Novak Djokovic: ‘কোভিড পজিটিভ হওয়া সত্ত্বেও বেলগ্রেদের ইভেন্টে গিয়েছিলাম,’ সত্যতা স্বীকার জোকারের

সোশ্যাল নেটওয়ার্কে পোস্ট করে জোকার জানান, ১৮ তারিখের ইভেন্টে উপস্থিত থাকার সময় তিনি করোনা সংক্রমিত ছিলেন।

Novak Djokovic: 'কোভিড পজিটিভ হওয়া সত্ত্বেও বেলগ্রেদের ইভেন্টে গিয়েছিলাম,' সত্যতা স্বীকার জোকারের
Novak Djokovic: 'কোভিড পজিটিভ হওয়া সত্ত্বেও বেলগ্রেদের ইভেন্টে গিয়েছিলাম,' সত্যতা স্বীকার জোকারের (ছবি-নোভাক জকোভিচ টুইটার)

মেলবোর্ন: কোভিডে (Covid-19) আক্রান্ত হওয়ার পরও আইসোলেশন (Isolation) ভেঙে বেলগ্রেদে এক সাংবাদিকের ইন্টারভিউয়ে গিয়েছিলেন নোভাক জকোভিচ (Novak Djokovic)। সার্বিয়ান টেনিস সুপারস্টার নিজেই স্বীকার করলেন সেই কথা। সোশ্যাল নেটওয়ার্কে পোস্ট করে জোকার জানান, ১৮ তারিখের ইভেন্টে উপস্থিত থাকার সময় তিনি করোনা সংক্রমিত ছিলেন। তবে কোভিড পজিটিভ থাকলেও, তখনও রিপোর্ট হাতে পাননি। তাই করোনা সংক্রমিত হওয়ার ব্যাপারে কিছু জানতে পারেননি। সে কথাও জানান জোকার। অস্ট্রেলিান ওপেন খেলতে আসার সময় সঠিক কাগজ দেখাতে না পারায় জকোভিচের ভিসা বাতিল করে অস্ট্রেলিয়ার সুরক্ষা বাহিনী। অস্ট্রেলিয়া সরকারের পক্ষ থেকেও বলা হয়, ভ্যাকসিন ছাড়া সে দেশে কাউকে তাঁরা প্রবেশ করতে পারবে না। পরিস্থিতি এতটাই জটিল হয়, অস্ট্রেলিয়ার ফেডেরাল কোর্টে মামলা করে বসেন জকোভিচ।

গত সোমবার সেই শুনানিতে, জকোভিচকে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দেয় আদালত। ওই মামলাতেই, জোকারের আইনজীবী একটা চিঠি দিয়ে জানায়, গত ১৬ ডিসেম্বর করোনা সংক্রমিত হয়েছিলেন সার্বিয়ান সুপারস্টার। অথচ তার পর দিনই একটা ইভেন্টে দেখা যায় জকোভিচকে। যে ঘটনা নিয়ে মুখ খুললেন ২০ বারের গ্র্যান্ড স্ল্যামজয়ী টেনিস তারকা।

গত মাসের ১৭ তারিখ ওই ইভেন্টে যোগ দেওয়ার প্রসঙ্গে জকোভিচ বলেন, ‘সেই ঘটনার জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী। সেই সময় আমি অ্যাসিম্পটোমেটিক ছিলাম। তবে আমার শরীরে কোনও সমস্যা ছিল না। কোভিড পরীক্ষার রেজাল্টও তখন হাতে আসেনি। তবে ইভেন্টে যাওয়ার আগে বেশ কয়েকবার ব়্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট করাই। প্রত্যেকটার রেজাল্ট নেগেটিভ আসে। তবে ইন্টারভিউ চলার সময় আমি শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখেছিলাম এবং আমার মুখে সবসময় মাস্ক ছিল। শুধু ছবি তোলার সময় মাস্ক খুলেছিলাম।’

View this post on Instagram

A post shared by Novak Djokovic (@djokernole)

সেই সংবাদমাধ্যমের তরফ থেকে জানানো হয়, অনুষ্ঠান চলাকালীন জকোভিচ এক বারের জন্যও মাস্ক খোলেননি। অথচ মাস্ক খোলার জন্য তাঁকে অনেকবারই অনুরোধ করা হয়েছিল। একই সঙ্গে সাংবাদিক ফ্র্যাঙ্ক রামেলা বলেন, ওই ইন্টারভিউতে করোনা প্রতিষেধক নেওয়া বা না নেওয়া নিয়ে জোকারকে কোনও প্রশ্ন করা হয়নি। কারণ সার্বিয়ান টেনিস সুপারস্টার আগেই সেই প্রশ্ন করতে বারণ করে দিয়েছিলেন।

একই সঙ্গে অস্ট্রেলিয়া আসার সময়ও জকোভিচের ট্রাভেল এজেন্ট অনেক তথ্যই গোপন করেছে, এমনই অভিযোগ। সেটা নিয়েও ক্ষমা চেয়ে নিজের এজেন্টের উপর দোষ চাপান জোকার। ফর্ম পূরণ করার সময়, ভুল করে অন্য বক্সে ‘টিক’ মার্ক দেন জোকারের এজেন্ট। অনিচ্ছাকৃত ভুল হিসেবে দেখিয়ে বিষয়টাকে এড়িয়ে যান সার্বিয়ান সুপারস্টার।

আরও পড়ুন: Novak Djokovic: এটিপি দাঁড়াল পাশে, মুক্ত পৃথিবীতে জোকার

Published On - 4:17 pm, Wed, 12 January 22

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla