‘শ্রীময়ী’র সফল দু’বছর, নেপথ্যের কৃতিত্ব কার?

লীনা জানান, শ্রীময়ী এখন সারা ভারতে সাতটা ভাষায় চলছে। সবগুলোতেই এক নম্বর। সকলেরই খুব ইমোশন জড়িয়ে রয়েছে এই ধারাবাহিকের সঙ্গে। যতদিন গল্প থাকবে, ততদিন এই ধারাবাহিক চলবে বলে জানালেন তিনি।

  • Updated On - 1:57 pm, Fri, 11 June 21 Edited By: স্বরলিপি ভট্টাচার্য
‘শ্রীময়ী’র সফল দু’বছর, নেপথ্যের কৃতিত্ব কার?
'শ্রীময়ী'র চরিত্রে ইন্দ্রাণীর লুক।

১০ জুন, ২০১৯। প্রথমবার দর্শক দেখেছিলেন ধারাবাহিক ‘শ্রীময়ী’। দু’বছর পেরিয়ে আজও সমান জনপ্রিয় সেই ধারাবাহিক। ইন্দ্রাণী হালদার, ঊষসী চক্রবর্তীর মতো শিল্পীর চরিত্ররা তুমুল জনপ্রিয়তা পেয়েছে বাঙালির অন্দরমহলে। সাধারণ এক গৃহবধূর গল্প বুনেছেন চিত্রনাট্যকার লীনা গঙ্গোপাধ্যায়। পর্দায় দেখা সেই চরিত্রের সঙ্গে নিজেদের মিল খুঁজে পেয়েছেন দর্শক।

এতগুলো দিন পেরিয়ে এসে সাফল্যের পিছনে গল্পের অবদানকেই বড় করে দেখলেন ইন্দ্রাণী হালদার। তাঁর কথায়, “এই আনন্দের মুহূর্তটা লকডাউনের জন্য সেলিব্রেট করতে পারছি না দুঃখ হচ্ছে। সব ঠিক থাকলে আমরা একসঙ্গে আনন্দ করতাম। কেক কাটতাম। যাই হোক পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে। শ্রীময়ী এখনও সমান জনপ্রিয়। এখনও দর্শক শ্রীময়ীর সঙ্গে আছেন। লীনাদি অনেক প্রতিকূলতার মধ্যে খুব সুন্দর ভাবে নিয়ে যাচ্ছেন। আসলে গল্পের উপর টেলিভিশন চলে। অভিনেতাদেরও কন্ট্রিবিউশন থাকে। কিন্তু কাহিনি খুব গুরুত্বপূর্ণ। শ্রীময়ী, জুন, রোহিত, অনিন্দ্য, ডিঙ্কা- সব চরিত্র অত্যন্ত জনপ্রিয়।”

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Aishi Bhattacharya (@aishi_here)

চিত্রনাট্যকার লীনা গঙ্গোপাধ্যায় আবার কৃতিত্বের নেপথ্যে সকলের মিলিত প্রয়াসের কথা উল্লেখ করলেন। লীনা বলেন, “শ্রীময়ী খুব স্ট্রং শো। প্রতিদিনের চ্যালেঞ্জ। আমরা গুণমান থেকে সরে যাইনি। শ্রীময়ীর চরিত্রদের নিয়ে লোকে নানা ভাবে কথা বলেন, রিঅ্যাক্ট করেন। দীর্ঘকালীন সফলতা পেয়েছি। সেটা সকলের মিলিত প্রয়াস ছাড়া সম্ভব হয় না। চ্যানেলও যে এমন একটা শো করার স্বাধীনতা দিয়েছিলেন, সেটাই আনকনভেনশনাল। আমাদেরও কখনও কখনও ফর্মুলার বাইরে করতে ইচ্ছে করে। বয়স অনুযায়ী ছোট বড় সকলে এখানে নিজের বেস্টটা দিয়েছেন বলে আমরা বিশ্বাস করি।”

লকডাউনে অধিকাংশ শুটিং বন্ধ। কখনও বাড়ি থেকে শুটিং করতে হচ্ছে শিল্পীদের। এই পরিস্থিতিতে কী কী পরিবর্তন করতে হয়েছে? লীনা শেয়ার করলেন, “গল্পের পরিবর্তন হয়নি। টেকনোলজির পরিবর্তন হয়েছে। শৈবাল বন্দ্যোপাধ্যায়ের ২৮ বছরের অভিজ্ঞতা। অনেক কিছুই তিনি প্রথমবার টেলিভিশনে এনেছেন। সীমাবদ্ধতার মধ্যেও কীভাবে শুট করা যায়, উনি দেখিয়েছেন।”

লীনা আরও জানান, শ্রীময়ী এখন সারা ভারতে সাতটা ভাষায় চলছে। সবগুলোতেই এক নম্বর। সকলেরই খুব ইমোশন জড়িয়ে রয়েছে এই ধারাবাহিকের সঙ্গে। যতদিন গল্প থাকবে, ততদিন এই ধারাবাহিক চলবে বলে জানালেন তিনি।

আরও পড়ুন, নিজের পরিবারকে অদ্ভুত আখ্যা দিলেন ইরফান পুত্র বাবিল!