Ola Electric Scooter: নেই শোরুম, নেই সার্ভিস সেন্টারও, কোথায় ই-স্কুটারের সার্ভিসিং করবে ওলা?

সম্প্রতি সংস্থার অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে এই ব্যাপারে বেশ কিছু তথ্য পাওয়া গিয়েছে। অনলাইন বুকিং এবং বাড়িতে ডেলিভারির পাশাপাশ এটাও জানা গিয়েছে যে নিয়মিত ইলেকট্রিক স্কুটারের দেখভাল হবে গ্রাহকের বাড়িতেই।

Ola Electric Scooter: নেই শোরুম, নেই সার্ভিস সেন্টারও, কোথায় ই-স্কুটারের সার্ভিসিং করবে ওলা?
১৫ অগস্ট দুটো ভ্যারিয়েন্টে এবং মোট ১০টি রঙে ভারতে লঞ্চ হয়েছিল ওলার ইলেকট্রিক স্কুটার।

গতে কয়েক মাস ধরেই ভারতের গাড়ির বাজারে আলোচনা চলছে ওলার ইলেকট্রিক স্কুটার নিয়ে। গত ১৫ অগস্ট এস১ এবং এস১ প্রো, এই দুই ভ্যারিয়েন্টের ভারতে লঞ্চ হয়েছে ওলার ইলেকট্রিক স্কুটার। ইতিমধ্যেই বিক্রিও শুরু হয়েছে এই সমস্ত ইলেকট্রিক স্কুটারের। পরিসংখ্যান অনুযায়ী কম দামের এস১ ভ্যারিয়েন্টের তুলনায় বেশি এস১ প্রো মডেলের চাহিদা বেশি দেখা গিয়েছে গ্রাহকদের মধ্যে। বিক্রি শুরু পর মাত্র দু’দিনে ১১০০ কোটি টাকার বেশি ব্যবসা করেছে ওলার ইলেকট্রিক স্কুটার। আগামী অক্টোবর মাস থেকে সরাসরি গ্রাহকদের বাড়তে ইলেকট্রিক স্কুটারের ডেলিভারি দেবে ওলা সংস্থা।

উক্ত তথ্যের পাশাপাশি দক্ষিণ ভারতের তামিলনাড়ুতে তৈরি ওলার ফিউচার ফ্যাক্টরি নিয়েও আলোচনা চলছে। এটিই বিশ্বের বৃহত্তম ইলেকট্রিক স্কুটার তৈরির কারখানা। এর পাশাপাশি এটিই বিশ্বের বৃহত্তম কারখানা যা সম্পূর্ণভাবে মহিলা কর্মীদের দ্বারা পরিচালিত হবে। ১০ হাজারের বেশি মহিলা কর্মী নিযুক্ত হবেন এই কারখানা। পুরোদমে উৎপাদন চালু হলে বছর ১০ মিলিয়ন ইলেকট্রিক স্কুটার তৈরি করতে সক্ষম হবে তামিলনাড়ুর ওলা ফিউচার ফ্যাক্টরি। আপাতত ২ মিলিয়ন ইলেকট্রিক স্কুটার উৎপাদনের ক্ষমতা রয়েছে তামিলনাড়ুর কারখানার। কিন্তু উৎপাদন এবং বিক্রির সাফল্য নিয়ে প্রভূত আলোচনা হলেও, ওলার ইলেকট্রিক স্কুটার কোথায় সার্ভিসিং করানো হবে, সেই প্রসঙ্গে কিন্তু এতদিন কিছুই জানা যায়নি। কারণ বিক্রি শুরুর পরেও ওলা সংস্থার তরফে তাদের ইলেকট্রিক স্কুটার বিক্রির জন্য কোনও ডেডিকেটেড ডিলারশিপ বা অথরাইজড সার্ভিস সেন্টারের কথা ঘোষণা করা হয়নি।

তবে সম্প্রতি সংস্থার অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে এই ব্যাপারে বেশ কিছু তথ্য পাওয়া গিয়েছে। অনলাইন বুকিং এবং বাড়িতে ডেলিভারির পাশাপাশ এটাও জানা গিয়েছে যে নিয়মিত ইলেকট্রিক স্কুটারের দেখভাল হবে গ্রাহকের বাড়িতেই। অর্থাৎ ওলার এস১ ইলেকট্রিক স্কুটার যাঁরা কিনবেন, তাঁদের দোরগোড়ায় এই ই-স্কুটারের রেগুলার মেন্টেনেন্স চেক এবং সার্ভিস সম্পন্ন হবে। একই বিষয় প্রযোজ্য এস১ প্রো ভ্যারিয়েন্টের ইলেকট্রিক স্কুটারের ক্ষেত্রেও। চিরাচরিত ভাবে যেরকম উপায়ে গাড়ির দেখভাল বা মেন্টেনেন্স সম্পন্ন হয়, ওলার ইলেকট্রিক স্কুটারের ক্ষেত্রে তা হবে না। অর্থাৎ প্রতি ৩ মাস বা ৬ মাস অন্তর ইলেকট্রিক স্কুটারের মেন্টেনেন্সের প্রয়োজন নেই। বরং কিছু প্রয়োজন হলে ইউজারের স্কুটারই তাঁকে জানান দেবে। আর তখন ওলা ইলেকট্রিক অ্যাপের মাধ্যমে বুকিং করলেই মেন্টেনেন্স এবং সার্ভিসিং বা রিপ্লেসিং পরিষেবা নিয়ে আপনার দোরগোড়ায় হাজির হবেন ওলা কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন- Ola Electric: ই-স্কুটারে সাফল্য, ভবিষ্যতে ইলেকট্রিক বাইক এবং গাড়ি ভারতে আনতে চলেছে ওলা

আরও পড়ুন- Triumph Tiger 900 Bond Edition: এবার জেমস বন্ডের বাইক আনতে চলেছে ট্রায়াম্ফ, থাকছে বিশেষ কিছু ফিচার…

আরও পড়ুন- 2021 Ducati Monster: ভারতে লঞ্চ হয়েছে ডুকাটির নতুন বাইক ‘মনস্টার’, দাম কত?

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla