Abhishek Banerjee in Agartala: অভিষেক নামার আগেই বিমানবন্দরে বোমাতঙ্ক, ‘এ সব করে আর কত দিন?’ পাল্টা খোঁচা

Abhishek Banerjee in Agartala: বোমাতঙ্কের খবর প্রকাশ্যে আসতেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, "এসব করে আর কতদিন আটকাবে?"

Abhishek Banerjee in Agartala: অভিষেক নামার আগেই বিমানবন্দরে বোমাতঙ্ক, 'এ সব করে আর কত দিন?' পাল্টা খোঁচা
আগরতলায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (নিজস্ব চিত্র)

ত্রিপুরা: রবিবার দিনভরের পর সোমবার সকাল থেকেই তপ্ত ত্রিপুরার মাটি। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee) বিমানবন্দরে নামার আগেই ছড়াল বোমাতঙ্ক। আগরতলার বিমানবন্দরে পার্কিং লটে তৃণমূলের সর্ব ভারতীয় সভাপতির গাড়ির পাশেই পরিত্যক্ত ব্যাগ ঘিরে বোমাতঙ্ক ছড়াল। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বম্ব স্কোয়াড। বিমানবন্দরে যায় সিআইএসএফও। বাড়ানো হয় পুুলিশি নিরাপত্তা।

এদিনের বোমাতঙ্কের খবর প্রকাশ্যে আসতেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “এসব করে আর কতদিন আটকাবে?” অভিষেকের সঙ্গেই এদিন ছিলেন ব্রাত্য বসুও। তিনি বলেন, “ষড়যন্ত্র করে ত্রিপুরায় তৃণমূলকে আটকাতে এসব করা হচ্ছে। ইচ্ছা করে ব্যাগটা এখানে রাখা হয়েছে। যাতে দলের কর্মীরা একত্রিত হয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে স্বাগত জানাতে না পারেন। আমরা যাতে এক হতে না পারি, সেই চেষ্টাই করে যাচ্ছে ওরা।”

এদিন আগরতলার বিমানবন্দরে নামতেই ক্ষোভ উগরে দেন অভিষেক। তিনি বলেন, “আজকেও আমার সভার অনুমতি দেয়নি।রোড শো করার কথা ছিল। ১৯ তারিখ অ্যাপ্লাই করেছিলাম। কালকে দুপুরের পর এস়ডিপিও লিখিতভাবে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন আপনারা স্ট্রিট কর্নার মিটিং করুন।  আমরা মাথা নত করব না।”

উল্লেখ্য, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যাকে পথ সভা করার অনুমতি দেয় ত্রিপুরা পুলিশ। পুরভোটের আগে আজ ত্রিপুরায় গিয়ে র‍্যালি করতে চেয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ অভিযেক। সেই অনুমতি মেলেনি। কোভিডের কারণেই পুলিশ মিছিলে অনুমতি দেয়নি বলে খবর।

অভিষেকের প্রশ্ন, “এত কম সময়ের নোটিসে কীভাবে স্ট্রিট কর্নার করা সম্ভব? লোককে কীভাবে জানাব? মঞ্চ বাঁধতেও তো চার ঘণ্টা সময় লাগে। ২ ঘণ্টার ব্যবধানে কীভাবে স্ট্রিট কর্নার করা সম্ভব?”

ত্রিপুরায় সায়নী ঘোষের গ্রেফতারি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে বিরোধীদের নিরাপত্তা রাজ্য প্রশাসনকে নিশ্চিত করতে হবে। সেখানে মহিলাদের ওপর আক্রমণ করা হচ্ছে। আমি পুলিশকে দোষারোপ করি না। তাদেরও ওপরতলার চাপ রয়েছে। সায়নীকে কেন গ্রেফতার করা হল? একটা স্লোগান দিয়েছিলেন তাই?”

প্রসঙ্গত, রবিবার দিনভর উত্তপ্ত ছিল আগরতলা। তৃণমূলের যুব নেত্রী সায়নী ঘোষকে (Sayoni Ghosh) রবিবার বিকেলে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত খুনের চেষ্টার মামলা হয়েছে। সারাদিন ধরেই দফায় দফায় উত্তেজনা তৈরি হয়েছে আগরতলায়। সায়নীর পাশে দাঁড়াতে আজই ত্রিপুরা যান দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee)। তবে সেই আঁচ পৌঁছয় দিল্লিতেও।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করতে সময় চেয়েছিল তৃণমূল। তিনি সময় না দেওয়ায় বিক্ষোভ শুরু করেন সাংসদরা। নর্থ ব্লকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অফিসের ঠিক সামনে ধর্নায় বসেছেন তাঁরা। ত্রিপুরার আইন- শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলতেই অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিল তৃণমূল। নির্ধারিত সময়ের পরও সাক্ষাতের সময় না মেলায় ধর্নায় বসে তৃণমূল। রয়েছেন সৌগত রায়, শান্তনু সেন, দোলা সেন, কল্যান বন্দ্যোপাধ্যায়, অপরূপা পোদ্দার সহ ১৬ জন সাংসদ।

আরও পড়ুন: TMC in Delhi: ‘অমিত শাহ জবাব চাই’, নর্থ ব্লকের সামনে ধর্নায় বসলেন তৃণমূল সাংসদরা

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla