শেখ শাহজাহান

শেখ শাহজাহান

সন্দেশখালির দাপুটে তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান। সন্দেশখালি ১ নম্বর ব্লকের সভাপতি পদে দীর্ঘদিন দায়িত্ব সামলেছেন। সিপিএম থেকে রাজনৈতিক কেরিয়ার শুরু হলেও পালাবদলের পর তৃণমূলের বাহুবলী নেতা হয়ে ওঠেন তিনি। সন্দেশখালির মানুষের কথায়, তিনি নাকি এলাকার ভগবান। সরবেড়িয়া অঞ্চলের একসময়ের পঞ্চায়েত প্রধান শেখ মোসলেমের সহকারী ছিলেন শেখ শাহজাহান। পরবর্তীতে ২০১৩ সালে তৃণমূলে যোগ। এলাকায় জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ঘনিষ্ঠ হিসাবে পরিচিতি রয়েছে তাঁর। তেইশের পঞ্চায়েত নির্বাচনে সন্দেশখালি ২ নম্বর ব্লকের জেলা পরিষদের নির্বাচনে জয়লাভ করেন। তিনি উত্তর ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ বিভাগের কর্মাধক্ষের দায়িত্ব সামলান। তবে রেশন দুর্নীতিতে নাম জড়ায় শেখ শাহজাহানের। তাঁর বাড়িতে তল্লাশি চালায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। তবে তাঁর অনুগামীদের দ্বারা ইডি-র আক্রান্ত হওয়ার অভিযোগও ওঠে। যা নিয়ে সরগরম হয়ে ওঠে বাংলার রাজ্য রাজনীতি। তারপর থেকেই ‘গায়েব’ হয়ে যান শেখ শাহজাহান। সন্দেশখালির দাপুটে তৃণমূল নেতার খোঁজ পান না ইডি আধিকারিকরা। পুলিশ প্রশাসনও হন্যে হয়ে খোঁজ করতে থাকে। জল গড়ায় আদালত পর্যন্ত। তাঁকে কেন্দ্র করেই সন্দেশখালির প্রত্যন্ত গ্রাম সরবেড়িয়া হয়ে ওঠে বাংলার রাজনীতির হটস্পট।

Read More

Sheikh Shahjahan: ১২ কোটির পর এবার শাহজাহানের ১৪ কোটির সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল ইডি

Sheikh Shahjahan: এর আগে ৫ মার্চ তহবিল তছরুপ প্রতিরোধ আইন বা পিএমএলএ-র (PMLA) আওতায় শাহজাহানের ১২.৭৮ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। একটি বিবৃতিও দিয়েছিল ইডি।

Sheikh Sahajahan: শাহজাহানের ‘দখলরাজের’ শেষ কোথায়! ‘দুর্নীতির অঙ্ক’ ডবল সেঞ্চুরি ছাপিয়ে ট্রিপল সেঞ্চুরির পথে…

Sheikh Sahajahan: সন্দেশখালিতে আম জনতার জমি দখল করে যে পাহাড় প্রমাণ দুর্নীতি হয়েছে, এখনও পর্যন্ত সেই টাকার হিসেব গিয়ে দাঁড়িয়েছে ২৬০ কোটি টাকায়। অপরাধের এই বিপুল পরিমাণ কোথায় কোথায় সরানো হয়েছে, বর্তমানে সেই খোঁজই চালাচ্ছেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার অফিসাররা। সূত্র মারফত তেমনই জানা যাচ্ছে।

Sheikh Shahjahan: সন্দেশখালির ভাইরাল ভিডিয়ো সত্যি নাকি ‘ফেক’? মুখ খুললেন শেখ শাহজাহান

Sheikh Shahjahan: এরই মধ্য়ে গত সপ্তাহে প্রকাশ্যে আসে ওই বিতর্কিত ভিডিয়ো। একটি স্টিং অপারেশনের ভিডিয়ো ছিল সেটি। সেখানেই দেখা গিয়েছে বিজেপি নেতা গঙ্গাধর কয়ালকে। গঙ্গাধর কয়াল সেখানে দাবি করেছেন, গত ফেব্রুয়ারি-মার্চ মাসে সন্দেশখালিতে ওঠা ধর্ষণের অভিযোগগুলি সাজানো ছিল।

Sandeshkhali Case: শুধুমাত্র একজনের জন্য কেন সুপ্রিম কোর্টে ছুটল রাজ্য? সন্দেশখালি-মামলায় প্রশ্ন বিচারপতির

Sandeshkhali Case: রাজ্যের তরফে শীর্ষ আদালতে জানানো হয়েছে, হাইকোর্টের নির্দেশে এমন কিছু পর্যবেক্ষণ ছিল যা রাজ্যের বিরোধিতা করে করা হয়েছে। সেই কারণেই রাজ্য সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে।

NSG in Sandeshkhali: সন্দেশখালিতে উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের সঙ্গে সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের যোগ? কী ভূমিকা শাহজাহানের?

