ুন: Gold-Silver Price Today: সস্তা হল সোনা, দাম পড়ল রুপোরও, জেনে নিন বিয়ের মরশুমে কত কমল দাম 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla