Ashok Gehlot-Sachin Pilot: পাইলটের স্বপ্নের উড়ানে ‘কাঁটা’ গেহলটই! কংগ্রেস সভাপতি হলে কি ছাড়বেন মুখ্যমন্ত্রীর গদি?

Ashok Gehlot-Sachin Pilot: প্রবীণ নেতার মন্তব্যেই স্পষ্ট বোঝা গিয়েছে যে, জাতীয় সভাপতি পদে তিনি নির্বাচিত হলেও, এত সহজে মুখ্যমন্ত্রীর পদ তিনি ছাড়ছেন না।

Ashok Gehlot-Sachin Pilot: পাইলটের স্বপ্নের উড়ানে 'কাঁটা' গেহলটই! কংগ্রেস সভাপতি হলে কি ছাড়বেন মুখ্যমন্ত্রীর গদি?
ফাইল চিত্র
TV9 Bangla Digital

| Edited By: ঈপ্সা চ্যাটার্জী

Sep 21, 2022 | 1:12 PM

জয়পুর: শুধু মুখ্যমন্ত্রীই নয়, এবার দলে জাতীয় স্তরেও দায়িত্ব পেতে পারেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। আসন্ন কংগ্রেস সভাপতি নির্বাচনে তিনি প্রার্থী হচ্ছেন, এই খবর সামনে আসতেই শুরু হয়েছে নানা গুঞ্জন। তবে জাতীয় পদ পেলেও, রাজ্যের কর্মীদের থেকে দূরে থাকবেন না, মঙ্গলবার রাতে দলীয় কর্মীদের বৈঠকে এমনটাই আশ্বাসবাণী দিয়েছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। সমস্ত বিধায়কদের এই বৈঠকে বাকিরা উপস্থিত থাকলেও, গরহাজির ছিলেন সচিন পাইলট। এই অনুুপস্থিতি ঘিরেই আবার নতুন করে কংগ্রেসের অন্দরে বিরোধের জল্পনা শুরু হয়েছে।

কংগ্রেসের অন্দরে নবীন বনাম প্রবীণের দ্বন্দ্ব দীর্ঘদিনের। এই ল়ড়াইয়ের সবথেকে বড় উদাহরণ হল রাজস্থানের কংগ্রেস সংগঠন, যেখানে মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের সঙ্গে ক্ষমতার লড়াইয়ের জেরেই উপ-মুখ্যমন্ত্রী পদ ছেড়েছিলেন সচিন পাইলট। গেহলট বনাম পাইলটের এই লড়াই রাজ্যের সীমানা পার করে জাতীয় স্তরে পৌঁছেছিল। শেষ অবধি গান্ধী পরিবারের হস্তক্ষেপে বিরোধ কিছুটা সামাল দেওয়া গেলেও দুই কংগ্রেস নেতার মধ্যে ঠাণ্ডা লড়াই এখনও জারি রয়েছে।

মঙ্গলবারই জানা যায় যে, কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা অশোক গেহলট কংগ্রেসের জাতীয় সভাপতি পদে প্রার্থী হতে পারেন। গান্ধী পরিবারের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে তাঁর সঙ্গে। এদিকে, গেহলটের এই নতুন দায়িত্বপ্রাপ্তির সম্ভাবনা তৈরি হতেই চিন্তায় পড়েছেন দলীয় কর্মী-বিধায়করা। তাদের আশ্বস্ত করতেই মঙ্গলবার রাতে বিধায়কদের নিয়ে বৈঠক ডাকেন মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। সেই বৈঠকেই তিনি দলীয় কর্মীদের আশ্বস্ত করে গেহলট বলেন, “আমি কোথাও যাচ্ছি না। চিন্তা করবেন না আপনারা। আপনাদের থেকে দূরে থাকব না আমি।”

প্রবীণ নেতার এই মন্তব্যেই স্পষ্ট বোঝা গিয়েছে যে, জাতীয় সভাপতি পদে তিনি নির্বাচিত হলেও, এত সহজে মুখ্যমন্ত্রীর পদ তিনি ছাড়ছেন না। মুখ্যমন্ত্রী গেহলটের কংগ্রেস সভাপতি নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়টি সামনে আসতেই দলীয় কর্মীদের একাংশের মধ্যে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে গেহলটের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী সচিন পাইলটকে ঘিরে। তাদের ভয়, ২০২০ সালে সচিন পাইলট যেভাবে অশোক গেহলটের বিরোধিতা শুরু করে সরকার ফেলার উপক্রম করেছিলেন, অশোক গেহলট যদি কংগ্রেস সভাপতি হয়ে যান, তবে রাজস্থানে সচিন পাইলট একইভাবে ফের বিদ্রোহ শুরু করবেন, এমনকি মুখ্যমন্ত্রীর পদও সচিনের কাছেই যেতে পারে।

তবে সভাপতির পদ পেলেও, সচিন পাইলটকে যে মুখ্যমন্ত্রীর গদি ছাড়তে নারাজ অশোক গেহলট, তা তাঁর বৈঠকে দেওয়া বার্তাতেই বোঝা গিয়েছে। গতকাল তিনি বিধায়কদের নিয়ে যে বৈঠকে বসেছিলেন, তাতে অনুপস্থিত ছিলেন সচিন পাইলট। সূত্রের খবর, পাইলট কেরলে যাবেন, একথা জেনেই তিনি ওই সময়ে বৈঠক ডেকেছিলেন। সূত্রের খবর, যদি কংগ্রেসের সভাপতি হিসাবে নির্বাচিত হন, তবুও রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রীর পদ তিনি ছাড়বেন না।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla