জমিয়ে দোল খেলেছেন, ত্বক আর চুলের রঙ তুলবেন কীভাবে? মেনে চলুন এই কয়েকটি টিপস

চুলে আটকে গিয়েছে আবির। মুখে-হাতে রঙ বসে গিয়েছে। এবার চুল আর ত্বকের সঠিক যত্ন করে আগের পর্যায়ে ফেরানোর পালা।

জমিয়ে দোল খেলেছেন, ত্বক আর চুলের রঙ তুলবেন কীভাবে? মেনে চলুন এই কয়েকটি টিপস
জেনে নিন কী কী করবেন

‘খেলব হোলি রঙ দেব না, তাই কখনও হয়’…

সত্যিই তো দোল খেলবেন আর রঙ মেখে ভূত হবে না, তাই আবার হয় নাকি। আবির হোক বা জলে মেশানো রঙ, জমিয়ে দোল না খেললে আজকের দিনের মজাটাই যান বিফলে যাবে। তাই নিশ্চয় সকাল থেকেই অনেকে জমিয়ে দোল খেলেছেন। আর তার ফলে ভরপুর মজার সঙ্গে সঙ্গে উপরি পাওয়া হয়েছে আরও কয়েকটা জিনিস।

চুলে আটকে গিয়েছে আবির। মুখে-হাতে রঙ বসে গিয়েছে। এবার চুল আর ত্বকের সঠিক যত্ন করে আগের পর্যায়ে ফেরানোর পালা। এর জন্য একটু খাটনি আছে বইকি। তবে ঘরে বসেই সহজ পদ্ধতিতে রঙ তোলা সম্ভব। শুধু প্রয়োজন একটু ধৈর্য।

ত্বকের পরিচর্যা- শুধু আজ দোল খেলেছেন বলে আজকেই ত্বকের যত্ন নেবেন তা কিন্তু একেবারেই নয়। আগামী তিন থেকে চারদিন ত্বকের ভালমত দেখভাল করতে হবে।

১। দোল খেলার আগে নিশ্চয় বডি অয়েল কিংবা ক্রিম মেখে নিয়েছিলেন। অবশ্যই লাগিয়েছিলেন সানস্ক্রিন। এবার রঙ খেলার শেষে আগে ভাল করে স্নান করে নিন। যে সাবান বা ফেসওয়াশ, বডিওয়াশ সারাবছর ব্যবহার করে সেটাই মাখুন। নতুন কিছু লাগাতে যাবেন না। রঙের থেকে হঠাৎ অ্যালার্জি দেখা দিলে সমস্যায় পড়বেন।

২। স্নানের পরে অতি অবশ্যই পুরু করে ক্রিম মাখুন। জোরে ঘষে মুখের বা হাত-পায়ের রঙ তুলতে যাবেন না একেবারেই। এতে রঙ তো উঠবেই না। উল্টে চামড়ার বারোটা বেজে যাবে। শুধু মুখে ক্রিম মাখলেই হবে না। হাতে-পায়েও ময়শ্চারাইজার লাগাতে হবে। বডি লোশনের বদলে বডি অয়েলও মাখতে পারেন। রাতে শোয়ার আগে ভাল করে মুখ পরিষ্কার করে আবার ক্রিম লাগিয়ে নেবেন।

৩। মুখ মোছার জন্য নরম গামছা বা টাওয়েল ব্যবহার করুন। এছাড়া সঙ্গে রাখুন ওয়েট বা ভেজা টিস্যু পেপার। নখ বড় থাকলে, নখ কেটে নিন। এতে অনেকটা রঙ বেরিয়ে যাবে। স্নানের সময় খেয়াল করে কান পরিষ্কার করে নেবেন। নাহলে রঙ জমে থাকতে পারে।

চুলের যত্ন- আজ অন্তত দু’বার শ্যাম্পু করতে হবে। স্নানের জন্য হাল্কা গরম জল ব্যবহার করুন। প্রথমবার শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগাবেন না। দেখে নিন কতটা রঙ উঠেছে এবং আর কতটা বাকি আছে। সেই বুঝে দ্বিতীয়বার শ্যাম্পু করুন এবং কন্ডিশনার লাগান। যদি চুল খুব রুক্ষ হয়ে যায় তাহলে হাল্কা কোনও হেয়ার অয়েল হাতে নিয়ে চুলে বুলিয়ে নিন। রাতে শোয়ার আগে আর একবার মোটা কোনও তেল লাগিয়ে ঘুমান। পরদিন ফের শ্যাম্পু করবেন।

আগামী তিন থেকে চারদিন এই নিয়মগুলো মেনে চললে ধীরে ধীরে রঙ উঠে যাবে।