Milind Soman: ডায়েটিং না করেই সুস্থ থাকা যায়! সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিলেন ফিটনেস ফ্রিক মিলিন্দ

মিলিন্দের এই লাইনকে যদি ব্যাখ্যা করা যায়, তাহলে জেনে রাখা ভাল যে, ভারতীয় থালি হচ্ছে সবচেয়ে স্বাস্থ্যকর। ভারতীয় থালিতে সেই সব উপাদান রয়েছে যা আমাদের পুষ্টির চাহিদা মেটাতে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সাহায্য করে।

Milind Soman: ডায়েটিং না করেই সুস্থ থাকা যায়! সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিলেন ফিটনেস ফ্রিক মিলিন্দ
মিলিন্দ সোমন

যদি ফিটনেসের প্রকৃত অর্থে কোনও মুখ থেকে থাকে, সেখানে অবশ্যই মিলিন্দ সোমনের নাম সবার ওপরেই থাকবে। তাঁর ফিট ও টোনড বডি দেখে এখনও অনেকেই ক্রাশ খায়। এই বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই যে তিনি ফিটনেস ফ্রিক। স্বাস্থ্যকর খাবারের সঙ্গে নিয়মিত ওয়ার্কআউটও করেন তিনি। কিন্তু তাঁর এই ফিটনেস ফ্রিকের রহস্য জানতে গেলে এক ঝলক দেখতে হবে তাঁর ইনস্টা প্রোফাইলের দিকে।

মিলিন্দ কম-বেশি ইনস্টাগ্রামে বিভিন্ন পোস্ট শেয়ার করেন। সেখানে তাঁর স্বাস্থ্য সচেতনতা, ফিট থাকার কথাও উল্লেখ থাকে। এবারও এর ব্যতিক্রম হয়নি যদিও। গতমাসেই তিনি ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন গুজরাতে। সম্প্রতি মিলিন্দ তাঁর স্ত্রী অঙ্কিতার সঙ্গে তাঁদের গুজরাত বেড়াতে যাওয়ার একটি ছবি শেয়ার করেন। ওই ছবিতে দেখা যাচ্ছে গুজরাটি পোশাকে গুজরাটি থালি হাতে নিয়ে বসে আছেন দুজনে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Milind Usha Soman (@milindrunning)

ছবিটি শেয়ার করার পাশাপাশি মিলিন্দ লিখেছেন, “থালি ইন সৌরাষ্ট্র! সহজ ভাষায়, আমার কাছে, দেশের যে কোনও জায়গা থেকে ঐতিহ্যবাহী ভারতীয় খাবার, বিশ্বের সবচেয়ে স্বাস্থ্যকর, আবারও সংযমই মূল চাবিকাঠি!”

মিলিন্দের এই লাইনকে যদি ব্যাখ্যা করা যায়, তাহলে জেনে রাখা ভাল যে, ভারতীয় থালি হচ্ছে সবচেয়ে স্বাস্থ্যকর। ভারতীয় থালিতে সেই সব উপাদান রয়েছে যা আমাদের পুষ্টির চাহিদা মেটাতে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সাহায্য করে। ভারতীয় থালিতে ছয়টি স্বাদ থাকে, তা পুষ্টিকর। মিলিন্দের পোস্ট করা ছবিতেও এই ছয় স্বাদ ফুটে উঠেছে।

তার সঙ্গে মিলিন্দ বলেছেন ‘সংযমই মূল চাবিকাঠি’, অর্থাৎ পোর্শা‌ন কন্ট্রোল। নির্দিষ্ট সময় অন্তর নির্দিষ্ট পরিমাণ খাবার খাওয়া উচিত। এর আগেও মিলিন্দ বলেছিলেন যে “যখন প্রসঙ্গ খাবারের আসে, তখন আমি মনে করি যে, কী-এর থেকে ‘কখন’ এবং ‘কতটা’ বেশি জরুরি।”

তবে এই পোস্টে তিনি আরও লিখেছেন যে, “আমি কখনও ডায়েট করিনি, খাবারের ক্ষেত্রে কখনও বিধিনিষেধ ছিল না। আমি পরিশোধিত, প্রক্রিয়াজাত এবং প্যাকেজড পণ্যগুলি খাই না। স্বাস্থ্যকর শরীর এবং স্বাস্থ্যকর মন সমস্ত প্রাকৃতিক, সহজ, বাড়িতে রান্না করা খাবার, স্বাস্থ্যকর খাবার থেকে আসে”। সুতরাং খাবারের ব্যাপারে যেমন মিলিন্দ সচেতন, তেমনই বজায় রাখেন তাঁর স্বাস্থ্য ও ফিটনেস। সুতরাং আপনি চাইলে অনুপ্রেরণা নিতে পারেন মিলিন্দ সোমানের থেকে!

আরও পড়ুন: অ্যাসপিরিন গ্রহণে বাড়তে পারে হৃদরোগের ঝুঁকি! দাবি জানাচ্ছে গবেষণা

আরও পড়ুন: দাদের সমস্যায় নাজেহাল হয়ে উঠেছেন? এই ঘরোয়া পদ্ধতিগুলো মেনে চললে দাদের নিরাময় সম্ভব…

আরও পড়ুন: বিশেষজ্ঞরা জানালেন এই ফল খেলে ক্যানসারের সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যায়, জেনে নিন অন্যান্য উপকারিতাও…

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla