Newtown Accident: বাসস্ট্যান্ডে ধাক্কা গাড়ির! সাতসকালে মিষ্টি হাবের সামনে ভয়ঙ্কর ঘটনা

Newtown Accident: নিউটাউনের দিক থেকে এয়ারপোর্টের দিকে যাওয়ার সময় মিষ্টি হাবের সামনে এই দুর্ঘটনা ঘটে। গাড়িটিকেও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

Newtown Accident: বাসস্ট্যান্ডে ধাক্কা গাড়ির! সাতসকালে মিষ্টি হাবের সামনে ভয়ঙ্কর ঘটনা
নিউটাউনে পথ দুর্ঘটনা (নিজস্ব চিত্র)

কলকাতা: ফের শহরে দুর্ঘটনা। নিউটাউন মিষ্টি হাবের সামনে বাস স্ট্যান্ডে কন্টেনারের ধাক্কা। দ্রুতগতিতে এসে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস স্ট্যান্ডে ধাক্কা মেরে উল্টে যায় কন্টেনারটি।

তবে ভোরে রাস্তায় লোকসংখ্যা কম থাকায় বড়সড় দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা মিলেছে। এই দুর্ঘটনায় কেউ আহত হয়নি। গাড়ির চালককে আটক করেছে ইকোপার্ক থানার পুলিশ। নিউটাউনের দিক থেকে এয়ারপোর্টের দিকে যাওয়ার সময় মিষ্টি হাবের সামনে এই দুর্ঘটনা ঘটে। গাড়িটিকেও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। নিউটাউনের সিসিটিভি ফুটেজ স্পিডোমিটার দেখে পুলিশ জানতে চাইছে গাড়িটির গতি কত ছিল, কেন এই রকম বেপরোয়া গতিতে যাচ্ছিল গাড়িটি, সমস্ত বিষয়ে তদন্ত করছে পুলিশ।

চিংড়িহাটার রাস্তাও মারাত্মক দুর্ঘটনাপ্রবণ ছিল। গত মাসেই মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটে চিংড়িহাটা এলাকায়। এক যুবক ও এক তরুণী সাইন্সসিটির দিক থেকে বাইকে চেপে চিংড়িঘাটার দিকে যাচ্ছিলেন। রাত আড়াইটে নাগাদ ঘটনাটি ঘটে। মেট্রোপলিটন লেনের কাছে রাস্তার ডিভাইডারে সজোরে ধাক্কা মারে বাইকটি। সঙ্গে সঙ্গেই গাড়ি থেকে ছিটকে পড়ে লোহার গার্ডরেলে সজোরে ধাক্কা মারেন যুবক। দুর্ঘটনায় শরীর থেকে মাথা সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। উল্টোদিকের লেনে গিয়ে পড়েন বাইক চালক। বাইকের পেছনের সিটে থাকা তরুণী গুরুতর জখম অবস্থায় এখনও বেসরকারি হাসপাতালে চিকিত্সাধীন। যুবকের দেহ ও বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া মুণ্ড উদ্ধার করে নিয়ে যায় পুলিশ।

গত কয়েকমাসে লাগাতার দুর্ঘটনা ঘটছে ওই এলাকায়। কারণ সেই বেপরোয়া গতি। গত মাসের শেষে গাড়ি উল্টে মারাত্মক জখম হন জখম ২। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ডিভাইডার ধাক্কা মেরে উল্টে যায় এক গাড়ি।গাড়িতে দুই তরুণী ও দুই যুবক ছিলেন। দুর্ঘটনায় আহত হন প্রত্যেকেই।

পুলিশ সূত্রে খবর, প্রাইভেট গাড়িটি নিকোপার্কের দিক থেকে চিংড়িহাটার দিকে যাচ্ছিল। গাড়ির গতিবেগ স্বাভাবিকের থেকে বেশি ছিল। ওই রাস্তায় নবদিগন্ত পার্কের সামনে একটি গাড়িকে পাশ কাটাতে গিয়েই দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ডিভাইডারে ধাক্কা মেরে উল্টে যায় গাড়িটি।

বিষয়টি নিয়ে এখন কড়া প্রশাসন।

কলকাতা পুলিশের আওতায় থাকা রাস্তায় একাধিক স্পিড লিমিটার রয়েছে। তাই চাইলেও কেউ গতির খেলায় মাততে পারে না। এর ফলেই নিয়মিত এই রাস্তা ধরার পরই অধিকাংশ গাড়ি বেপরোয়া হয়ে ওঠে। সেই গতিরই মাশুল গুনতে হচ্ছে চালকদের।

মুখ্যমন্ত্রীর ধমকের পর চিংড়িঘাটায় বাড়ে পুলিশি কড়াকড়ি। চিংড়িঘাটায় বাড়ানো হচ্ছে পুলিশের সংখ্যা। বাড়ছে স্পিড রাডার গানের সংখ্যা। বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চললেই স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে কেস চলে যাবে মালিকের কাছে। নজরে থাকছে বাইক। রাতে প্রয়োজন মতো গার্ডরেল দেওয়া হবে। দ্রুত চালু হবে ফুট ওভারব্রিজ।রাতে চিংড়িঘাটায় থাকবেন সার্জেন্ট, চলবে ধড়পাকড়। ব্যারিকেডের সঙ্গে থাকবে রেড ব্লিংকার। গাড়ির আলো পড়লেই ব্লিংকারে জ্বলবে, চিহ্নিত করা যাবে ব্যারিকেড। রাতে রাস্তার পরিধি চিহ্নিত করতে বসবে রেইজড পেভমেন্ট মার্কার বা RPM। বাইপাসে নজরদারি চলবে মেট্রোপলিটন থেকে সল্টলেক স্টেডিয়াম পর্যন্ত।

আরও পড়ুন: Weather Update: ফের অনুভূত হচ্ছে শিরশির ভাব! আগামী ২-৩ দিনের মধ্যে বিশেষ কী পরিবর্তন আবহাওয়ার?

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla