Coal Mine: ছাই দিয়ে ভরাট হচ্ছে খনি, বাড়ছে ত্বকের সমস্যা, দূষণের জেরে বাড়ছে বিক্ষোভ

TV9 Bangla Digital

TV9 Bangla Digital | Edited By: অবন্তিকা প্রামাণিক

Updated on: Jan 24, 2023 | 7:53 PM

Coal Mine: বিক্ষোভকারীদের মধ্যে কেন্দা গ্রামবাসী নিমাই দাঁ অভিযোগ করে বলেন, "এই ছাই হাওয়াতে উড়ে এসে ঘরে এমনকী খাবারে পড়ছে।

Coal Mine: ছাই দিয়ে ভরাট হচ্ছে খনি, বাড়ছে ত্বকের সমস্যা, দূষণের  জেরে বাড়ছে বিক্ষোভ
বিক্ষোভ এলাকাবাসীদের (নিজস্ব চিত্র)

আসানসোল: মাটি নয়, খোলামুখ খনি ভরাট হচ্ছে ফ্লাইঅ্যাশ (তাপবিদ্যুত কারখানার ছাই) দিয়ে। যার জেরে লাগাতার বাড়ছে দূষণ। ফলত জেরবার স্থানীয় বাসিন্দারা। ইতিমধ্যেই পথে নেমেছেন এলাকাবাসী। পশ্চিম বর্ধমানে জামুড়িয়া থানার অন্তর্গত ইসিএলের (ECL) কেন্দা এলাকা। অভিযোগ, উঠছে কারখানার দূষিত ছাই এনে ফেলা হচ্ছে ইসিএলের পরিত্যক্ত খোলামুখ খনিতে। কয়লা উত্তোলনের পর খনির ফাঁকা অংশ ভরাট করা হচ্ছে। তিন মাস ধরে এই কাজ চলছে। ইসিএল কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় নেতাদের একাংশের মদতে এই দূষিত ছাই ভরাট হচ্ছে বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, এই খোলা মুখ খনি তৈরি হওয়ার সময় ইসিএল কর্তৃপক্ষ ভূরি-ভূরি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। সেই প্রতিশ্রুতি রাখতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। গত তিনমাস ধরে তাপবিদ্যুৎ ও আয়রন কারখানা পরিত্যক্ত ছাই ভরাট করতে থাকায় এলাকায় দূষণ বাড়ছে। বহু মানুষের ত্বকের সমস্যা দেখা দিয়েছে। স্থানীয় নেতা ও প্রশাসনকে এই বিষয়ে বলেও কোনও লাভ হয়নি বলে বিক্ষোভকারীদের দাবি। অবিলম্বে এই ছাই ভরাট করা বন্ধ করতে হবে।

বিক্ষোভকারীদের মধ্যে কেন্দা গ্রামবাসী নিমাই দাঁ অভিযোগ করে বলেন, “এই ছাই হাওয়াতে উড়ে এসে ঘরে এমনকী খাবারে পড়ছে। পুকুরেও পড়ছে। যার ফলে গ্রামের মহিলাদের স্নান করতে প্রচুর সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। এলাকায় চামড়ার রোগ দেখা দিচ্ছে।” নিমাইবাবু অভিযোগ করেন কিছু স্থানীয় নেতাকে টাকা পয়সা দিয়ে গায়ের জোরে ইসিএল কর্তৃপক্ষ এই কাজ করছে। নিমাইবাবু জানান, “মাটি দিয়ে ভরাটি করলে তাঁদের কোনও অসুবিধা নেই। এই বিষয়ে ইসিএল কর্তৃপক্ষের দাবি ঠিকা সংস্থা খনি ভরাটের কাজ করছে। অভিযোগ খতিয়ে দেখতে সংস্থার সঙ্গে কথা বলা হবে।”

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla