পোকো এম৩ প্রো ৫জি, ভারতে দ্রুত লঞ্চ হতে পারে এই ফোন

এই ফোনে রয়েছে ট্রিপল রেয়ার ক্যামেরা সেটআপ। তার মধ্যে রয়েছে ৪৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি সেনসর। এছাড়াও রয়েছে ২ মেগাপিক্সেলের একটি প্রাইমারি সেনসর এবং ২ মেগাপিক্সেলের একটি ম্যাক্রো সেনসর। সেলফি তোলার জন্য ফ্রন্ট ক্যামেরায় রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেলের সেলফি শুটার।

পোকো এম৩ প্রো ৫জি, ভারতে দ্রুত লঞ্চ হতে পারে এই ফোন
পোকোর নতুন ৫জি খুব দ্রুত ভারতে লঞ্চ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

পোকো এম৩ প্রো ৫জি ফোন লঞ্চ হতে পারে ভারতে। শোনা যাচ্ছে, ভারতীয় IMEI ডেটাবেসে এই ফোনের হদিশ পাওয়া গিয়েছে। সেখানে মডেল নম্বর M2103K19PI হিসেবে রয়েছে পোকোর এই ফোন। যদিও সংস্থার তরফে আনুষ্ঠানিক ভাবে ফোন লঞ্চের কোনও খবর ঘোষণা করা হয়নি। তবে শোনা যাচ্ছে, খুব তাড়াতাড়িই নাকি এই ফোন লঞ্চ হতে চলেছে ভারতে।

গ্লোবাল মার্কেটে পোকো এম৩ প্রো ৫জি ফোন লঞ্চ হয়েছে গত ২০ মে। জানা গিয়েছে, রেডমি নোট ১০ ৫জি ফোনের রিব্র্যান্ডেড ভার্সান পোকোর এই স্মার্টফোন। ৬.৫ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে রয়েছে এই ফোনে। রিফ্রেশ রেট ৯০Hz। এছাড়াও এই ফোনে রয়েছে MediaTek Dimensity 700 প্রসেসর। এর সঙ্গে ৫০০০mAh ব্যাটারি রয়েছে এই ফোনে। আর রয়েছে ৬ জিবি র‍্যাম। Cool Blue, Power Black, Poco Yellow… এই তিনটি রঙে গ্লোবাল মার্কেটে পাওয়া যাচ্ছে এই ফোন।

টিপস্টারে মুকুল শর্মা, যাঁর টুইটার হ্যান্ডেলের নাম @stufflistings, তাঁর দাবি, পোকো এম৩ প্রো ৫জি ফোন ভারতীয় IMEI ডেটাবেসে দেখা গিয়েছে। গত ২০ মে ৪ জিবি র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি স্টোরেজ ও ৬ জিবি র‍্যাম এবং ১২৮ জিবি স্টোরেজ, এই দুই ভ্যারিয়েন্টে লঞ্চ হয়েছে পোকোর এই ফোন। ইউরোপে এই ফোনের প্রথম ভ্যারিয়েন্টের দাম ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১৪,২০০ টাকা। অন্যদিকে, দ্বিতীয় ভ্যারিয়েন্টের দাম ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১৬,০০০ টাকা।

পোকো এম৩ প্রো ৫জি ফোনের বিশেষ কিছু বৈশিষ্ট্য-

১। অ্যানড্রয়েড ১১ এবং MIUI 12 রয়েছে এই ফোনে। সেই সঙ্গে রয়েছে ৬.৫ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস হোল-পাঞ্চ ডিসপ্লে। রিফ্রেশ রেট ৯০Hz।

২। এই ফোনে রয়েছে DynamicSwitch ফিচার। এর সাহায্যে, ইউজার যে ছবি বা ভিডিয়ো দেখবেন, সেটি অনুযায়ী স্ক্রিনের রিফ্রেশ রেট বদলে যাবে। ৩০, ৫০, ৬০ এবং ৯০Hz- এর মধ্যে থাকবে রিফ্রেশ রেট।

৩। পোকোর এই ৫জি ফোনে রয়েছে MediaTek Dimensity 700 প্রসেসর। ৬ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম এবং ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ থাকবে এই ফোনে।

৪। এই ফোনে একটি সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেনসর এবং এআই ফেস আনলক সাপোর্ট রয়েছে। এছাড়াও ৫০০০mAh ব্যাটারির সঙ্গে থাকবে ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট।

আরও পড়ুন- এমআই ১১ লাইট: ভারতে খুব তাড়াতাড়ি লঞ্চ হতে পারে এই ৪জি ফোন

৫। এই ফোনে রয়েছে ট্রিপল রেয়ার ক্যামেরা সেটআপ। তার মধ্যে রয়েছে ৪৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি সেনসর। এছাড়াও রয়েছে ২ মেগাপিক্সেলের একটি প্রাইমারি সেনসর এবং ২ মেগাপিক্সেলের একটি ম্যাক্রো সেনসর। সেলফি তোলার জন্য ফ্রন্ট ক্যামেরায় রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেলের সেলফি শুটার। ফোনের ওজন প্রায় ১৯০ গ্রাম।