PCOS: নিয়মিত ডায়েট মেনে চলার পাশাপাশি শরীরচর্চাও খুব জরুরি!

Diet: নিয়মিত ডায়েট মেনে চলার পাশাপাশি শরীরচর্চাও কিন্তু খুব জরুরি। মন ভালো রাখতেই হবে। সেই সঙ্গে কার্বোহাইড্রেট যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন...

PCOS: নিয়মিত ডায়েট মেনে চলার পাশাপাশি শরীরচর্চাও খুব জরুরি!
সুষম আহার আর শরীরচর্চা আবশ্যক

PCOS বা PCOD-এই শব্দ দুটোর সঙ্গে আজকাল সকলেই পরিচিত। ১৮ থেকে ৩৫ বছর বয়সী অধিকাংশ মেয়েই এই সমস্যার শিকার। আর এই সমস্যার জন্য কিন্তু দায়ী আমাদের জীবনযাত্রা। বাড়তে থাকা স্ট্রেস, খাওয়া-দাওয়ায় পরিবর্তন, ঘুম কম ইত্যাদি নানা কারণে হরমোনের অসামঞ্জস্যতা লক্ষ্য় করা যায়। আমাদের দেহে যে স্ত্রী হরমোন থাকে ইস্ট্রোজেন এবং প্রোজেস্টেরন তা ঠিকমত কাজ করে না। আর সেই কারণেই বাড়ে পিরিয়ডস সংক্রান্ত নানা সমস্যা। অনিয়মিত পিরিয়ডস, অতিরিক্ত মাত্রায় চুল পড়ে যাওয়া, ওজন বৃদ্ধি এসব হল PCOS-এর লক্ষণ।

PCOS- থাকলেই সঙ্গে আসে আরও নানা সমস্যা। কারণ হরমোনের পরিবর্তন মনের উপর ভীষণ প্রভাব ফেলে। থাইরয়েড, ডায়াবিটিসের মতো সমস্যাও আসে। যে কারণে এই রকম সমস্যা হলে ম্যুড স্যুইং কিংবা আচমকা মেজাজ হারানো খুব অস্বাভাবিক কিছু ঘটনা নয়। সমস্যা হলে অবশ্যই চিকিৎসকের কাছে যান, প্রয়োজন মত ওষুধ খান। সেই সঙ্গে অবশ্যই মেনে চলুন বেশ কিছু নিয়ম। আর তাই প্রথমেই জোর দিতে হবে ডায়েটে। নিয়মিত ডায়েট মেনে চললে এবং এক্সসারসাইজ করলে তবেই হবে সমস্যার সমাধান।

নিয়মিত ৪৫ মিনিট করে শরীরচর্চা করতেই হবে। তবে গিয়ে কিছুটা ওজন কমাতে পারবেন। এই সমস্যা থাকলে মূলত তলপেটে চর্বি জমে। আর এতে টাইপ ২ ডায়াবিটিসের সম্ভাবনা বাড়ে। সেই সঙ্গে হার্টের সমস্যাও আসে। আর তাই প্রতিদিন স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে এবং কার্বোহাইড্রেট একেবারেই কমিয়ে দিতে হবে। তবে গিয়ে ওজন ঠিক থাকবে। সেই সঙ্গে মনও ভালো থাকে। মন ভালো থাকলে তবেই কিন্তু আমাদের শরীর থেকে হ্যাপি হরমোন নির্গত হয়।

PCOS- এর সমস্যা থাকলে বেশ কিছু খাবারে সমস্যা হয়। যেমন দুগ্ধজাত কোনও খাবার একেবারেই হজম হয় না। টক দই ছাড়া। সেই সঙ্গে গ্লুটেনে সমস্যা হয়। যেমন-রুটি, পাঁউরুটি, চাউমিন, পাস্তা, চিপস, সস, বিয়ারে গ্লুটেনের পরিমাণ থাকে অত্যধিক। তাই এই ধরণের সমস্যা থাকলে এসব খাবার একেবারেই এড়িয়ে চলুন।

দিন শুরু করুন ভেজিটেবল স্মুদি আর চিয়া সিডস দিয়ে। নিয়মিত চিয়া সিডস খেলে সুগার থাকে নিয়ন্ত্রণে। কারণ PCOS-এর সমস্যা থাকলে পরবর্তীতে ডায়াবিটিসের সমস্যা আসেই।

এছাড়াও খেতে পারেন দই-ওটস কিংবা ব্রাউন ব্রেড ও ডিমের সাদা অংশ।

দুপুরে খান ব্রাউন রাইস, ডাল, সবজি এবং স্যালাড। সঙ্গে একপিস মাছ খেলেও খেতে পারেন। এছাড়াও চলতে পারে ডিমসিদ্ধ বা ১০০ গ্রাম চিকেন। সোয়াবিন খেলে ৮ টার বেশি একেবারেই নয়।

ইভিনিং স্ন্যাক্সে স্প্রাউটস চাট, মাখনা, ফ্রুট স্যালাড কিংবা একবাটি পেঁপে খান। কিংবা পাঁপড় সেঁকে শসা, পেঁয়াজ, লেবুর রস দিয়ে চাটওবানিয়ে নিতে পারেন।

ডিনার চেষ্টা করুন ৭.৩০ এর মধ্যে সেরে ফেলতে। ডিনারে গ্রিলড ফিশ অথবা চিকেন সেই সঙ্গে স্যুপ বা স্যালাড রাখুন তালিকায়।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla