Anubrata Mondal: জামিন নয়, আবারও সিবিআই হেফাজতেই অনুব্রত

সায়নী জোয়ারদার

সায়নী জোয়ারদার |

Updated on: Aug 20, 2022 | 3:24 PM

CBI: এদিনে আসানসোলের বিশেষ সিবিআই আদালতে অনুব্রত মণ্ডলের জামিনের আবেদন জমা পড়ে।

Anubrata Mondal: জামিন নয়, আবারও সিবিআই হেফাজতেই অনুব্রত
ফের জেল হেফাজতে অনুব্রত মণ্ডল।

পশ্চিম বর্ধমান: কোনও যুক্তিই ধোপে টিকল না। আসানসোলে সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে খারিজ হয়ে গেল অনুব্রত মণ্ডলের জামিনের আবেদন। শনিবার আদালতের নির্দেশ, আরও চারদিন সিবিআই হেফাজতেই থাকতে হবে বীরভূমের ‘বেতাজ বাদশা’কে। ২৪ অগস্ট পর্যন্ত তাঁর ঠিকানা নিজাম প্যালেসই। গরু পাচার মামলায় গত ১১ অগস্ট কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার হাতে গ্রেফতার হন বীরভূমে তৃণমূলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। সেইদিন থেকেই সিবিআই হেফাজতে রয়েছেন তিনি। শনিবার ১০ দিনের সিবিআই হেফাজত শেষে আদালতে তোলা হয়। অনুব্রতর শরীর ভাল নয়, তাঁকে জামিন দেওয়া হোক, আদালতে জানিয়েছিলেন তাঁর আইনজীবীরা। যদিও সেই আবেদন খারিজ হয়ে যায়। সিবিআই প্রভাবশালী তত্ত্বেই ‘বাজিমাত’ করে এদিন।

এদিন সিবিআই তাঁকে চারদিনের জন্য হেফাজতে চেয়ে আর্জি জানায় আদালতে। সেই আবেদনই মঞ্জুর করলেন বিচারক। সিবিআইয়ের আইনজীবীরা এদিন বারবার আদালতে জানান, অনুব্রত মণ্ডল প্রভাবশালী। পাশাপাশি তাঁরা জানান, গ্রেফতারির আগে একাধিকবার অনুব্রত মণ্ডলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নোটিস পাঠানো হলেও তিনি সেই তলবে হাজিরা দেননি। এক্ষেত্রে অনুব্রত তদন্তে অসহযোগিতা করেছেন বলেই আদালতে জানায় সিবিআই। একইসঙ্গে তাদের আইনজীবী জানান, গ্রেফতারের পরও তদন্তে সহযোগিতা করছেন না অনুব্রত। এদিন কোর্টরুমে অনুব্রতর মেয়ে সুকন্যার প্রসঙ্গও তুলে ধরে সিবিআই জানায়, তিনি তদন্তে সহযোগিতা করছেন না।

একইসঙ্গে এদিন আদালতে সিবিআইয়ের আইনজীবীরা দাবি করেন, গত ১০ দিন অনুব্রত যে সিবিআই হেফাজতে ছিলেন, সে সময়ের মধ্যে বেশ কিছু নতুন তথ্য তদন্তকারীদের হাতে উঠে এসেছে। সেগুলি ‘ক্রস চেক’-এর জন্য কিছু সময় দরকার। এই যাচাইয়ের জন্য অনুব্রতকে হেফাজতে পাওয়া দরকার বলেই মনে করছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। এদিন আদালতে তুলে ধরা হয় এই বিষয়টিও।

পাল্টা অনুব্রত মণ্ডলের আইনজীবীদের তরফেও এদিন জামিনের পক্ষে সওয়াল করা হয়। অনুব্রত শারীরিকভাবে সুস্থ নন, এই যুক্তির পক্ষে ২০১১ সাল থেকে অনুব্রতের শারীরিক সমস্যা, পরবর্তী বিভিন্ন সময়ে তাঁর শারীরিক পরীক্ষানিরীক্ষা বা চিকিৎসা সংক্রান্ত সমস্ত মেডিক্যাল রিপোর্টও আদালতের সামনে তুলে ধরেন। বিচারকের প্রশ্নের জবাবে অনুব্রতকেও বলতে শোনা যায়, “গতকালও জ্বর ছিল। কাশি আছে।” অনুব্রত মণ্ডলের আইনজীবী এদিন প্রশ্ন তোলেন, একজন ১০ দিন সিবিআই হেফাজতে থাকার পর যখন অসহযোগিতার কথা বলা হচ্ছে, তা হলে আগামী চারদিন সহযোগিতা করবেন, সে কথায় কীভাবে নিশ্চিত হচ্ছে সিবিআই? দু’পক্ষের সওয়াল জবাব শেষে আরও চারদিনের সিবিআই হেফাজত দেওয়া হয় অনুব্রতকে।

এই খবরটিও পড়ুন

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla