India vs New Zealand: গ্রিন পার্কের মাঠকর্মীদের নিজের পকেট থেকে টাকা দিলেন দ্রাবিড়

কানপুর টেস্ট শেষে গ্রিন পার্কের (Green Park) মাঠকর্মীদের ৩৫ হাজার টাকা পুরস্কার দিলেন দ্রাবিড়। নিজের পকেট থেকেই খরচ করলেন এই টাকা। গ্রিন পার্কের প্রধান মাঠকর্মী শিব কুমারের হাতে ৩৫ হাজার টাকা তুলে দেন ভারতীয় দলের কোচ। স্পোর্টিং উইকেট বানানোর জন্যই মাঠকর্মীদের এই পুরস্কার দিলেন দ্রাবিড়।

India vs New Zealand: গ্রিন পার্কের মাঠকর্মীদের নিজের পকেট থেকে টাকা দিলেন দ্রাবিড়
রাহুল দ্রাবিড়। ছবি: টুইটার

কানপুর: রাহুল দ্রাবিড়ের (Rahul Dravid) ক্রিকেট দর্শন বরাবরই অন্যদের চেয়ে অনেকটা আলাদা। ক্রিকেটজীবনে শৃঙ্খলায় আবদ্ধ ছিলেন। দ্য ওয়ালের জীবনদর্শনে ‘ডিসিপ্লিন’ শব্দটার মাহাত্ম্য অনেক বড়। কোচিং জীবনেও ভিন্ন পথ দেখালেন রাহুল দ্রাবিড়। কোচ হিসেবে নিজের অভিষেক টেস্টেই অভিনব পন্থা নিলেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল।

কানপুর টেস্ট শেষে গ্রিন পার্কের (Green Park) মাঠকর্মীদের ৩৫ হাজার টাকা পুরস্কার দিলেন দ্রাবিড়। নিজের পকেট থেকেই খরচ করলেন এই টাকা। গ্রিন পার্কের প্রধান মাঠকর্মী শিব কুমারের হাতে ৩৫ হাজার টাকা তুলে দেন ভারতীয় দলের কোচ। স্পোর্টিং উইকেট বানানোর জন্যই মাঠকর্মীদের এই পুরস্কার দিলেন দ্রাবিড়।

অনেক ভেনুতেই ৫ দিনের টেস্ট চলার মতো পর্যাপ্ত উইকেট দেখা যায় না। তৃতীয় দিন বা চতুর্থ দিনের পরই উইকেটের চরিত্র একেবারে পাল্টে যায়। বিশেষ করে ভারতীয় উপমহাদেশের উইকেট তিন দিন বা চার দিনের পরই আর সেভাবে খেলার যোগ্য থাকে না। কিন্তু কানপুরের পিচে শেষ বল পর্যন্ত টানটান উত্তেজনায় ম্যাচ গড়াল। মাঠকর্মীদের আরও উত্‍সাহ জোগাতেই এমন উদ্যোগ দ্রাবিড়ের।

এ দিকে কানপুর টেস্টে জয় হাতছাড়া হওয়ায় অনেকেই রাহানের (Ajinkya Rahane) ক্যাপ্টেন্সি নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের অনেকে বলছেন, গতকাল আরেকটু আগে ইনিংস ডিক্লেয়ার করা উচিত ছিল রাহানের। যদিও সেই দাবি মানতে নারাজ কানপুর টেস্টের ক্যাপ্টেন। তিনি বলেন, ‘আমি এ রকমটা ভাবি না। আমরা আমাদের সেরাটা দিয়েছি। ওরা খুব ভালো খেলেছে। আমি চেয়েছিলাম স্কোরবোর্ডে কিছু রান উঠুক। ঋদ্ধিমান সাহা আর অক্ষর প্যাটেল ভালো ব্যাটিং করেছে। তার আগে অশ্বিন-শ্রেয়সের পার্টনারশিপও স্কোরবোর্ডে রান তুলেছে। আজ দ্বিতীয় সেশনে আমরা যে ভাবে কামব্যাক করলাম তা প্রশংসনীয়। আমি চেয়েইছিলাম, গত কাল ৪ ওভার বল করে আজ ৯০ থেকে ৯৫ ওভার বোলিং করতে। আমরা যা চেয়েছিলাম তাই-ই করেছি।’

একই সঙ্গে রাহানে বলেন, ‘এই উইকেট থেকে স্পিনাররা সাহায্য পেয়েছে। আমি প্রত্যেক স্পিনারকেই ঘুরিয়ে ফিরিয়ে বোলিং করাচ্ছিলাম। ওরা খুব ভালো বোলিং করেছে। শ্রেয়সের জন্য আমি খুব খুশি। টেস্ট অভিষেকের জন্য অনেকদিন ধরে ও অপেক্ষা করেছিল। সত্যিই খুব ভালো ব্যাটিং করেছে। পরের ম্যাচে বিরাট দলে ফিরছে। মুম্বই টেস্টের জন্য আমাদের এখন অপেক্ষা করতে হবে।’

আরও পড়ুন: India vs New Zealand: কোচ দ্রাবিড়ের প্রথম টেস্ট জয়ের কাঁটা হয়ে দাঁড়ালেন ২ ভারতীয় বংশোদ্ভূত

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla