‘বাবা হিসেবে অনন্যার ট্রোলিংয়ের কমেন্ট পড়তে আমার খারাপ লাগে’, বললেন চ্যাঙ্কি

Ananya Panday: সোশ্যাল ওয়ালে অনন্যা ট্রোলিংয়ের শিকার হয়েছেন। সেই পরিস্থিতি সামলেও উঠেছেন। আর মেয়েকে এই কাজে সম্পূর্ণ সাহায্য করেছেন চ্যাঙ্কি।

‘বাবা হিসেবে অনন্যার ট্রোলিংয়ের কমেন্ট পড়তে আমার খারাপ লাগে’, বললেন চ্যাঙ্কি
চ্যাঙ্কি এবং অনন্যা।

ট্রোলিং সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনও নতুন ঘটনা নয়। কিন্তু যাঁকে ট্রোল করা হয়, তাঁর মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য তা একেবারেই ভাল উদাহরণ নয়। সেলেবরা সোশ্যাল মিডিয়ার সফট টার্গেট। সহজেই ট্রোলিংয়ের শিকার হন। সে কারণেই এর বিরুদ্ধে বহু সেলেব প্রকাশ্যে মুখ খুলেছেন। ঠিক তেমনই এ বার মেয়ে অনন্যা পাণ্ডের হয়ে মুখ খুললেন অভিনেতা চ্যাঙ্কি পাণ্ডে।

সোশ্যাল ওয়ালে অনন্যা ট্রোলিংয়ের শিকার হয়েছেন। সেই পরিস্থিতি সামলেও উঠেছেন। আর মেয়েকে এই কাজে সম্পূর্ণ সাহায্য করেছেন চ্যাঙ্কি। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এ নিয়ে নিজের মতামত স্পষ্ট জানিয়েছেন তিনি।

চ্যাঙ্কি বলেন, “প্রথম প্রথম ট্রোলিংয়ে খুব হতাশ হয়ে পড়ত অনন্যা। তারপর ওকে বোঝালাম, এটা একটা অ্যাপ। এতো আবেগপ্রবণ হলে চলবে না। কিন্তু বাবা হিসেবে আমি কমেন্ট পড়ে বিরক্ত হতাম, খারাপ লাগত। কিন্তু এটা তো ব্যক্তিগত ভাবে দেখলে চলবে না। সবটাই ব্যবসা। ট্রোলিং কখনও বন্ধ করা যাবে না।”

২০১৯-এ করণ জোহরের ‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার ২’-এর মাধ্যমে বলি ডেবিউ করেন অনন্যা। এরপর ‘পতি পত্নী অউর উও’, ‘খালি পেলি’-র মতো ছবিতে অভিনয় করেছেন। শুধু ট্রোলিং সামলানো নয়, কী ভাবে ইন্ডাস্ট্রিতে চলতে হবে, সে বিষয়েও নাকি মেয়েকে পরামর্শ দেন চ্যাঙ্কি। তাঁর কথায়, “ওকে বলেছি, কখনও কাউকে ওভার এস্টিমেট বা আন্ডার এস্টিমেট করলে চলবে না। কোনও একটা ছবিতে কেউ হিট দিয়েছে বলেই অনন্যার সঙ্গেও যে তার ছবি হিট হবে, তার কোনও ঠিক নেই। খুব বেশি হিসেব করলেও মুশকিল। তাই ভেবে পা ফেলতে হবে। সবথেকে বড় কথা কাজটা করে আনন্দ পেতে হবে।”

আরও পড়ুন, ‘আমি নতুন একটা পরিবার পেয়েছি’, কেন বললেন সৌমিতৃষা?

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla