Har Ghar Dastak: এখনও পড়ে টিকার ২১ কোটি ডোজ়, হর ঘর দস্তকে জোর দিতে রাজ্যগুলিকে চিঠি স্বাস্থ্যমন্ত্রকের

Covid Vaccine: শুধুমাত্র টিকার প্রথম ডোজ় নেওয়ার ক্ষেত্রে অনীহা, এমনই নয়। দেখা যাচ্ছে, অনেকেই টিকার প্রথম ডোজ় নিলেও দ্বিতীয় ডোজ় নিতে গড়িমসি করছেন বা নির্দিষ্ট সময়সীমা পার করে গেলেও টিকা নিচ্ছেন না।

Har Ghar Dastak: এখনও পড়ে টিকার ২১ কোটি ডোজ়, হর ঘর দস্তকে জোর দিতে রাজ্যগুলিকে চিঠি স্বাস্থ্যমন্ত্রকের
নদিয়ায় টিকাকরণ চলছে। ছবি পিটিআই।

নয়া দিল্লি: দেশে টিকাকরণের গতি কমায় উদ্বিগ্ন কেন্দ্রীয় সরকার। ‘হর ঘর দস্তক’ কর্মসূচিতে জোর দিতে হবে, এই মর্মে ইতিমধ্যেই স্বাস্থ্যমন্ত্রক রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে চিঠি দিয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের সচিব রাজেশ ভূষণ সোমবারই এই চিঠি লিখেছেন সমস্ত রাজ্যের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব ও প্রধান সচিবকে।

টিকাকরণে দেশ ১০০ কোটির লক্ষ্যমাত্রা পার করতেই কোথাও যেন এই গতি খানিকটা শ্লথ হতে শুরু করেছে। নিঃসন্দেহে তা দুশ্চিন্তার বিষয়। স্বাস্থ্যমন্ত্রক সূত্রে খবর, সেপ্টেম্বর থেকে অক্টোবর এবং অক্টোবর থেকে নভেম্বরে কমেছে টিকাকরণের হার। সে কারণেই নভেম্বর থেকে হর ঘর দস্তক অর্থাৎ ঘরে ঘরে টিকা পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক করেছে।

সবথেকে উদ্বেগের বিষয় হল এখনও ২১ কোটি ভ্যাকসিনের ডোজ় মজুত রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে কেন্দ্রের পরামর্শ, বিভিন্ন ভাবে যাঁরা এলাকার মানুষকে অনুপ্রাণিত করেন, তাঁরা যেন এগিয়ে আসেন। তাঁদের সামনে রেখে টিকাকরণ নিয়ে প্রচার চালানো হোক, চায় সংশ্লিষ্ট মন্ত্রক।

শুধুমাত্র টিকার প্রথম ডোজ় নেওয়ার ক্ষেত্রে অনীহা, এমনই নয়। দেখা যাচ্ছে, অনেকেই টিকার প্রথম ডোজ় নিলেও দ্বিতীয় ডোজ় নিতে গড়িমসি করছেন বা নির্দিষ্ট সময়সীমা পার করে গেলেও টিকা নিচ্ছেন না। সম্প্রতি কলকাতার পুরপ্রশাসক ফিরহাদ হাকিমও একই কথা বলেছেন। অনেকেই ইচ্ছাকৃত টিকার দ্বিতীয় ডোজ় নিতে আসছেন না। এই পরিস্থিতি কাটিয়ে ওঠার জন্য আরও বেশি জোর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে কেন্দ্রের চিঠিতে।

কেন্দ্রের তরফে বলা হয়েছে, এখনও অবধি গোটা দেশে ১১৪ কোটি টিকার ডোজ় নিয়েছেন মানুষ। যাঁরা টিকা নেওয়ার যোগ্য, সেই সমস্ত সকল মানুষ যাতে দ্রুত টিকা নিতে পারেন তার জন্য চলতি বছরের ৩ নভেম্বর হর ঘর দস্তক কর্মসূচির ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত এই কর্মসূচি চলবে। জেলায় জেলায় যেন এই কর্মসূচি ছড়িয়ে দেওয়া হয় চাইছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

সোমবার এই অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য বলেন, “আসুন, আমরা সমবেতভাবে এটা নিশ্চিত করি যে, দেশে কোভিড-১৯ টিকার সুরক্ষা কবচ থেকে যেন একজন যোগ্য ব্যক্তিও বাদ না পড়েন। সেই সঙ্গে, সততা, যাবতীয় অপপ্রচার ও কুসংস্কারের মতো সমস্যাগুলি নিরসন করতে পারি।” তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী সম্পূর্ণ টিকাকরণের লক্ষ্যে ‘হর ঘর দস্তক’ নামে যে অভিযানের কথা ঘোষণা করেছেন, তার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে গ্রামগুলিতে সচেতনতা প্রচারের উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

তিনি রাজ্যগুলিকে ‘ভ্যাকসিনেশন টোলি’ বা ভ্রাম্যমাণ টিকাকরণ ইউনিট কর্মসূচি গ্রহণ করে প্রত্যেক যোগ্য ব্যক্তিকে প্রথম বা দ্বিতীয় ডোজ় দেওয়া সুনিশ্চিত করতে বলেন। তিনি আরও বলেন, সম্প্রতি অরুণাচল প্রদেশ সফরে গিয়ে তিনি ‘সম্পূর্ণ টিকা গ্রহীতা পরিবার’ স্টিকার দেখেছেন। এরকম প্রয়াস তিনি অন্য রাজ্যগুলিকেও গ্রহণের পরামর্শ দেন। সম্পূর্ণ কোভিড-১৯ টিকাকরণের জন্য শিশু ও পড়ুয়াদের দূত হিসাবে কাজে লাগানো যেতে পারে বলেও তাঁর মত।

আরও পড়ুন: এসএসসি গ্রুপ ডি নিয়োগে সিবিআই অনুসন্ধানের নির্দেশ হাইকোর্টের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla