সিপিএম-কংগ্রেস-তৃণমূলের ‘জোট’ চাইছেন দিলীপও, কেন?

Dilip Ghosh: "বাংলার বাইরে তৃণমূল আছেটা কোথায় যে এত তারা লাফালাফি করছে? এইতো উনি গিয়েছিলেন। ওনার সঙ্গে কেউ চা খেতে পর্যন্ত আসে না। দেখাও করে না।''

সিপিএম-কংগ্রেস-তৃণমূলের 'জোট' চাইছেন দিলীপও, কেন?
ফাইল ছবি।

কলকাতা: “ত্রিপুরায় কি আদৌ অস্তিত্ব আছে তৃণমূল কংগ্রেসের? যাঁরাও বা ছিলেন, তাঁরাও তো আমাদের দলেরই হাত ধরেছে।” তৃণমূলের (TMC) ত্রিপুরা দখল প্রসঙ্গে কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের (Dilip Ghosh)।

শনিবার সকালে ত্রিপুরাবাসীর জন্য টুইট করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। তা নিঃসন্দেহে তাৎপর্যপূর্ণ। শনিবার কেরপুজো উপলক্ষে এই টুইট করেছেন তিনি। লিখেছেন, ‘কেরপুজোর শুভক্ষণে ত্রিপুরাবাসীকে শুভেচ্ছা জানাই। সবার সুস্বাস্থ্য ও ভাল জীবনের কামনা করি।’

রাজনৈতিক আবহে তৃণমূল নেত্রীর এই টুইট যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। অন্যদিকে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছেন, কয়েকটা আসন জিততে নয়, রাজ্য দখলকে লক্ষ্য করে ঝাঁপাবেন তাঁরা। কয়েকদিন আগেই মমতার নির্দেশে আগরতলায় যান ব্রাত্য বসু, মলয় ঘটক, ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়, ডেরেক ও’ ব্রায়েন এবং কাকলি ঘোষ দস্তিদার।

সম্প্রতি প্রশান্ত কিশোরের আইপ্যাকের একটি টিমকে সেখানে আটক করা হয়েছিল। তা নিয়েই প্রতিবাদ করে তৃণমূল। শীঘ্রই ত্রিপুরায় যাবেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও। এই প্রেক্ষিতে কটাক্ষ ছুড়ে দিলেন দিলীপ। এদিন বিজেপির রাজ্য সভাপতিকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, তৃণমূল কি এবার ত্রিপুরা দখলের পথে?

আর এ নিয়ে পাল্টা কটাক্ষ করেছেন দিলীপ। বলেন, “তৃণমূল কংগ্রেস কি আদৌ আছে ত্রিপুরায়? যা ছিল সব তো আমাদের দলে চলে এসেছে। আগে তো পার্টিটা শুরু হোক, তারপর দখলের কথা।” এদিকে ত্রিপুরায় পিকের টিমকে আটকে রাখার নিন্দা করেছে সিপিএম। বিজেপি বিরোধী শক্তি হিসাবে তৃণমূলের হাত ধরতে তাঁদের আপত্তি নেই বলে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করেছেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। তাহলে কি বিজেপি বিরোধী জোট হচ্ছে? দিলীপের কী মত?

বিজেপির রাজ্য সভাপতির উক্তি, “সিপিএম-কংগ্রেস-তৃণমূল আরও কেউ থাকলে এক হওয়া দরকার। একটা শক্ত বিরোধী হাওয়া তো দরকার। কিন্তু সেটা সম্ভব কি?” তিনি যোগ করেন, “বাংলার বাইরে তৃণমূল আছেটা কোথায় যে এত তারা লাফালাফি করছে? এইতো উনি গিয়েছিলেন। ওনার সঙ্গে কেউ চা খেতে পর্যন্ত আসে না। দেখাও করে না। সমস্যাটা ওনার। বাকিরা সবাই নিজের নিজের পার্টি নিয়ে ব্যস্ত আছেন।”

আর বিজেপি বিরোধী জোট শক্তি নিয়ে দিলীপের কটাক্ষ, “উনিশের কথা মনে রাখা দরকার। সেই অভিজ্ঞতা তো ওনাদের আছে। মানুষের মোদীর ওপর আস্থা আছে। মোদী হ্যায় তো মুমকিন হ্যায়। রেডি থাকলে আর কারও দরকার নেই।” আরও পড়ুন: সুরেলা বাবুল কি গাইবেন ‘বেসুরে’? ফেসবুক পোস্ট ‘এডিট’ করে জল্পনা বাড়ালেন নিজেই

Zika Band

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla