দীপঙ্করকে খাওয়া চুমুকেই নিজের ‘প্রথম চুম্বন’ বলে বিশ্বাস করেন ‘মিশকা’ অহনা

Ahona Dutta On Rose Day: বর্তমানে 'অনুরাগের ছোঁয়া' ধারাবাহিকে খলনায়িকা মিশকার চরিত্রে অভিনয় করছেন অহনা। এটাই তাঁর প্রথম সিরিয়াল। ধারাবাহিকের মেক-আপ আর্টিস্ট দীপঙ্কর রায়ের সঙ্গে 'লিভ ইন' সম্পর্কে আছেন অহনা। ১৪ বছর বয়সের ব্যবধান তাঁদের। অহনার বর্তমান বয়স ২০ বছর। দীপঙ্করের ৩৪। আগে একটি বিয়েও করেছিলেন দীপঙ্কর। 'ডিভোর্সি' পুরুষের সঙ্গে সম্পর্ক করার বিষয়টি কিছুতেই নাকি মন থেকে মেনে নিতে পারেননি অহনার মা। তাঁদের মধ্যে তিক্ততাও নাকি সেই কারণেই। যদিও সেই সব কিছুকে উপেক্ষা করে দীপঙ্করের সঙ্গেই জীবন কাটাচ্ছেন অহনা। তাঁর চোখে অনেক স্বপ্ন।

দীপঙ্করকে খাওয়া চুমুকেই নিজের ‘প্রথম চুম্বন’ বলে বিশ্বাস করেন 'মিশকা' অহনা
অহনা দত্ত।
Follow Us:
| Updated on: Feb 13, 2024 | 9:49 AM

আজ কিস ডে। আজই বাংলা সিরিয়ালের দুঁদে ভিলেন অহনা দত্ত TV9 বাংলার সঙ্গে শেয়ার করলেন তাঁর প্রথম চুমুর অভিজ্ঞতা। সাধারণত চুমুর মতো একান্ত ব্য়ক্তিগত (এবং সেই সঙ্গে গোপন) বিষয়কে লুকিয়েই রাখতে চায় মানুষ। কিন্তু অহনার মধ্যে তেমন ছুঁৎমার্গ নেই। তিনি অনেকটা ‘বেশ করেছি, প্রেম করেছি’ টাইপ! ফলে প্রথম চুমু নিয়েও কথা বলতে কুণ্ঠিত হননি অভিনেত্রী।

বর্তমানে ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ ধারাবাহিকে খলনায়িকা মিশকার চরিত্রে অভিনয় করছেন অহনা। এটাই তাঁর প্রথম সিরিয়াল। ধারাবাহিকের মেক-আপ আর্টিস্ট দীপঙ্কর রায়ের সঙ্গে ‘লিভ ইন’ সম্পর্কে আছেন অহনা। ১৪ বছর বয়সের ব্যবধান তাঁদের। অহনার বর্তমান বয়স ২০ বছর। দীপঙ্করের ৩৪। আগে একটি বিয়েও করেছিলেন দীপঙ্কর। ‘ডিভোর্সি’ পুরুষের সঙ্গে সম্পর্ক করার বিষয়টি কিছুতেই নাকি মন থেকে মেনে নিতে পারেননি অহনার মা। তাঁদের মধ্যে তিক্ততাও নাকি সেই কারণেই। যদিও সেই সব কিছুকে উপেক্ষা করে দীপঙ্করের সঙ্গেই জীবন কাটাচ্ছেন অহনা। তাঁর চোখে অনেক স্বপ্ন।

“পেটে প্রজাপতি খেলে বেড়ায় আমার,” দীপঙ্করকে প্রথম চুমু খাওয়ার বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে TV9 বাংলাকে অকপটে একথাই বললেন অহনা। তবে দীপঙ্করই প্রথম নন; তার আগেও সম্পর্কে জড়িয়ে গিয়েছেন অহনা। সেই প্রেমিককেও চুমু খেয়েছেন। কিন্তু দীপঙ্করকে খাওয়া চুমুকেই নিজের ‘প্রেমের চুম্বন’ বলে বিশ্বাস করেন মিশকা।

এই খবরটিও পড়ুন

অহনা ও তাঁর চুমু:

“গত বছর বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গিয়েছিলাম সমুদ্রে। সেই সময় আমার আর দীপঙ্করের একে-অপরের প্রতি আকর্ষণ ছিল, কিন্তু প্রেমের জন্ম হয়নি। আমাদের সম্পর্কও তৈরি হয়নি। সমুদ্র সৈকতে বসেছিলাম দু’জনেই। সামনেই অস্ত যাচ্ছে সূর্য। পড়ন্ত বিকেলে সমুদ্রের ঢেউ আছড়ে পড়ছে সৈকতে। আমার আর দীপঙ্করে মধ্য়ে যেন শিহরণ খেলে গেল। সেই প্রথম আমার ঠোঁট ওর ঠোঁট ছুঁয়ে দেখল…” অহনার কথা মনে পড়িয়ে দেয় সুজাতা গঙ্গোপাধ্যায়ের চর্চিত কবিতা ‘চুম্বন’-এর লাইনগুলো: “তোমার ঠোঁট আমার ঠোঁট ছুঁলো/যদিও এ প্রথমবার নয়, চুম্বন তো আগেও বহুবার/এবার ঠোঁটে মিলেছে আশ্রয়…”

তারপর কেটে যায় সেই দিনটা। পরদিন থেকে শুরু হয় অহনার বিড়ম্বনা। অনেক লোকের মধ্যে থেকেও নিজেকে হারিয়ে ফেলেন অভিনেত্রী। কিশোরীর মতো লজ্জায় লাল হতে থাকে তাঁর চিকন গাল। অহনা বলেন, “পরদিন যা হল! অত লোকের মাঝে সারাটাদিন ব্লাশ (blush) করলাম। দীপঙ্করের চোখের দিকে তাকাতে পারেনি। সেই চুমুতে জাদু ছিল। আর আমার পেটে প্রজাপতি। এখনও দীপঙ্করের ঠোঁটে আমার ঠোঁট রাখলে প্রজাপতিরা খেলা করতে শুরু করে কিলবিল করে…”