Kabul Blast: ব্যস্ত দুপুরেই ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল গুরুদ্বার রোড, আতঙ্ক কাবুলজুড়ে

Massive Blast in Kabul: ঘটনায় হতাহতের কোনও খবর মেলেনি এখনও অবধি। গোটা এলাকাই নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। 

Kabul Blast: ব্যস্ত দুপুরেই ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল গুরুদ্বার রোড, আতঙ্ক কাবুলজুড়ে
গুরুদ্বার রোডে হয় ওই বিস্ফোরণটি। প্রতীকী ছবি

কাবুল: ফের বিস্ফোরণে কেপে উঠল আফগানিস্তান (Afghanistan)। এবার হামলা চলল কাবুল(Kabul)-র কার্তে পারওয়ানে (Karte Parwan)। সেখানে অবস্থিত গুরুদ্বার রোডে (Gurudwara Road) বৃহস্পতিবার বিকেল নাগাদ ভয়াবহ বিস্ফোরণ হয়। ঘটনায় হতাহতের কোনও খবর মেলেনি এখনও অবধি। গোটা এলাকাই নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

বুধবারই তালিবান(Taliban) শাসনের ১০০ দিন পূর্ণ হয়েছে। তার পরেরদিনই ফের ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল কাবুল। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টে ১৫ মিনিট নাগাদ আচমকাই  কার্তে পারওয়ানের গুরুদ্বার রোডে ভয়াবহ একটি বিস্ফোরণ হয়। সেই সময় ওই জায়গায় বেশ অনেকজন বাসিন্দাই উপস্থিত ছিলেন। তবে হতাহতের কোনও খবর মেলেনি এখনও।

এই প্রসঙ্গে বলে রাখা ভাল, তালিবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পরই ভারত উদ্ধারকার্য শুরু করেছিল। কিন্তু ৩১ অগস্টের মধ্যে সমস্ত ভারতীয়দের উদ্ধার করে আনা সম্ভব হয়নি। এখনও অবধি ২৩৫ জন হিন্দু ও শিখ আফগানিস্তানেই রয়েছেন।

এদিকে, বিস্ফোরণের ঘটনার তীব্র সমালোচনা করেছেন শিরোমণি আকালি দলের মুখপাত্র মনজিন্দর সিং। তিনি টুইটারে একটি ভিডিয়ো পোস্ট করেন, যেখানে ঘটনাস্থলে অ্যাম্বুলেন্সের ছোটাছুটি দেখা যাচ্ছে। টুইটে তিনি জানান, কাবুলের ‘সঙ্গতে’র মাধ্যমে তিনি বিস্ফোরণের খবর পান। তবে তারা সকলেই সুরক্ষিত রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। একইসঙ্গে তিনি বলেন, আফগানিস্তানের পরিস্থিতি প্রতিনিয়ত আরও খারাপ হচ্ছে।

এর আগে গত ১৬ অক্টোবরও কাবুলের কার্তে পারওয়ানেই গুরুদ্বার দশমেশ পিতায় হামলা হয়েছিল। কিছু কট্টর ইসলামপন্থী অস্ত্র নিয়ে গুরুদ্বারে হামলা চালিয়েছিল সেই সময়। পরে ইন্ডিয়ান ওয়ার্ল্ড ফোরামের তরফে একটি বিবৃতি পেশ করে জানানো হয়, ইসলামিক এমিরেটস অব আফগানিস্তানের বিশেষ শাখাই অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে গুরুদ্বারে হামলা চালিয়েছিল। তারা গুরুদ্বারের ভিতরে-বাইরে ভাঙচুর তৃচালায়। সিসিটিভি ক্যামেরাগুলিও নষ্ট করে দেয় প্রমাণ লোপাটের জন্য। সেই সময় গুরুদ্বারে উপস্থিত পুণ্যার্থী ও নিরাপত্তারক্ষীদেরও ভয় দেখানো হয়। গুরুদ্বারের পাশে অবস্থিত একটি স্কুলেও তারা ভাঙচুর চালায়।

গতকালের ঘটনায় এখনও কোনও গোষ্ঠী দায়স্বীকার করেনি। তালিবানরা ক্ষমতা দখল করার পর আফগানিস্তান জুড়ে আইসিস-খোরাসানও হামলা চালাচ্ছে। তবে এই ঘটনার পিছনে সরাসরি তালিব সরকারই জড়িত থাকতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে।

আরও পড়ুন: New Covid Variant: করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে আশঙ্কার মেঘ, উদ্বেগের নয়া নাম B.1.1529 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla