মমতাদি’র মাকে ২৭ দিন পাহারা দিয়েছি, মৃত্যুর পর অন্যজল করেছি, ‘সেরা প্রতিদান’ পেয়ে মন্তব্য সোনালির

একুশের বিধানসভা নির্বাচনে (West Bengal Assembly Election 2021) তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা (Trinamool Candidate List 2021) থেকে বাদ সাতগাছির ৪ বারের বিধায়ক সোনালী গুহ।

মমতাদি'র মাকে ২৭ দিন পাহারা দিয়েছি, মৃত্যুর পর অন্যজল করেছি, 'সেরা প্রতিদান' পেয়ে মন্তব্য সোনালির
ফাইল ছবি
সৌরভ পাল

|

Mar 06, 2021 | 5:08 PM


কলকাতা:মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) এক সিদ্ধান্তেই কি দুই দশকেরও বেশি সময়ের সম্পর্ক শেষ? এখনই যবনিকা না টানলেও জল যে সেদিকেই গড়াচ্ছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে (West Bengal Assembly Election 2021) তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা (Trinamool Candidate List 2021) থেকে বাদ সাতগাছিয়ার ৪ বারের বিধায়ক সোনালি গুহ। শুক্রবার দলীয় কার্যালয় থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২৯১ জনের যে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছেন সেখানে নাম নেই ‘সিটিং এমএলএ’ তথা একদা ‘ছায়া সঙ্গী’ সোনালি গুহর (Sonali Guha)। সামান্য একটু ব্লাড সুগার বেশি বলে ‘দিদি’র এই সিদ্ধান্তে ‘ক্ষুব্ধ’ তিনি।

বিস্ফোরক কোনও মন্তব্য না করলেও তিনি যে ‘মরমে মরেছেন’ তাও লুকিয়ে রাখেননি সোনালি। তিনি কাঁদছেন আর বলছেন, “কীভাবে কান্না আটকাব, পারছি না। এতদিন সঙ্গে থাকার পর দিদি আমাকে সেরা প্রতিদান দিলেন।”

স্মৃতির সরণী বেয়ে সোনালি মনে করিয়ে দিলেন দুঃসময়ের কথা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাতৃবিয়োগের সময়েও তিনি ছিলেন। সেই কথা মনে করিয়ে দিয়ে সাতগাছিয়ার বিধায়কের মন্তব্য, “শ্রীকৃষ্ণের যেমন দুটো মা, আমারও তেমন। আমি নিজের মায়ের কাছে যতটা না থেকেছি, মমতা দি’র মায়ের কাছে তার থেকে বেশি থেকেছি। ওঁর মা যখন মারা গেলেন, আমি আলাদা করে অন্নজল দিয়েছিলাম। মৃত্যুশয্যায় ২৭ দিন পাহারা দিয়েছিলাম।”

আরও পড়ুন: এতদিন পাশে থাকার এই দাম: সোনালি, দিব্যেন্দু বললেন, ‘সাইডলাইন করলেন মমতা’

এবার টিকিট না পাওয়ায় কি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হল? বিধানসভার প্রাক্তন ডেপুটি স্পিকার কোনও রাখঢাক না রেখে বলছেন এই ‘বিরহ’ তাঁর কাছে, ‘বোনে বোনে বিচ্ছেদ হওয়ার মতো’।

প্রসঙ্গত, সোনালি গুহ তাঁর রাজনৈতিক কেরিয়ার শুরুর প্রথম দিন থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছায়াসঙ্গী। ২০০১ সালে উপনির্বাচনে তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুর কেন্দ্র সাতগাছিয়া থেকে জয়ী হয়ে বিধানসভার সদস্য হন সোনালি। ১৯৭৭ থেকে ২০০১ পর্যন্ত, পরপর পাঁচ বার ওই আসন থেকেই জিতেছেন রাজ্যের প্রথম কমিউনিস্ট মুখ্যমন্ত্রী। এরপর ২০০১ থেকে সাতগাছিয়ায় কমিউনিস্টদের হারিয়ে জয়ের হ্যাটট্রিক করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই সেনানী। অথচ এবার তাঁর বদলে প্রার্থী করা হয়েছে মোহনচন্দ্র নস্করকে।

আরও পড়ুন: নাম বিভ্রাটের জেরে প্রার্থীকে ‘বহিরাগত’ ভাবলেন অনুগামীরা! রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ

কেন টিকিট পেলেন না সোনালি? তৃণমূল সরাসরি কিছু না বললেও সোনালির ভাবমূর্তি যে এ ক্ষেত্রে বড় কারণ হতে পারে, তা মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের। ১০ বছর ক্ষমতায় থাকার পর রাজ্যে তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠান বিরোধী হাওয়া রুখতেই এবার অনেক আসনে প্রার্থী বদলেছেন মমতা। তাছাড়া, প্রতি প্রার্থাীর ভাবমূর্তি-গ্রহণযোগ্যতা এবং কাজকর্ম সময় নিয়ে খতিয়ে দেখেছে প্রশান্ত কিশোরের আই প্যাক। এর বাইরে কাজ করেছে আরও কিছু সমীকরণ। আর তারপরেই একুশের কঠিন নির্বাচনে প্রার্থী বেছে নিয়েছে ঘাসফুল শিবির, এমনটাই মনে করছেন ওকাংশের পর্যবেক্ষকরা।

তবে শুধু সোনালিই নয়, তৃণমূলের টিকিট না পেয়ে প্রকাশ্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দিপেন্দু বিশ্বাস, রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়, নান্টু পাল প্রমুখরা।


Latest News Updates

Follow us on

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla