Goa Assembly Election: সৈকত রাজ্যে প্রতি মুহূর্তে বদলাচ্ছে সমীকরণ; কংগ্রেস, তৃণমূলের সঙ্গে ভোট-বোঝাপড়ায় শরদ পাওয়ার

Sharad Pawar: সৈকত রাজ্যের ভোটে একসঙ্গে লড়ার বিষয়ে কংগ্রেস এবং তৃণমূল - উভয়ের সঙ্গেই আলোচনা চালাচ্ছে এনসিপি। মঙ্গলবার এমনটাই জানিয়েছেন এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার।

Goa Assembly Election: সৈকত রাজ্যে প্রতি মুহূর্তে বদলাচ্ছে সমীকরণ; কংগ্রেস, তৃণমূলের সঙ্গে ভোট-বোঝাপড়ায় শরদ পাওয়ার
গোয়ার ভোটের আগে বৃহত্তর জোট?

পানাজি : ১৪ ফেব্রুয়ারি গোয়ায় নির্বাচন (Goa Assembly Election 2022)। আর ভোটের এক মাস আগে ফের একবার সৈকত রাজ্য়ের রাজনৈতিক সমীকরণ নিয়ে নতুন করে চর্চা শুরু হয়েছে। শরদ পাওয়ারের (Sharad Pawar) ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (NCP) এবার তৃণমূল কংগ্রেস (TMC) এবং কংগ্রেসের (Congress) সঙ্গে জোটের পথে হাঁটতে পারে গোয়ার বিধানসভা নির্বাচনে। সৈকত রাজ্যের ভোটে একসঙ্গে লড়ার বিষয়ে কংগ্রেস এবং তৃণমূল – উভয়ের সঙ্গেই আলোচনা চালাচ্ছে এনসিপি। মঙ্গলবার এমনটাই জানিয়েছেন এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার।

এখনও আলোচনা চলছে জোটের বিষয়ে

শরদ পাওয়ার জানিয়েছেন, “তৃণমূল, এনসিপি এবং কংগ্রেস – তিন দলের মধ্যে আলোচনা চলছে। আমরা আমাদের পছন্দের আসন তাদের দিয়েছি। শীঘ্রই এই বিষয়ে একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।” তিনি আরও বলেন, “আমরা গোয়ায় এক ছাতার তলায় আসার বিষয়ে আলোচনা করেছি এবং এখনও আলোচনা চলছে। এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। গোয়ার পরিবর্তন দরকার এবং বিজেপি সরকারের পরিবর্তন করা দরকার।”

তৃণমূলের সঙ্গে জোট চায় না কংগ্রেসের একাংশ

কংগ্রেস অবশ্য গোয়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূলের সঙ্গে কোনওরকম রাজনৈতিক বোঝাপড়ার কথা অস্বীকার করেছে। তৃণমূলের সঙ্গে জোট করা প্রসঙ্গে কংগ্রেসের নেতা দীনেশ আর গুন্ডু রাও সোমবার বলেছিলেন, “তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে কোনও জোট বা আলোচনা হচ্ছে না৷ তৃণমূলের তরফে চেষ্টা করা হয়েছিল, তবে কংগ্রেস স্পষ্ট করে দিয়েছে যে গোয়ায় তৃণমূলের যে ভাবে প্রথম দিন প্রচার করেছে, তা কোনওভাবেই ঠিক ছিল না। বিজেপিকে আক্রমণের পরিবর্তে তাদের লক্ষ্য ছিল কংগ্রেসকে আক্রমণ করা।”

উল্লেখ্য, গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লুইজিনহো ফেলেইরো সহ একাধিক কংগ্রেস বিধায়ক ও নেতারা সম্প্রতি তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। সেই ক্ষত যে কংগ্রেস এখনও ভোলেনি, তাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন দীনেশ আর গুন্ডু রাও। তাঁর বক্তব্য, “তারা (তৃণমূল) আমাদের বিধায়কদের ছিনিয়ে নিয়েছে। এখন তারা তাদের আসন দেওয়ার জন্য জোট করতে চাইছে।”

এদিকে গোয়ায় বিধানসভা নির্বাচনের এক মাস আগে থাকতে, নতুন করে ঘুঁটি সাজাতে শুরু করেছে প্রতিটি দল। উল্লেখ্য, সোমবার গোয়া বিজেপির দুই নেতা দল ছেড়েছেন। বিজেপি বিধায়ক প্রবীন জান্তে শাসক দল থেকে পদত্যাগ করার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই গোয়ার বিজেপি সরকারের মন্ত্রী মাইকেল লোবোও পদ্মের সঙ্গে যাবতীয় সম্পর্ক ছিন্ন করেছেন। লোবোদের বক্তব্য ছিল, বিজেপি এখন আর “সাধারণ মানুষের জন্য দল নেই”। এই নিয়ে ভোটের আগে চার বিধায়ক বিজেপি থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। ৪০ আসনের গোয়া বিধানসভায় এখন বিজেপির বিধায়ক সংখ্যা ২৩।

আরও পড়ুন : Mayawati won’t contest in UP Polls: যোগী রাজ্যের ভোটে লড়বেন না প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতী

আরও পড়ুন : UP Minister quits BJP: ভোটের আগে বড় ভাঙন উত্তর প্রদেশে, পদ্ম-জার্সি ছেড়ে অখিলেশের টিমে যোগীর মন্ত্রী

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla