Hydration is Key: তাপপ্রবাহের মাঝে হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে কত লিটার জল খাবেন?

Summer Health Tips: তাপপ্রবাহের জেরে হিট স্ট্রোক, সানস্ট্রোকের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। তাছাড়া শারীরিক দুর্বলতা, গরমে অস্বস্তি রয়েছেই। এই অবস্থায় শরীরকে সুস্থ রাখতে হালকা খাওয়া-দাওয়া করা, মরশুমি ফল খাওয়া ভীষণ জরুরি। আর তার থেকেও জরুরি হল শরীরকে হাইড্রেটেড রাখা।

Hydration is Key: তাপপ্রবাহের মাঝে হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে কত লিটার জল খাবেন?
Follow Us:
| Updated on: Apr 04, 2024 | 8:15 AM

উত্তরবঙ্গে ঝড়-বৃষ্টি হলেও, দক্ষিণ পুড়ছে গরমে। সপ্তাহের শেষে তাপপ্রবাহের কবলে পড়তে পারে দক্ষিণের ৯ জেলা। বেশ কিছু জেলার তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রিও ছুঁয়ে ফেলতে পারে। কলকাতার পারদও ৪০-এর আশেপাশে ঘুরছে। এখনও বৈশাখ মাস আসেনি। তার আগে থেকেই তাপপ্রবাহের সতর্কবার্তা। এরপর আরও যে গরম বাড়বে, সেটা বুঝতেই পারছে বঙ্গবাসী। এই অবস্থায় শরীরকে সুস্থ রাখাই হল আসল চ্যালেঞ্জ।

তাপপ্রবাহের জেরে হিট স্ট্রোক, সানস্ট্রোকের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। তাছাড়া শারীরিক দুর্বলতা, গরমে অস্বস্তি রয়েছেই। এই অবস্থায় শরীরকে সুস্থ রাখতে হালকা খাওয়া-দাওয়া করা, মরশুমি ফল খাওয়া ভীষণ জরুরি। আর তার থেকেও জরুরি হল শরীরকে হাইড্রেটেড রাখা। Hydration is key—এই কথাটা হয়তো অনেকেই শুনেছেন। কিন্তু এই গরমে শরীরকে হাইড্রেট রাখবেন কীভাবে, তা কি জানেন?

গরমে শরীরকে হাইড্রেটেড রাখবেন যে উপায়ে—

এই খবরটিও পড়ুন

১) দিনে ৩-৪ লিটার জল পান করতেই হবে। কারও ঘাম বেশি হয়, আবার কারও কম। যদিও এই গরমে কমবেশি ঘাম সকলেরই হচ্ছে। ঘামের মাধ্যমে শরীর থেকে জলও বেরোচ্ছে। এই অতিরিক্ত গরমের মোকাবিলা করার জন্য আপনাকে এই ৩-৪ লিটারের সঙ্গে আরও ১-১.৫ লিটার জল বেশি খেতে হবে।

২) তেষ্টা না পেলেও জল খেতে হবে। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে বসে থাকলে জল পিপাসা কম পায়। কিন্তু সেটা করলে চলবে না। মস্তিষ্কে জলের পিপাসা সিগন্যাল পাঠানোর আগেই আপনাকে দেহে তরলের ঘাটতি পূরণ করতে হবে। আর সেটা জল খেয়েই করতে হবে।

৩) শুধু জল খেলেই আপনি গরমে শরীরকে সুস্থ রাখতে পারবেন। কিন্তু তাতেও হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি কমছে না। ঘামের মাধ্যমে দেহ থেকে প্রয়োজনীয় খনিজ পদার্থ বেরিয়ে যায়। তাই রোদের মধ্যে ৫ মিনিট হাঁটলেই আপনি ক্লান্ত হয়ে পড়েন। এক্ষেত্রে শরীরে দরকার পড়ে সোডিয়াম, পটাশিয়ামের মতো মিনারেলের। তাই সাধারণ জল খাওয়ার পাশাপাশি ডাবের জল, নুন-চিনির জল, ওআরএস-এর জল, তাজা ফলের রস খান।

৪) রাস্তায় বেরোলে সঙ্গে জলের বোতল নিতে ভুলবেন না। এরপরও গলা ভেজানোর জন্য অনেকেই কোল্ড ড্রিংক্স কিনে খেয়ে ফেলেন। এই ভুল করবেন না। কোল্ড ড্রিংক্সে প্রচুর পরিমাণে চিনি, সোডা ও প্রিজারভেটিভ থাকে। এগুলো শরীরে তাৎক্ষণিক এনার্জি জোগালেও শরীরকে হাইড্রেট করে না। তাই রাস্তায় বেরোলে কোল্ড ড্রিংক্স খাওয়ার বদলে ডাবের জল, তাজা ফলের রস, লেবুর জল বা রস খান।