West Medinipur: নষ্ট হচ্ছে পরিবেশ! লাঠি হাতে একজোট হয়ে চোলাই মদের কারবারিদের পুলিশের হাতে তুলে দিলেন মহিলারা

Distilled liquor: এমনকী চোলাই মদের হোম ডেলিভারির ব্যবস্থাও নাকি ছিল।

West Medinipur: নষ্ট হচ্ছে পরিবেশ! লাঠি হাতে একজোট হয়ে চোলাই মদের কারবারিদের পুলিশের হাতে তুলে দিলেন মহিলারা
চোলাই মদের কারবার বন্ধে উদ্যোগী মহিলারা (নিজস্ব চিত্র)

পশ্চিম মেদিনীপুর: রাত যত বেড়েছে। ততই বেড়েছে চোলাই মদের রমরমা। গ্রামের এখানে-ওখানে অন্ধকার জায়গায় কিংবা মাঠে-ঘাটে রমরমিয়ে চলছিল চোলাইয়ের কারবার। কিছুতেই যেন ঠেকানো যাচ্ছিল না। এমনকী চোলাই মদের হোম ডেলিভারির ব্যবস্থাও নাকি ছিল। পুলিশ-প্রশাসনের তরফেও নেওয়া হয়নি কোনও পদক্ষেপ এমনটাই অভিযোগ। এরপরই হাল ধরলেন গ্রামের মহিলারা। লাঠি হাতে কড়া ভাবে রুখে দাঁড়ালেন তাঁরা।

উত্তর খড়গপুরের মনসুকা ১ নং গ্রাম পঞ্চায়েত। সেখানে চোলাই মদের কারবারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন গ্রামবাসীরা। অভিযোগ উঠছে নষ্ট হচ্ছে গ্রামের সুস্থ পরিবেশ। কম বয়সী ছেলেরা নেশা করছে। নেশাগ্রস্ত হয়ে বাড়ি ফিরছে। তাঁদের অভিযোগ নতুন প্রজন্ম প্রায় ধ্বংস হতে শুরু করেছে। এখানেই শেষ নয়, বেশির ভাগ বাড়ির পুরুষমানুষরা বাড়িতে নেশা করে ফিরছেন। এরপরই শুরু হচ্ছে বাড়ির মহিলাদের উপর অত্যাচার। প্রায় প্রতিদিনই মদ্যপ স্বামীর হাতে মার খেতে হচ্ছে বাড়ির মেয়ে-বউদের।

এই সমস্যা ঠেকাতে অবশেষে গ্রামের মহিলারাই কড়া হাতে নিলেন ব্য়বস্থা। সোমবার রাতে সকল মহিলা একজোট হয়ে ফিডিং সেন্টার বেরার ঘাট সংলগ্ন চোলাই মদের কারবারিদের ঘিরে ধরেন, আটক করে রাখেন এবং শেষে পুলিশের হাতে তুলে দেন।

গ্রামের এক মহিলা তনুশ্রী সামন্ত জানান,”গ্রামে প্রতিদিন বেড়েই চলেছে চোলাই মদের কারবার। কিছুতেই ঠেকানো যাচ্ছিল না। তাই আমাদের হাল ধরতে হল। গ্রামের সুস্থ পরিবেশ নষ্ট হয়ে যাচ্ছিল। ছোটো-ছোটো ছেলেমেয়েদের মদের প্রতি আসক্তি বাড়ছিল। তাই লাঠি হাতে আমরাই প্রতিরোধ গড়ে তুললাম।”

এদিকে, গত কয়েকদিন আগেই মালবাজারে অবৈধ চোলাই মদের কারখানা রক্ষা করতে তৃণমূলের (TMC) ঝান্ডা হাতে প্রতিরোধ! এমনই ঘটনা ঘটল মালবাজারে। পুজোর (Durga Pujo) আগে অবৈধ চোলাই মদ (distilled liquor) তৈরির কারখানা বা ভাটিগুলোর বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে গিয়ে তৃণমূলের (TMC) পতাকা হাতে একদল কর্মী ও সমর্থকদের বাধার মুখে পড়তে হল আবগারি দফতরের (Excise Department) আধিকারিক ও কর্মীদের।

গত দুদিন ধরে মাল মহকুমার সাওগাঁও বস্তী, এলেনবাড়ি, দিলুবস্তি, বারোঘড়িয়া, ষোলোঘড়িয়া ও মেচবস্তি এলাকায় বেআইনি চোলাই মদ তৈরির কারখানাগুলো ভেঙে দিতে বড়ো মাপের অভিযান চালানো হয় আবগারি দফতরের তরফে। আবগারি বিভাগের জলপাইগুড়ি ডিভিশনের জয়েন্ট কমিশনার কামার জেলিস, মাল রেঞ্জের ডেপুটি এক্সাইজ কালেক্টর সম্বিত প্রধান প্রমুখের নেতৃত্বে মাল থানার পুলিশের একটি দলকে সঙ্গী করে এই অভিযান চলে। তার পর এদিন এই কাণ্ড। অভিযোগ, তৃণমূলের পতাকা নিয়ে কয়েকজন সরকারি আধিকারিকদের বাধাদান করেন। অবৈধ চোলাইয়ের ঠেক ভাঙতে দিতে চাননি তাঁরা!

জানা গিয়েছে, অভিযান চলাকালীন এদিন ক্রান্তি ব্লকের রাজাডাঙা গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বারোঘড়িয়া,ষোলোঘড়িয়া ও মেচবস্তি এলাকায় স্থানীয় কয়েকজন পুরুষ ও মহিলা একত্রিত হয়ে তৃণমূলের পতাকা হাতে নিয়ে আবগারি দফতরের আধিকারিকদের অভিযান চালাতে বাধা দেন। তাঁদের ঘিরে বিক্ষোভ প্রদর্শনও করা হয় বলে আবগারি দফতর সূত্রে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: Amit Shah: পরপর নিরপরাধ মানুষের হত্যা ভাবাচ্ছে কেন্দ্রকে! গোয়েন্দা কর্তাদের সঙ্গে কাশ্মীর নিয়ে আলোচনা শাহের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla