ববি-সুদীপের সঙ্গে একই ফলকে দেবাঞ্জন! এফআইআর দায়ের নয়নার, আক্রমণে শান শুভেন্দুর

লিখিতভাবে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন নয়না। পুরো ঘটনা নিয়ে এ দিন থেকে সুর চড়ানো শুরু করেছে বিজেপিও।

ববি-সুদীপের সঙ্গে একই ফলকে দেবাঞ্জন! এফআইআর দায়ের নয়নার, আক্রমণে শান শুভেন্দুর
অলংকরণ- অভীক দেবনাথ

কলকাতা: ভুয়ো টিকা কাণ্ডে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবের জালিয়াতির জাল ছড়িয়ে অনেক গভীরে। সময় যত যাচ্ছে, ক্রমশই স্পষ্ট হতে শুরু করেছে সেই বিষয়টা। এ বার ধৃত দেবাঞ্জনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করলেন চৌরঙ্গির তৃণমূল বিধায়ক নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়ও। সূত্রের খবর, তালতলা থানায় এই এফআইআর দায়ের করেছেন তিনি। কারণ, তালতলা এলাকায় বৃহস্পতিবার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের একটি মূর্তির তলায় নজরে আসে দেবাঞ্জনের নাম। মূর্তির তলায় থাকা সেই ফলকে তৃণমূলের আরও একাধিক প্রথম সারির নেতাদের নাম ছিল। এরপরই লিখিতভাবে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন নয়না। পুরো ঘটনা নিয়ে এ দিন থেকে সুর চড়ানো শুরু করেছে বিজেপিও।

তালতলার রাস্তায় সম্প্রতি রবি ঠাকুরের একটি ফলক উদ্বোধন হয়। ফলকে উদ্বোধনের তারিখ লেখা, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১। সেই ফলকটির সামনে গিয়ে তাতে এ দিন দেবাঞ্জন দেবের নাম লেখা যায়। সঙ্গে বন্ধনীতে লেখা রয়েছে, যুগ্ম সচিব, পশ্চিমবঙ্গ সরকার। ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ড প্রকাশ্যে আসার পর অবশ্য কেউ বা কারা এই নামে কালি লেপে দিয়েছে। কিন্তু এখনও দিব্যি নাম পড়া যাচ্ছে। আরও চাঞ্চল্যকর বিষয় হল, ফলকে দেবাঞ্জনের উপরেই নাম রয়েছে তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, তাঁর স্ত্রী তথা বিধায়ক নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এ ছাড়াও ফিরহাদ হাকিম, তাপস রায় এবং অতীন ঘোষের নামও রয়েছে সেখানে। যা দেখে এ দিন হতভম্ভ হয়ে গিয়েছে নয়না। বিষয়টি নজরে আসার পরই এফআইআর দায়ের করেছেন তিনি। কী ভাবে ওই ফলকে তাঁর নাম এল, তা নিয়ে বিন্দু বিসর্গও জানা নেই বলে দাবি তৃণমূল বিধায়কের।

অন্যদিকে, ভুয়ো টিকাকরণের ঘটনায় প্রথম থেকে চুপ থেকে এ বার ধীরে ধীরে মুখ খোলা শুরু করেছে বিজেপিও। বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী থেকে শুরু করে পদ্মশিবিরের সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়, প্রত্যেকেই তোপ দেগেছেন তৃণমূলের বিরুদ্ধে। রাজ্য সরকারের হাই প্রোফাইল মন্ত্রীদের নাকের ডগায় কী ভাবে দিনের পর দিন এমনটা চলল, প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন সকলেই।

আরও পড়ুন: কোভিশিল্ডের স্টিকার সরাতেই চোখ কপালে ফরেন্সিক বিভাগের! ভ্যাকসিনের নামে কী নিলেন মিমিরা?

শুভেন্দু অধিকারী বৃহস্পতিবার রাতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে ট্যাগ করে একটি টুইট করেন। যেখানে তিনি প্রশ্ন তোলেন, যেখানে রাজ্যের একজন সাংসদ (মিমি চক্রবর্তী) এই ভ্যাকসিন জালিয়াতির শিকার হচ্ছেন, সেখানে সাধারণ মানুষের সুরক্ষা কোথায়? টুইটে সুর চড়ান লকেট চট্টোপাধ্যায়ও। তাঁর বক্তব্য, এই অতিমারির সময় মানুষের জীবন নিয়ে খেলছে তৃণমূল।

লক্ষ্যণীয়ভাবে, এই আগে বিজেপি এই ভুয়ো টিকাকরণ বিতর্কে সুর চড়ায়নি। খানিকটা ধীরে চলো পন্থা নিয়েছিল রাজ্যের বিরোধী দল। কিন্তু, কসবার টিকাকরণ কেন্দ্রে যে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছিল তা নকল ছিল, এই তথ্য সামনে আসার পরই দাঁত-নখ বের করে আক্রমণে নেমেছে গেরুয়া শিবির। এই আক্রমণ যে উত্তরোত্তর আগামী সময় বৃদ্ধি পাবে, তা সহজেই অনুমেয়।

আরও পড়ুন: পুলিশের স্ক্যানারে দেবাঞ্জনের সঙ্গিনীও, সিটি কলেজের টিকা ক্যাম্পে মারাত্মক ঘটনা ঘটিয়েছিলেন এই ‘রহস্যময়ী’

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla