PM Narendra Modi: বদলাচ্ছে সরকারের খোলনচে, কাজে গতি ও সমন্বয় আনতে ‘গতিশক্তি’র সূচনা করবেন নমো

PM Narendra Modi to Launch GatiShakti Platform: আগে যেখানে এক দফতরের কাজের সঙ্গে অপর দফতরের কাজের কোনও সমন্বয় থাকত না, ফলে বিভিন্ন সময়ে ভুল বোঝাবুঝি বা অন্য় কারণে কাজে দেরী হত, সেই কাঠামোই সম্পূর্ণরূপে বদলে ফেলা হবে।

PM Narendra Modi: বদলাচ্ছে সরকারের খোলনচে, কাজে গতি ও সমন্বয় আনতে 'গতিশক্তি'র সূচনা করবেন নমো
ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ে সতর্কবার্তা প্রধানমন্ত্রী মোদীর। ফাইল ছবি

নয়া দিল্লি: এ বার সরকারি দফতরের খোলনচেই বদলে ফেলবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী(Narendra Modi)। আগামিকাল, বুধবার প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন গতিশক্তি মাস্টার প্ল্যানের (GatiShakti Master Plan)। গতি শক্তি, যার আক্ষরিক অর্থই হল গতির শক্তি, তা মোদী সরকারকে এমন একটি  ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে দেবে, যা পরিকল্পনা এবং কর্ম সম্পাদনকে আরও আধুনিক ও সহজ করে তুলবে। সরকারী সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রাথমিকভাবে কেন্দ্রের পরিকল্পিত কয়েকটি প্রকল্পগুলির উপরই কাজ করা হবে এবং পরে তা জেলা ও পৌর স্তরেও পৌঁছে দেওয়া হবে।

সরকারি সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই গতিশক্তি প্ল্য়াটফর্মটি সম্পূর্ণ রূপে তৈরি হয়ে গিয়েছে এবং আজ বিকেলের মধ্যেই কেন্দ্রের তরফে এই প্রকল্পে সিলমোহর দেওয়া হবে। উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পরই প্রধানমন্ত্রী “সুপার মিনিস্টারে”র চিন্তাভাবনাকে সামনে এনেছিলেন, যেখানে একই ধরনের কাজের একাধিক মন্ত্রকের দায়িত্ব দেওয়া হত একজন ক্যবিনেট সদস্যকে।  কিন্তু আমলাতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে ভাঙতেই এবার গতিশক্তি প্রকল্পের প্রস্তাব এনেছেন প্রধানমন্ত্রী, যার অধীনে দেশের সমস্ত বড় পরিকাঠামো ও সংযোগ গঠনের প্রকল্পগুলির কাজ আগামী ২০২৪-২৫ সালের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে।

সহজ কথায় বলতে গেলে, প্রধানমন্ত্রীর গতিশক্তি মাস্টার প্ল্যান জাতীয় পরিকল্পনা সরকারি কাজকর্মের পরিকাঠামোকেই বদলে ফেলবে। আগে যেখানে এক দফতরের কাজের সঙ্গে অপর দফতরের কাজের কোনও সমন্বয় থাকত না, ফলে বিভিন্ন সময়ে ভুল বোঝাবুঝি বা অন্য় কারণে কাজে দেরী হত, সেই কাঠামোই সম্পূর্ণরূপে বদলে ফেলা হবে।

গতিশক্তি প্রকল্পের সূচনা হলে বিভিন্ন অর্থনৈতিক অঞ্চল ও পরিকাঠামোর প্রয়োজনীয়তার উপর ভিত্তি করে মাল্টি মডেল সংযোগ স্থাপনের এক বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হবে। এর অধীনে জাতীয় সড়ক তৈরি থেকে শুরু করে রেলে ফ্রেট করিডর গঠন, গ্যাস পাইপলাইন, বিমানবন্দর, ওষুধ ও ইলেকট্রনিক দ্রব্য প্রস্তুতি, সামরিক ও শিল্প করিডর সহ একাধিক ক্ষেত্রের কাজ করা হবে।

সম্পূর্ণ গতিশক্তি প্রকল্পটিকে পরিচালন করতে একটি ইন্টিগ্রেটেড মাল্টিমডেল প্ল্য়ানিং গ্রুপ তৈরি করা হবে, যা সমস্ত প্রকল্পকে একত্রিত করে একটি সম্যক পরিকল্পনা তৈরি করবে। একইসঙ্গে যে প্রকল্পগুলি বর্তমানের মাস্টার প্ল্য়ানের অংশ নয়, তাদেরও সংযুক্ত করা হবে।

জাতীয় নেটওয়ার্কিং গ্রুপে বিভিন্ন সরকারি দফতরের আধিকারিক ও বিশেষজ্ঞরা সদস্য হিসাবে থাকবেন। শিল্প ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য বিভাগ এই গ্রুপের প্রধান হিসাবে কাজ করবে। ২০২০-২১ থেকে ২০২৪-২৫ অর্থবর্ষের যাবতীয় প্রকল্পের পরিকল্পনা এই গ্রুপই করবে। কীভাবে কম খরচে, বিভিন্ন দফতরের মধ্যে সমন্বয় তৈরি করে কাজ করা যায়, সেই লক্ষ্যেও কাজ করবে এই গতিশক্তি প্রকল্প।

বিভিন্ন মন্ত্রক থেকে দেওয়া নতুন প্রকল্পগুলির পর্যালোচনা করার পাশাপাশি, সেই প্রকল্পের যাবতীয় তথ্য, প্রয়োজনীয় পরিবর্তনও নথিভুক্ত করবে এই গোষ্ঠী। প্রতি মাসে একবার এই গোষ্ঠী বৈঠক করবে, যাতে সমস্ত মন্ত্রকের সঙ্গে কাজের ক্ষেত্রে সমন্বয় থাকে এবং নির্দিষ্ট সময়ের মধ্য়েই কাজ শেষ করা যায়।

গতিশক্তির এই গোষ্ঠীর অধীনে রেল, সড়ক ও পরিবহন মন্ত্রক,  বন্দর মন্ত্রক, অসামরিক উড়ান, পেট্রোলিয়াম মন্ত্রক, বিদ্যুৎ মন্ত্রক, টেলিকমিউনিকেশন মন্ত্রক, কয়লা ও খনি মন্ত্রক সহ একাধিক  সরকারি মন্ত্রক থাকবে বলেই জানা গিয়েছে সরকারি সূত্রে।

আরও পড়ুন: NIA Raid: দেশজুড়েই জাল ছড়াচ্ছে পাক জঙ্গি সংগঠন, মদতদাতাদের খোঁজে ১৮ জায়গায় তল্লাশি চালাল NIA 

Published On - 1:13 pm, Tue, 12 October 21

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla