Brazil woman marries doll: পুতুলের সঙ্গে সঙ্গমে পেটে এল সন্তান! ৩৫ মিনিট ধরে প্রসবের লাইভ স্ট্রিম…

Brazil woman marries doll: পুতুলের সঙ্গে সঙ্গমে পেটে এল সন্তান! ৩৫ মিনিট ধরে প্রসবের লাইভ স্ট্রিম…
তাঁর সংসারকে ভুয়ো বললে খুব রেগে যান মোরেস

Brazil woman married a rag doll gives birth to a child: এক পুতুলকে বিয়ে করেছিলেন এক ব্রাজিলীয় মহিলা। এবার এক সন্তানের জন্ম দিলেন তিনি।

TV9 Bangla Digital

| Edited By: Amartya Lahiri

Jun 24, 2022 | 2:05 PM

রিও ডি জেনেইরো: বিয়ে করে একেবারে মনের মতো সঙ্গী বা সঙ্গিনী পাওয়াটা সকলেরই স্বপ্ন থাকে। সেই স্বপ্ন সবসময় সফল হয় না। তবে, ব্রাজিলের এক মহিলা এতটাই ভাগ্যবান যে, এমন একজনকে তিনি বিয়ে করেছেন যাকে শুধুমাত্র তাঁর জন্য়ই ‘তৈরি’ করা হয়েছে। হ্যাঁ, আক্ষরিক অর্থেই তাঁর স্বামীকে তৈরি করা হয়েছে। কারণ ওই মহিলা বিয়ে করেছেন একটি ব়্যাগ ডল অর্থাৎ কাপড়ের তৈরি পুতুলকে। বলা ভাল বিয়ে করতে বাধ্য হয়েছেন, কারণ ওই পুতুলটি তাঁকে গর্ভবতী করে দিয়েছিল। বিয়ের পর এক ফুটফুটে সন্তানেরও জন্ম দিয়েছেন ওই মহিলা।

দ্য মিরর-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ৩৭ বছরের মেইরিভোন রোচা মোরেস ‘ফররো’ নাচতে ভালবাসতেন। এই নাচের জন্য এক সঙ্গীর প্রয়োজন হয়। কিন্তু, মোরেসের কোনও নাচের সঙ্গী ছিল না। এই নিয়ে প্রায়ই তিনি তাঁর মায়ের কাছে অনুযোগ করতেন। এই কারণেই তাঁর মা একটি কাপড়ের পুতুল তৈরি করে দিয়েছিলেন। শুধুমাত্র মোরেসের নাচের সঙ্গীর অভাব দূর করতেই তিনি ওই পুতুলটি তৈরি করেছিলেন, নাম দিয়েছিলেন মার্সেলো।

তবে, প্রথম দেখাতেই মার্সেলোর প্রেমে পড়ে গিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন মোরেস। শুরু থেকেই একজন নৃত্যসঙ্গীর থেকে মোরেসের জীবনে অনেক বেশি গুরুত্ব আদায় করে নিয়েছিল মার্সেলো। একসঙ্গে সময় কাটাতে কাটাতে সম্পর্ক আরও গভীর হয়েছিল। হবে নাই বা কেন? মোরেস জানিয়েছেন, মার্সেলো কখনও তাঁর সঙ্গে তর্ক বা ঝগড়া করে না। সবসময় তাঁকে বোঝে। খুবই বিশ্বস্ত সে। মোরেসের কথায়, ‘সে এমন এক পুরুষ, যাকে সমস্ত মহিলারা চায়, আর পায় না বলে আমাকে ঈর্ষা করে। এরকম একজনকেই আমি সবসময় আমার জীবনে চেয়েছিলাম।’

এরপরই তাঁরা একসঙ্গে এক ঘরে থাকা শুরু করেন। তবে, এত কিছু ভালর মধ্যেও মার্সেলোর সমস্যা হল, সঙ্গমের সময় সে কন্ডোম বা নিরোধ ব্যবহার করে না। মোরেস জানিয়েছেন, বেশ কয়েক মাস একসঙ্গে থাকার পর তিনি জানতে পেরেছিলেন যে, তিনি ‘গর্ভবতী’। মোরেস বলেছেন, ‘সত্যি সত্যিই, মার্সেলো আমাকে গর্ভবতী করেছে। ও কখনও কন্ডোম ব্যবহার করত না। আমি গর্ভাবস্থার পরীক্ষা করেছিলাম, ফল এসেছিল ইতিবাচক। আমি তো বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না।’

বিবাহিত সম্পর্কের বাইরে সন্তান নিতে রাজি হননি মোরেস। সম্মতি জানিয়েছিল মার্সেলোও। আর তারপরই তাঁরা বিবাহের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। প্রতিবেদন অনুযায়ী প্রায় ২৫০ অতিথিদের উপস্থিতিতে একটি দুর্দান্ত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ওই পুতুলের সঙ্গে গাটছড়া বেঁধেছিলেন মোরেস। মোরেস বলেছিলেন, ‘বিয়ের দিনটা খুব সুন্দর ছিল। বিয়ের পর স্বামী মার্সেলোকে নিয়ে ফুলশয্য়ায় গিয়েছিলাম। গোটা রাত দারুণ উপভোগ করেছি।’ এরপর, ব্রাজিলেয় সৈকত শহর রিও ডি জেনেইরো-তে দুজনে মধুচন্দ্রিমাতেও গিয়েছিলেন।

ফিরে এসে গত ২১ মে এক শিশুর জন্ম দিয়েছেন মোরেস। এমনকি, ৩৫ মিনিট ধরে লাইভ স্ট্রিমের মাধ্যমে প্রায় ২০০ জনের সঙ্গে শিশুর জন্ম দেওয়ার মুহুর্ত ভাগ করে নিয়েছেন মোরেস। বাড়িতেই প্রসব করেন, উপস্থিত ছিলেন একজন ডাক্তার ও একজন নার্স। কিন্তু, পুতুল সঙ্গে সঙ্গম করে কীভাবে গর্ভবতী হলেন তিনি? কীভাবেই বা সন্তানের জন্ম দিলেন? এর একটিই জবাব, তাঁর শিশুও আদতে একটি কাপড়ের তৈরি পুতুল। পুতুল স্বামী এবং পুতুল শিশু নিয়ে এখন মোরেসের ভরা সংসার। মার্সেলোকে নিয়ে তাঁর একটিই অভিযোগ, তাঁর স্বামী বেশ অলস, কাজ করতে মোটে পছন্দ করে না। এমনকি, বিয়ের পরও, মোরেসকেই উপার্জন করতে হয়, যাবতীয় খরচ মেটাতে হয়।

তবে, স্বামী-সন্তান নিয়ে তাঁর এই সাংসারিক জীবনকে কেউ ফেক বা ভুয়ো বললে মোরেস সত্যি সত্যি রেগে যান। তিনি বলেছেন, ‘এটা শুনলেই আমার খুব রাগ হয়। আমি একজন চরিত্রবান নারী। আমার বাবা-মা আমাকে সৎ হতে, একজন ভাল মানুষ হতে শিখিয়েছেন। আমি কোনও কিছুর সুবিধা নিতে চাই না। তারপরও আমাকে এসব কেন শুনতে হবে?’

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA