Sonia Gandhi: মহিলা সংরক্ষণ বিল নিয়ে বিতর্কে নেতৃত্ব দেবেন সনিয়া, তৃণমূলের তরফে বলবেন মহুয়া

Women Reservation Bill: মহিলা সংরক্ষণ বিলের কৃতিত্ব কার, তা নিয়ে আজও সংসদ উত্তাল হতে পারে। গতকালই লোকসভায় যখন এই বিল পেশ করা হয়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই দিনটিকে চিরস্মরণীয় বলে উল্লেখ করেন। এদিকে, কংগ্রেসের তরফে এই বিলকে বিজেপি সরকারের জুমলা বলেই দাবি করা হয়েছে।

Sonia Gandhi: মহিলা সংরক্ষণ বিল নিয়ে বিতর্কে নেতৃত্ব দেবেন সনিয়া, তৃণমূলের তরফে বলবেন মহুয়া
সংসদে সনিয়া গান্ধী।Image Credit source: PTI
Follow Us:
| Edited By: | Updated on: Sep 20, 2023 | 8:37 AM

নয়া দিল্লি: বিরোধীদের আগেই অনুমান ছিল যে সংসদের বিশেষ অধিবেশনে বড় কোনও চমক লুকিয়ে রেখেছে কেন্দ্রীয় সরকার। নতুন সংসদ ভবনে গিয়েই সেই চমক কী জানা গেল। মঙ্গলবার সংসদের বিশেষ অধিবেশনে লোকসভায় পেশ করা হল মহিলা সংরক্ষণ বিল (Women Reservation Bill)। এই বিলে বলা হয়েছে, দেশের সংসদীয় ব্যবস্থায় মহিলাদের প্রতিনিধিত্ব বাড়াতে সংসদ ও প্রতিটি রাজ্যের বিধানসভায় মহিলাদের ৩৩ শতাংশ আসন সংরক্ষিত থাকবে। আজ, বুধবার অধিবেশনের তৃতীয় দিনে এই বিল নিয়ে বিতর্ক-আলোচনা হওয়ার কথা। কংগ্রেস (Congress) সূত্রে জানা গিয়েছে, দলের তরফে বিতর্কে যোগ দেবেন জলনেত্রী সনিয়া গান্ধী (Sonia Gandhi)।  তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে মহুয়া মৈত্র ও অপর এক সাংসদ বক্তব্য রাখতে পারেন।

আজ সকাল ১১টা থেকে অধিবেশন শুরু হবে। শুরুতেই লোকসভায় মহিলা সংরক্ষণ বিল নিয়ে আলোচনা হতে পারে। বিরোধী শিবির এই বিলের বিশেষ বিরোধিতা করবে না বলেই সূত্রের খবর। তবে ওবিসি শ্রেণির জন্যও সংরক্ষণের দাবি জানাতে পারে আরজেডি, সমাজবাদী পার্টির মতো কয়েকটি দল। কংগ্রেসও এই আলোচনায় সামিল হবে। দলের তরফে জানানো হয়েছে, নারী শক্তি বন্ধন অধিনিয়ম বা মহিলা সংরক্ষণ বিল নিয়ে বিতর্কে নেতৃত্ব দেবেন দলের চেয়ারপার্সন সনিয়া গান্ধী।

অন্য়দিকে, মহিলা সংরক্ষণ বিলের কৃতিত্ব কার, তা নিয়ে আজও সংসদ উত্তাল হতে পারে। গতকালই লোকসভায় যখন এই বিল পেশ করা হয়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই দিনটিকে চিরস্মরণীয় বলে উল্লেখ করেন। এদিকে, কংগ্রেসের তরফে এই বিলকে বিজেপি সরকারের জুমলা বলেই দাবি করা হয়েছে। পাল্টা জবাবে বিজেপির তরফে বলা হয়, কংগ্রেস কখনও মহিলাদের লোকসভা ও বিধানসভাগুলিতে সংরক্ষণ দেওয়ার বিষয়টি গুরুত্বই দেয়নি।

আবার রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়্গের মন্তব্য ঘিরেও ব্যাপক বিতর্ক তৈরি হয়েছে। তিনি বলেন, “অধিকাংশ রাজনৈতিক দলই সমাজের পিছিয়ে পড়া শ্রেণি বা দুর্বল মহিলাদের টিকিট দেন”। তাঁর এই মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন।