ফেসবুক থেকে তথ্য চুরি! কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার নামে মামলা দায়ের সিবিআইয়ের

ফেসবুক জানায়, জিএসআরএল বেআইনিভাবে ভারতের প্রায় ৫.৬২ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য সংগ্রহ করে এবং তা কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার সঙ্গে ভাগ করে নেয়। নির্বাচনী পরামর্শদাতা ওই সংস্থা সেই তথ্যই ভোটারদের প্রভাবিত করতে ব্যবহার করে।

ফেসবুক থেকে তথ্য চুরি! কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার নামে মামলা দায়ের সিবিআইয়ের
নির্বাচন প্রভাবিত করতে ব্যবহার করা হত ফেসবুক থেকে চুরি করা তথ্য।
ঈপ্সা চ্যাটার্জী

|

Jan 22, 2021 | 4:21 PM

নয়া দিল্লি: ফেসবুকের ব্যবহারকারীদের বেআইনিভাবে তথ্য সংগ্রহ ও বিক্রির অভিযোগে ব্রিটেনের রাজনৈতিক পরামর্শদাতা সংস্থা কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা (Cambridge Analytica)-র নামে মামলা দাখিল করল সিবিআই (CBI)। একই মামলায় গ্লোবাল সায়েন্স রিসার্চ লিমিটেড (Global Science Research Limited) নামক আরও একটি সংস্থার বিরুদ্ধেও অভিযোগ আনা হয়েছে।

তদন্তকারী সংস্থার অভিযোগ, ২০১৮ সালে প্রায় ৫ লাখ ৬২ হাজার ভারতীয় ফেসবুক (Facebook) ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য বেআইনিভাবে সংগ্রহ করে এই সংস্থা এবং বিভিন্ন নির্বাচনেও ভোটারদের প্রভাবিত করতে এই তথ্য ব্যবহার করা হয়েছিল।

ঘটনায় সূত্রপাত হয় ২০১৮ সালের মার্চ মাসে। একাধিক আন্তর্জাতিক মিডিয়া সংস্থা অভিযোগ তোলে, কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা সংস্থার কর্মী ও বিভিন্ন তথ্যের মাধ্যমে জানা গিয়েছে ওই সংস্থা বিশ্বের প্রায় পাঁচ কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য তাঁদের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে গোপনে সংগ্রহ করেছিল। সেই বছরই জুলাই মাসে কেন্দ্রীয় ইলেকট্রনিক্স ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ (Ravi Sankar Prasad) সংসদে জানান যে, এই বিষয়ে সিবিআই তদন্ত শুরু করা হবে।

আরও পড়ুন: মেঘালয়ে জঙ্গলের মাঝে গর্তে পড়ে মৃত্যু ৬ পরিযায়ী শ্রমিকের

প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হলে জিএসআরএল (GSRL) ও কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার নামে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র ও সাইবার অপরাধের মামলা দায়ের করা হয়। এই বিষয়ে ফেসবুক সংস্থাকেও প্রশ্ন করা হয়। সিবিআইয়ের প্রশ্নের জবাবে ফেসবুক জানায়, জিএসআরএল বেআইনিভাবে ভারতের প্রায় ৫.৬২ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য সংগ্রহ করে এবং তা কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার সঙ্গে ভাগ করে নেয়। নির্বাচনী পরামর্শদাতা ওই সংস্থা সেই তথ্যই ভোটারদের প্রভাবিত করতে ব্যবহার করে।

কীভাবে হত তথ্য চুরি?

তদন্তে জানা গিয়েছে, গ্লোবাল সায়েন্স রিসার্চ সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা তথা ডিরেক্টর ডঃ অ্যালেক্সান্ডার কোগান “দিস ইজ ইউর ডিজিটাল লাইফ” (ThisISYourLife) নামক একটি অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করেছিলেন। এই অ্যাপে ফেসবুকের নীতি অনুযায়ীই নির্দিষ্ট কিছু তথ্য শিক্ষা ও গবেষণার প্রয়োজনে সংগ্রহের অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এই অ্যাপ ব্যবহারকারীদের অজান্তেই তাঁদের নানা গোপন তথ্য চুরি করে নেয়।

চুরি করা তথ্যগুলির মধ্যে ব্যবহারকারী কোথায় বসবাস করেন, কোন কোন পেজে লাইক করেছেন, এমনকি ব্যক্তিগত চ্যাটে কী কী বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন-যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করে নেওয়া হয়। পরবর্তী সময়ে সেই তথ্যই কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার কাছে বিক্রি করে দেওয়া হয়।

ফেসবুকের তরফে জানানো হয়, ভারতে মোট ৩৩৫ জন ব্যবহারকারী এই অ্যাপটি নিজেদের ফোনে ইনস্টল করেছিলেন। ওই ৩৩৫ জনের বন্ধু তালিকা থেকেই আরও ব্যক্তিদের প্রোফাইলে প্রবেশ করে মোট ৫ লাখ ৬২ হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য চুরি করে এই অ্যাপ।

আরও পড়ুন: কর্নাটক বিস্ফোরণ: পরিবারপিছু ৫ লক্ষ টাকা অনুদান ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর, তদন্তের দাবি রাহুলের

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla