Parliament Winter Session: প্রত্যেককে চাইতে হবে নিঃশর্ত ক্ষমা, সাসপেন্ড সাংসদদের ‘সাজা’ প্রত্যাহারের ইঙ্গিত?

Suspension of MPs likely to be revoked: রাজ্যসভার সাসপেন্ড হওয়া ১২ জন সাংসদের থেকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইছেন বেঙ্কাইয়া নাইডু। আর প্রত্যেককে আলাদাভাবে ক্ষমা চাইতে হবে। যদি বিরোধী সাংসদদের সেই ক্ষমা চাওয়ায় সন্তুষ্ট হন চেয়ারম্যান, তাহলে তাঁদের 'সাজা' প্রত্যাহার করে নেওয়া হতে পারে বলে সংসদের ওই সূত্র মারফত জানা গিয়েছে।

Parliament Winter Session: প্রত্যেককে চাইতে হবে নিঃশর্ত ক্ষমা, সাসপেন্ড সাংসদদের 'সাজা' প্রত্যাহারের ইঙ্গিত?
সংসদে করোনার হানা। ফাইল চিত্র।

নয়া দিল্লি : রাজ্যসভার ১২ সাংসদকে শীতকালীন অধিবেশন থেকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে পারেন রাজ্যসভার চেয়ারম্য়ান এম বেঙ্কাইয়া নাইডু। সংসদের বাদল অধিবেশনের শেষ দিনে পেগাসাস ইস্যুতে রাজ্যসভার ওয়েলে নেমে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন বিরোধী সাংসদরা। সে একেবারে হুলুস্থুলু কাণ্ড তৈরি হয়েছিল। আর তার জেরে এবার শীতকালীন অধিবেশন থেকে সাসপেন্ড করা হয়েছে বিরোধী দলগুলির ১২ জন সাংসদকে। তবে সেই ‘সাজা’ প্রত্যাহার করার একটি সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

সংসদ ভবন সূত্রে খবর, সাসপেন্ড হওয়া ১২ জন সাংসদ মিলিতভাবে ক্ষমা চেয়ে একটি চিঠি দিয়েছেন রাজ্যসভার চেয়ারম্যান এম বেঙ্কাইয়া নাইডুকে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত যা খবর, তাতে সেই মিলিত চিঠিতে সন্তুষ্ট হননি রাজ্যসভার চেয়ারম্যান। রাজ্যসভার সাসপেন্ড হওয়া ১২ জন সাংসদের থেকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইছেন বেঙ্কাইয়া নাইডু। আর প্রত্যেককে আলাদাভাবে ক্ষমা চাইতে হবে। যদি বিরোধী সাংসদদের সেই ক্ষমা চাওয়ায় সন্তুষ্ট হন চেয়ারম্যান, তাহলে তাঁদের ‘সাজা’ প্রত্যাহার করে নেওয়া হতে পারে বলে সংসদের ওই সূত্র মারফত জানা গিয়েছে।

সাংসদরা আলাদা আলাদা ভাবে ক্ষমা চাওয়ার জন্য রাজ্যসভার চেয়ারম্যানের কাছে সময় চেয়েছেন বলে সূত্রের খবর। এদিকে সাংসদদের সাসপেন্ড করা প্রসঙ্গে সুখেন্দু শেখর বলেন, “যাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হচ্ছে, তাঁদের নিজেদের মতামত প্রকাশের সুযোগটুকু দেওয়া হয়নি। এই প্রক্রিয়া অগণতান্ত্রিক, অসাংবিধানিক।” তাঁর বক্তব্য়, “যদি সংসদ ভবনেই আমাদের আওয়াজ শোনা না যায়, তাহলে আর কোথায় শোনা যাবে? কফি হাউজ়ে?”

সুখেন্দু শেখর রায় বলেন, “যেহেতু দোলা সেন শ্রমিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত, তাই তাঁকে নিশানা করা হচ্ছে। যদি আমাদের কোথাও কোনও ভুল হয়ে থাকে, যদি কোনও অন্যায় হয়ে থাকে, তাহলে ভিডিয়ো প্রকাশ করুক কেন্দ্র।” তিনি আরও বলেন, “আজ কৃষি আইন প্রত্যাহার বিল পাস হওয়ার সময় কোনওরকম আলোচনাই হয়নি। কেবলমাত্র ক্ষমতা বলে ধ্বনিভোট করে বিল পাস করিয়ে নেওয়া হল। আমরা এর তীব্র নিন্দা করছি।”

উল্লেখ্য, আজ সংসদ থেকে সাসপেন্ড করার পর দোলা সেন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জানিয়েছিলেন, বেছে বেছে সাংসদদের নিশানা করা হচ্ছে। আমরা সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলতে পারি, আওয়াজ তুলতে পারি, তাই আমাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।” দুই তৃণমূল সাংসদ ছাড়াও শিবসেনার প্রিয়ঙ্কা চতুর্বেদী, অনিল দেশাই, সিপিআইয়ের লামারাম করিম, বিনয় বিশ্বম, কংগ্রেসের ফুলো দেবী নেতাম, ছায়া ভার্মা, আর বোরা, রাজামণি পটেল, সৈয়দ নাসির হুসেন, অখিলেশ প্রসাদ সিংহকেও গোটা শীতকালীন অধিবেশনের জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : COVID Vaccination: নিবিড় টিকাকরণে এগিয়ে বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলি, অনেকটা পিছিয়ে কংগ্রেস

আরও পড়ুন : Omicron: বিশ্লেষণ: দাঁত-নখ বের করছে ওমিক্রন, কতটা ভয়ের কারণ হতে পারে?

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla