ইংল্যান্ডে থেকেও ভারতের করোনাযুদ্ধে সামিল হনুমা বিহারি

করোনার (COVID-19) কারণে ভারতের বিদ্ধস্ত পরিস্থিতি দেখে, বিদেশে থেকেও স্বস্তি পাচ্ছেন না হনুমা। তাই এ বার এই কঠিন পরিস্থিতিতে ভারতের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য তিনি বেছে নিয়েছেন এক অভিনব পন্থা।

ইংল্যান্ডে থেকেও ভারতের করোনাযুদ্ধে সামিল হনুমা বিহারি
ফাইল চিত্র

নয়াদিল্লি: ভারতে (India) না থেকেও করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সামিল হয়েছেন হনুমা বিহারি (Hanuma Vihari)। বর্তমানে তিনি রয়েছেন ইংল্যান্ডে (England)। কাউন্টি ক্রিকেটে ওয়ারউইকশায়ারের হয়ে খেলছেন তিনি। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল (WTC Final) এবং ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৫ ম্যাচের টেস্ট সিরিজের দলে আছেন হনুমা। আইপিএলে (IPL) সুযোগ পাননি বলে কাউন্টি খেলতে গিয়েছেন তিনি। তবে করোনার (COVID-19) কারণে ভারতের বিদ্ধস্ত পরিস্থিতি দেখে, বিদেশে থেকেও স্বস্তি পাচ্ছেন না হনুমা। তাই এ বার এই কঠিন পরিস্থিতিতে ভারতের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য তিনি বেছে নিয়েছেন এক অভিনব পন্থা।

টুইটারে (Twitter) নিজের ভক্তদের নিয়ে প্রায় ১০০জন স্বেচ্ছাসেবকের একটি দল বানিয়েছেন তিনি। তাদের নিয়ে কাজের সুবিধার জন্য একটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপও বানিয়ে ফেলেছেন। এই দলটি অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা ও কর্নাটকের মত জায়গায় মানুষের সঙ্কটে তাদের পাশে দাঁড়াচ্ছে। অক্সিজেন সিলিন্ডার জোগান দেওয়া, হাসপাতালে শয্যার ব্যবস্থা করা, ওষুধ, প্লাজমা, খাবার সব কিছুই প্রয়োজনীয় ব্যক্তিদের বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে আসছে এই স্বেচ্ছাসেবী দল। এই দলে দিল্লির কংগ্রেস নেতা বিভি শ্রীণিবাস, হনুমার বন্ধুরা ও তাঁর স্ত্রী, বোনও রয়েছেন।

নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকেই প্রথম এই উদ্যোগ শুরু করেছিলেন এই ২৭ বছর বয়সী ক্রিকেটার। হনুমা বলেছেন, “প্রথমে আমি টুইটারে এই কাজ শুরু করেছিলাম। আমি তথ্য তুলে ধরি টুইটারে। আমার স্বেচ্ছাসেবী দল সেই তথ্য পেয়ে সাহায্যের জন্য পৌঁছে যায়। আমি নিজের বড়াই করতে চাই না। আমি শুধু সত্যিকারের প্রয়োজনীয় মানুষগুলোর পাশে দাঁড়াতে চেয়েই, একেবারে তৃণমূল স্তর থেকে কাজ করছি। এই কঠিন সময়ে তাদের যতটুকু সাহায্য করা যায় সেটার চেষ্টাই করে যাচ্ছি।”

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে একেবারে হিমশিম খাচ্ছে ভারত। হনুমা বলেছেন, “ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ যে ভয়ানক পরিস্থিতি তৈরি করেছে, সেটা কল্পনাও করা যায় না। হাসপাতালে বেড নেই। ওষুধ নেই, খাবার নেই। তাই এই কঠিন সময়ে মানুষের পাশে থাকার একটু চেষ্টা করছি। স্বেচ্ছাসেবী দল আমার পাশে থাকায় এই কাজ আমি ঠিক করে চালিয়ে যেতে পারছি।”

এই মুহূর্তে কাউন্টি খেলে নিজেকে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল ও ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে খেলার জন্য তৈরি করছেন। ৩ জুন ভারতীয় দল ইংল্যান্ড পৌঁছলে তাদের সঙ্গে সরাসরি যোগ দেবেন হনুমা। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল ও ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজের আগে কাউন্টিতে খেলা তাঁকে সাফল্য দেবে বলেই মনে করছেন হনুমা। তাঁর কথায়, “দল আমাকে যেমনটা বলবে আমি সেটাই করব। আমার কেরিয়ারে আমি বরাবরই টপ অর্ডারে ব্যাটিং করেছি, তাই আমি চ্যালেঞ্জ নেওয়ার জন্য তৈরি। দুটো বড় সিরিজের আগে এই প্রস্তুতিগুলো আমার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ইংল্যান্ডের আবহাওয়া ও পিচের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া খুব একটা সহজ নয়। তাও আমি মানিয়ে নেওয়ার সাধ্যমতো চেষ্টা করছি। এখানের ঠান্ডা আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া কঠিন হলেও আমি বার্মিংহামেই অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছি।”

আরও পড়ুন: লিভারপুলের অনুশীলন মাঠ এ বার ফাউলারের দখলে