মারধরেও মেলেনি শান্তি, প্রতিহিংসায় রাতে হাসপাতালেই আহতকে জীবন্ত জ্বালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা অভিযুক্তের

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, জ্বলন্ত অবস্থাতেই হাসপাতালের ওয়ার্ড থেকে ছুটে বেরিয়ে আসছেন দামোদর। পিছু পিছুই বেরিয়ে যান অভিযুক্ত রজাকও।

মারধরেও মেলেনি শান্তি, প্রতিহিংসায় রাতে হাসপাতালেই আহতকে জীবন্ত জ্বালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা অভিযুক্তের
মুখ ঢেকে পালাচ্ছে অভিযুক্ত। পাশেই দ্বগ্ধ হচ্ছেন আক্রান্ত ব্যক্তি।

ভোপাল: সামান্য বিষয়ে বচসা গড়িয়েছিল হাতাহাতির পর্যায়ে। ঝগড়া-মারামারি এতটাই চরম পর্যায়ে পৌঁছয় যে আহত অবস্থায় একজনকে হাসপাতালেও ভর্তি করতে হয়। তবে প্রতিপক্ষ কিন্তু হাসপাতালে পাঠিয়েই ক্ষান্ত হয়নি। সেই কারণেই রাতের অন্ধকারে চুপিচুপি হাসপাতালে ঢুকেই জ্বালিয়ে দিলেন আহত ওই ব্যক্তিকে। ঘটনাটি ঘটেছে মধ্য প্রদেশের সাগর জেলায়।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার দামোদর কোড়ি ও মিলন মাচে রজাক নামক দুই ব্যক্তি আচমকাই বচসায় জড়িয়ে পড়েন। পরে তা মারপিটের পর্যায়ে পৌঁছয়। মারপিট চলাকালীনই দামোদর কোড়ি গুরুতর আহত হওয়ায় তাঁকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

সেই হাসপাতালেই রাতের অন্ধকারে প্রবেশ করেন অভিযুক্ত মিলন রজাকও। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, তিনি আশেপাশের চত্বরে চোখ বুলিয়ে হাসপাতালের এককোণে আগুন ধরান। তারপর সেই আগুনই দামোদর কোড়ির গায়ে ঘুমন্ত অবস্থায় দিয়ে দেন। পেট্রল দিয়ে আগুন ধরানোয় নিমেষে তা গোটা শরীরে ছড়িয়ে পড়ে।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, জ্বলন্ত অবস্থাতেই হাসপাতালের ওয়ার্ড থেকে ছুটে বেরিয়ে আসছেন দামোদর। পিছু পিছুই বেরিয়ে যান অভিযুক্ত রজাকও। বর্তমানে বুন্দেলখণ্ড মেডিক্যাল কলেজে দামোদরের চিকিৎসা চলছে। তিনি স্থিতিশীল রয়েছেন বলেই জানা গিয়েছে।

এদিকে, সিসিটিভি ফুটেজ ও দামোদর কোড়ির বয়ানের ভিত্তিতে অভিযুক্ত মিলন রজাককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: ‘২ ডোজ়ের মধ্যে অতিরিক্ত ব্যবধানে বাড়বে বিপদ’, ভারতের টিকানীতির ‘ভুল’ খুঁজলেন ফৌসি

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla