Babul Supriyo: ইউটার্ন! ‘অরাজনৈতিক’ সাংসদ থাকার সিদ্ধান্ত বাবুলের

জেপি নাড্ডার অনুরোধে সাংসদ পদ ছাড়ছেন না। 'অরাজনৈতিক' সাংসদ হয়েই মেয়াদ পুরো করবেন তিনি।

Babul Supriyo: ইউটার্ন! 'অরাজনৈতিক' সাংসদ থাকার সিদ্ধান্ত বাবুলের
ছবি-PTI

নয়া দিল্লি: বাবুল সুপ্রিয় রাজনীতি ছাড়ছেন। কিন্তু জেপি নাড্ডার অনুরোধে সাংসদ পদ ছাড়ছেন না। ‘অরাজনৈতিক’ সাংসদ হয়েই মেয়াদ পুরো করবেন তিনি। সোমবার দিল্লিতে বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতির সঙ্গে বৈঠকের পর এমনটাই জানালেন আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। রাজধানীতে এ দিন সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, “রাজনীতি ছাড়ার অনুভূতিটা আমার ভোটের আগে থেকেই আসছিল। আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং নাড্ডাজিকে ধন্যবাদ জানাই আমায় এত ভালবাসা দেওয়ার জন্য। কিন্তু ওঁদের একটা কথা শোনা উচিত বলে আমার মনে হল। তাই আমি সিদ্ধান্ত বদল করেছি।”

বাবুল জানালেন, “সাংসদ হিসেবে যেই সাংবিধানিক পদ আমার রয়েছে, সেই কাজ আমি চালিয়ে যাব। কিন্তু কোনও রাজনৈতিক কর্মসূচিতে আপনারা আমায় দেখতে পাবেন না। রাজনীতি ছাড়ার সিদ্ধান্ত থেকে আমি দুর্ভাগ্যবশত সরে আসতে পারছি না। কারণ আমি ঠিক করে নিয়েছি। মুম্বই বা দিল্লিতেও সাংসদের কোনও ফ্ল্যাট আমি নেব না। যে ঘর আছে সেটাও তাড়াতাড়ি ছেড়ে দেব। সাংসদ হিসেবে যা নিরাপত্তা আমার রয়েছে, সেটাও আমি ছেড়ে দিচ্ছি। কিন্তু সাংবিধানিক যে দায়িত্ব আমি নিয়েছি, সেটা পালন এবং পূরণ করব। এতে কোনও রাজনীতির ছোঁয়া থাকবে না। রাজনীতি থেকে আমি নিজেকে দূরে রাখব। ভেবে নিন রাজনীতি থেকে আমি সন্ন্যাস নিচ্ছি। আমি কোনও রাজনৈতিক দলেও যোগ দেব না।”

তবে যতদিন পর্যন্ত না বিকল্প অর্থ উপার্জনের বন্দোবস্ত হচ্ছে, ততদিন পর্যন্ত সাংসদ হিসেবে নিজের বেতন নেবেন বলে জানান  বাবুল। একবার পাকাপাকিভাবে অন্য পেশায় এলে তখন আর তিনি রাজনীতির গলিতে ঘেঁষবেন না বলেই সোমবার ইঙ্গিত করেছেন। সাংসদ পদ ছাড়ার সিদ্ধান্তে একপ্রকার অনড় থাকলেও বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকের পরই এ দিন নিজের পূর্ববর্তী অবস্থান থেকে কিছুটা সরে আসেন বাবুল। বৈঠকের পরই যে তিনি ‘সাংবিধানিক দায়িত্ব’ পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, সেটাও এ দিন জানান দু’বারের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা সাংসদ।

বাবুলের কথায়, “সাংসদ পদ সাংবিধানিক দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। তার বাইরেও একটাও রাজনীতি থাকে। কিন্তু আমি রাজনীতিকেই বিদায় জানাচ্ছি। মিথ্যা বলতে চাই না। আপাতত আমার উপার্জনের অন্য কোনও রাস্তা নেই। অন্যান্য সাংসদরা যে বেতন নেন আমিও সেটাই নেব। অনেক সাংসদই হন যাঁরা রাজনীতিক নন। আমিও সেভাবেই থাকব। রাজনীতিক বাবুলকে আপনারা আর দেখবেন না।”

সোমবারের বাবুলে এই ঘোষণা বিগত কয়েকদিনের ‘নাটকে’ যবনিকা টানল বলা চলে। বাবুল সুপ্রিয় গত শনিবার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টেই রাজনীতিকে ‘আলভিদা’ জানানোর কথা ঘোষণা করেছিলেন। কিছুক্ষণ পর সেই পোস্ট এডিট করে তিনি নিজেই জানান, সাংসদ পদ থেকেও ইস্তফা দিচ্ছেন। বাবুলের এই আচমকা ঘোষণার পর তীব্র প্রতিক্রিয়া দেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি  দিলীপ ঘোষ। অনেকাংশে, চরম বিরক্তিও প্রকাশ করেন তিনি। যা খুব একটা ভালভাবে নেননি বাবুল। পরবর্তী ফেসবুক পোস্টে সেটাও পরিষ্কার করে দিয়েছিলেন। তাই এই সব কিছু থেকে চিরতরে নিজেকে গুটিয়ে নিতেই রাজনীতি থেকে সন্ন্যাস তিনি নিলেন ঠিকই; কিন্তু ২০২৪ সাল পর্যন্ত সাংসদ থাকবেন, এই আশ্বাস বিজেপি এবং আসানসোলবাসীকে দিয়ে। আরও পড়ুন: নিউটাউন কাণ্ড: প্রথমে শাড়ি, তারপর চুড়িদার, শেষে ‘বোল্ড’! ‘টাকা’ ঠিক করা হত শরীর দেখে

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla