‘ঘরের ছেলে’ ফিরলেও ‘অপরিহার্য’ নন মুকুল

মমতার (Mamata Banerjee) নিজের কথায়, "দল আগে থেকেই শক্তিশালী ছিল। আমরা বিপুল জয়ও পেয়েছি। কিন্তু মুকুল পুরনো ছেলে।''

‘ঘরের ছেলে’ ফিরলেও ‘অপরিহার্য’ নন মুকুল
ফাইল চিত্র

কলকাতা: কয়েকদিনের চাপানউতোর শেষ। শুক্রবারে শেষ হল জল্পনার। ফের তৃণমূলে যোগ দিলেন মুকুল রায় (Mukul Roy) । স্বাগত জানালেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) নিজে। মুকুল জানালেন, পুরনো লোকেদের সঙ্গে দেখা হয়ে ভালো লাগছে, মমতাও তা সমর্থন করে বললেন, ‘ওল্ড ইজ গোল্ড’। এখন প্রশ্ন, সেই পুরনো ঘরে ফিরে মুকুল কোন পদে থাকবেন? কতটাই বা ভার থাকছে তাঁর?

এদিন তৃণমূল ভবনে মুকুল, অভিষেকদের পাশে নিয়ে মমতা জানান পুরনো পদ সামলাতেই পারেন, সমস্যা হবে না। তবে মমতা আর একটি কথা বলেছেন। যা যথেষ্ট ইঙ্গিতবাহী বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। কারণ, মুকুলের আসাতে দল যে আলাদা করে শক্তিশালী হয়েছে বা হবে, এমনটা মোটেই মনে করেন না তৃণমূল নেত্রী। মমতার নিজের কথায়, “দল আগে থেকেই শক্তিশালী ছিল। আমরা বিপুল জয়ও পেয়েছি। কিন্তু মুকুল পুরনো ছেলে।”

‘চাণক্য’ মুকুলই বিজেপিতে যোগ দিয়ে প্রথম তৃণমূলের ভাঙন ধরিয়েছিলেন। দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের এহেন কাজে স্বভাবতই ক্ষুন্ন হয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী। ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের সময় থেকেই সৌমিত্র খাঁ থেকে অনুপম হাজরা, তার পর বিধানসভা ভোটে শীলভদ্র দত্ত থেকে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এমনকি শুভেন্দু অধিকারীর দলবদলে মুকুল বড় ভূমিকা পালন করেছিলেন। গত বছরের ডিসেম্বরে বিজেপি যোগদান মঞ্চে অমিত শাহকে ‘দাদা’ বলে সম্বোধন করে শুভেন্দু বলেছিলেন, ‘মুকুলদা’ই তাঁকে বলেছিলেন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যেতে। কারণ এত অসম্মান নিয়ে আর ওই দল করা যায় না। সেই মুকুলই এদিন যোগ দিলেন তৃণমূলে।

মমতার দাবি, বিজেপিতে মুকুলকে এজেন্সির ভয় দেখানো হচ্ছিল। তাঁর দাবি, বিজেপি নির্দয় দল। তাই বিজেপি করা যায় না। মমতার কথায়, ‘ওল্ড ইজ গোল্ড’ অর্থাৎ পুরনো দলই ভাল, তাই ফিরে এসেছেন মুকুল। তবে মুকুল রায় যে ‘অপরিহার্য’ নন সেটাও যেন হাবেভাবে বুঝিয়ে দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী।

আরও পড়ুন: ভোটে ‘গদ্দারি’ করেননি এক সময়ের ‘গদ্দার’ মুকুল, ঘরে ফেরার তালিকা দীর্ঘ, ইঙ্গিত মমতার 

তবে মমতা গুরুত্ব দিয়েছেন মুকুলের অভিজ্ঞতায়। বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি পদ সামলানো মুকুলের অভিজ্ঞতা কাজে আসবে বলে মনে করছেন তিনি। কিন্তু তিনি আসায় যে দল আলাদা করে শক্তিশালী হল না, সেটাও পরিষ্কার করে দেন। এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। সূত্রের খবর, তৃণমূল থেকে রাজ্যসভায় পাঠানো হতে পারে মুকুল রায়কে।