NSG in Sandeshkhali: এই অস্ত্র কোথা থেকে কেনা হয়েছিল? এই অস্ত্রপাচার চক্রের সঙ্গে কি আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের যোগ রয়েছে? শাহজাহানই বা কীভাবে জড়িত, কীভাবে হয়েছে অস্ত্র পাচার? উঠছে প্রশ্ন।

Sandeshkhali: কাগজপত্র নিয়ে সিজিও কমপ্লেক্সে হাজির সন্দেশখালির বাসিন্দারা

Sandeshkhali: ইডি অফিসারদের ওপর হামলা হওয়ার পর থেকেই নিখোঁজ ছিলেন শেখ শাহজাহান। এলাকার দাপুটে তৃণমূল নেতা বলে পরিচিত ছিলেন তিনি। রেশন দুর্নীতিতে আগেই জড়িয়েছিল তাঁর নাম, তবে পরবর্তীতে এলাকাবাসীর মুখে শোনা গিয়েছে একের পর এক গুরুতর অভিযোগ।

Sheikh Sahajahan: ইডির অফিস থেকে বেরিয়েই দৌড় লাগালেন শাহজাহানের স্ত্রী…

ED on Sandeshkhali: ইডির অফিস থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্ন এড়াতে কার্যত দৌড়ে বেরিয়ে যান তসলিমা বিবি। কেন্দ্রীয় এজেন্সির প্রশ্নোত্তর পর্ব সামলে বেরনোর সময় সংবাদ মাধ্যমের কোনও প্রশ্নের উত্তর দিতে চাননি শাহজাহানের স্ত্রী। তবে সূত্রের খবর, শাহজাহানের সম্পত্তি সংক্রান্ত বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যই এদিন ইডির অফিসে তলব করা হয়েছিল তাঁকে।

Sheikh Shahjahan: হেফাজতে থেকেই চিঠি লিখেছেন শেখ শাহজাহান! আইনজীবী পড়তে শুরু করতেই আদালত কক্ষ তোলপাড়

Sheikh Shahjahan: ইডি-র আইনজীবী আদালতে দাবি করেন, এই চিঠি শাহজাহানের লেখা নয়। চিঠির বয়ান নিয়ে ইডির আইনজীবী প্রশ্ন তোলেন। তাঁর আর্জি, এই চিঠিকে কোনও ভাবেই আদালতের রেকর্ডে না রাখা হয়। তাঁর দাবি, এই চিঠি গৃহীত হলে এতদিন শাহজাহান যে বয়ান দিয়েছেন, তার গ্রহণযোগ্যতা আর থাকবে না।

Sheikh Shahjahan: ‘CBI তদন্ত হলে ভাল হবে’, হাইকোর্টের নির্দেশ শুনে বললেন শেখ শাহজাহান

Sheikh Shahjahan: এই শেখ শাহজাহানের বাড়িতে তল্লাশি চালাতে গিয়েই নিগ্রহের শিকার হতে হয়েছিল ইডি আধিকারিকদের। গত ৫ জানুয়ারি সেই ঘটনার সূত্র ধরে শিরোনামে আসে সন্দেশখালি। তারপর থেকে নিখোঁজ ছিলেন শেখ শাহজাহান। বর্তমানে ইডি হেফাজতে রয়েছেন শেখ শাহজাহান।

Sheikh Sahajahan: শাহজাহানের স্ত্রীকে প্রায় ১১ ঘণ্টা বসিয়ে প্রশ্নবাণ ইডির, খোঁজ চলছে এই ‘গোপন’ তথ্যের

Sandeshkhali: একা নয়, সঙ্গে নিজের আইনজীবীকে নিয়ে ইডির অফিসে হাজিরা দিতে যান শাহজাহানের স্ত্রী। সকাল ১০টা নাগাদ ঢোকেন ইডির অফিসে। প্রায় ১১ ঘণ্টা ধরে চলে জিজ্ঞাসাবাদের পর্ব, শেষে রাত ৯ টা নাগাদ ইডির অফিস থেকে বেরিয়ে যান তসলিমা বিবি। সূত্রের খবর, মূলত শাহজাহানের সম্পত্তি সংক্রান্ত বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যই এদিন ইডির অফিসে তলব করা হয়েছিল তাঁর স্ত্রীকে।