‘প্রশান্ত কিশোরের মন্তব্যেই পরিষ্কার ক্ষমতায় আসছে কারা’, আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে বিজেপির

পিকে কার্যত নিজেই স্বীকার করে নিয়েছেন যে সেখানে তিনিই মন্তব্যগুলি করেছেন। এই অডিয়ো ক্লিপ হাতিয়ার করেই এ দিন রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার দাবি করেন, প্রশান্ত কিশোরই সাফ করে দিয়েছেন যে রাজ্যে ক্ষমতায় আসছে বিজেপি।

'প্রশান্ত কিশোরের মন্তব্যেই পরিষ্কার ক্ষমতায় আসছে কারা', আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে বিজেপির
ফাইল ছবি

কলকাতা: তৃণমূলের ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের মন্তব্যেই যেন গঙ্গাপাড়ের নীলবাড়ি দখলের সিঁড়ি ক্রমশ স্পষ্টভাবে দেখতে পাচ্ছে মুরলীধর সেন লেন। চতুর্থ দফার ভোটের সকালে যে অডিয়ো ক্লিপ রাজ্য রাজনীতিতে তোলপাড় ফেলে দিয়েছে, তাতে প্রশান্ত কিশোরের কণ্ঠ শোনা গিয়েছে। TV9 বাংলার পক্ষ থেকে সেই অডিয়ো ক্লিপের সত্যতা যাচাই না করা হলেও, পিকে কার্যত নিজেই স্বীকার করে নিয়েছেন যে সেখানে তিনিই মন্তব্যগুলি করেছেন। এই অডিয়ো ক্লিপ হাতিয়ার করেই এ দিন রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার দাবি করেন, প্রশান্ত কিশোরই সাফ করে দিয়েছেন যে রাজ্যে ক্ষমতায় আসছে বিজেপি।

প্রশান্ত মন্তব্যকে হাতিয়ার করেই জয়প্রকাশের মন্তব্য, “এসসি, এসটি, দলিত, মতুয়া সমাজ থেকে রাজবংশী, এরাও অধিকাংশই বিজেপিকে ভোট দিতে যাচ্ছে। এটা তৃণমূলের ভোটকুশলীই স্বীকার করে নিয়েছেন।” বিজেপির দাবি, তারা যে এতদিন ধরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে তোষণের রাজনীতির অভিযোগ তুলে এসেছিল, তাতে প্রশান্ত কিশোর নিজেই সিলমোহর দিয়েছেন।

জয়প্রকাশের কথায়, “পশ্চিমবঙ্গে বামেদের শাসনকালে সংখ্যালঘুদের তোষণ করা হয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আমলে সেটা আরও বেশি করে হয়েছে। ফলে প্রশান্ত কিশোর নিজেও স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছেন যে মেরুকরণ হয়েছে, এবং হিন্দুরা কোথাও গিয়ে অবহেলিত বলে অনুভব করেছেন নিজেদের। সেই কথাটাও সামনে চলে এসেছে।”

আরও পড়ুন: ‘সাত জন্মেও আপনি হারাতে পারবেন না’, ‘দিদি’কে কড়া আক্রমণ মোদীর

“ভারতীয় রাজনীতিতে আজ পর্যন্ত কোনও রাজনৈতিক দল কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেনি। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রথমবার আধাসেনাকে প্রতিপক্ষ বানিয়ে নিলেন।” তৃণমূল নেত্রীর বিরুদ্ধে তোপ দেগে এমনটাও বলেও জয়প্রকাশ।

সাংবাদিক বৈঠক করে বিজেপির আইটি সেল প্রধান অমিত মালব্য দাবি করেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘেরাও করার উস্কানিমূলক মন্তব্যের জন্যই আজ কোচবিহারে আত্মরক্ষার স্বার্থে গুলি চালাতে হল কেন্দ্রীয় আধাসেনা বাহিনীকে। এবং এটা সেখানকার জেলা পুলিশ সুপার নিজেই স্বীকার করেছেন। রাজ্যের রাশ ক্রমশ হাত থেকে বেরিয়ে যাচ্ছে বুঝতে পেরেই সন্ত্রাস করাতে এতটা মরিয়া হয়ে উঠেছেন মমতা।”

আরও পড়ুন: বুথ থেকে কেড়ে নিয়ে গিয়ে রাখা হয়েছিল গ্রামেরই একটি বাড়িতে! দেড় বছরের শিশুকে কোলে ফিরে পেলেন সেই মা

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla