Plagiarism Checker: লেখা চুরি হচ্ছে, হাতেনাতে ধরার মোক্ষম সফ্টওয়্যার নিয়ে এল IEMLabs

Plagiarism Checker: লেখা চুরি হচ্ছে, হাতেনাতে ধরার মোক্ষম সফ্টওয়্যার নিয়ে এল IEMLabs
প্রতীকী ছবি।

IEM Secure, IEM AI Writer: কৃত্রিম মেধাভিত্তিক রাইটার এবং প্লেজিয়ারিজ়ম চেকার সফ্টওয়্যার নিয়ে এল কলকাতার IEMLabs। কীভাবে এই সফ্টওয়্যার দুটি মানুষের সাহায্য করবে, এখনই জেনে নিন।

TV9 Bangla Digital

| Edited By: Sayantan Mukherjee

May 11, 2022 | 8:08 PM

লিখতে ভালবাসেন আপনি? নিয়মিত লেখালেখি করেন? তাহলে একটা ভয় নিশ্চয়ই আপনাকে সবসময় তাড়া করে বেড়ায়? আপনার লেখাটা অন্য কেউ চুরি করে নিল কি না। লেখা চুরি হয়েছে কি না, তা ধরার হাজার একটা উপায় রয়েছে ঠিকই। তবে তাদের মধ্যে সবথেকে কার্যকর উপায় হল প্লেজিয়ারিজ়ম চেকার ব্যবহার করা। গুগল থেকে আপনি একাধিক প্লেজিয়ারিজ়ম চেকার (Plagiarism Checker) পেতে পারেন। কিন্তু আপনার লেখার বর্ণে-বর্ণে, অক্ষরে-অক্ষরে, যাবতীয় কিছু চুরি হয়েছে কি না, তা সমস্ত প্লেজিয়ারিজ়ম চেকার পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে ধরতে পারে না। তার থেকেও বড় কথা হল, বেশির ভাগ প্লেজিয়ারিজ়ম সফ্টওয়্যারই ইংরেজি ভাষা সাপোর্ট করে। ফলে আঞ্চলিক ভাষার লেখককের ক্ষেত্রে বড় সমস্যা দেখা দেয়। এবার সেই কথাটা মাথায় রেখেই প্লেজিয়ারিজ়ম চেকার নিয়ে হাজির হল IEMLabs। এর গুরুত্ব হল, এটি ভারতে তৈরি এবং পূর্ব ভারতে এই প্রথম কোনও প্লেজিয়ারিজ়ম চেকার লঞ্চ হল, যার নাম IEM Secure। এই প্লেজিয়ারিজ়ম চেকার ছাড়াও একটি আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (Artificial Intelligence) বা কৃত্রিম মেধাভিত্তিক সফ্টওয়্যার লঞ্চ করেছে IEMLabs, যার নাম IEM AI Writer। নাম থেকেই পরিষ্কার এই কৃত্রিম মেধা ভিত্তিক সফ্টওয়্যারটি লেখকদের সাহায্য করতে চলেছে।

মঙ্গলবার শহরে এই সফ্টওয়্যার দু’টি লঞ্চ করেন, পশ্চিমবঙ্গ সরকারের জয়েন্ট সেক্রেটারি, আইটি অ্যান্ড ই-ডিপার্টমেন্ট অ্যান্ড স্টেট ইনফর্মেশন সিকিওরিটি অফিসার সঞ্জয় কুমার দাস, IEMA রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট প্রাইভেট লিমিটেড অ্যান্ড IEMLabs-এর ডিরেক্টর ডক্টর সত্যজিৎ চক্রবর্তী, সংস্থার চিফ টেকনিক্যাল অফিসার হৃত্বিক লাল এবং চিফ অপারেটিং অফিসার সৌভিক সিনহা। IEM Secure এবং IEM AI Writer সফ্টওয়্যার দুটি সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

IEM Secure

অনলাইনে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স নির্ভর একটি ক্লাউড প্লেজিয়ারিজ়ম চেকার হল এই IEM Secure। এই চেকার সফ্টওয়্যারটি ১০ বিলিয়নেরও বেশি সোর্স মাত্র কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে স্ক্যান করতে পারে। সফ্টওয়্যারটিতে এমনই কিছু শক্তিশালী ফিচার্স রয়েছে, যার সাহায্যে পড়ুয়া থেকে শুরু করে ইনস্ট্রাক্টর, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এমনকী পেশাদার লোকজনের লেখার ডুপ্লিকেট কপি তৈরি করা হচ্ছে কি না, তা জলের মতো স্পষ্ট হয়ে যাবে। যে কোনও কন্টেন্ট চেক করে সেটি আদৌ নকল করা হয়েছে কি না, তার সোর্স কোড থেকে বিশ্লেষণ করতে পারে। কোন ওয়েবসাইট সেই নির্দিষ্ট কন্টেন্টটি হুবহু নকল করেছে, তা-ও মুহূর্তের মধ্যে বলে দিতে পারে IEM Secure সফ্টওয়্যার। শুধু তাই-ই নয়,। এই প্লেজিয়ারিজ়ম চেকার সফ্টওয়্যারটি নির্দিষ্ট কোনও কন্টেন্টের গ্র্যামাটিক্যাল এরর থাকলে সেটাও ধরতে পারে। তাতে সংশোধনের দরকার হলে তারও সাজেশন দেয় সফ্টওয়্যারটি।

IEM AI Writer

এটি আসলে একটি আর্টিফিশিয়াল-ইন্টেলিজেন্সভিত্তিক ব্লগ জেনারেশন সফ্টওয়্যার, যার মাধ্যমে লেখকরা আরও ভাল, পরিণত এবং এনগেজিং কন্টেন্ট ক্রিয়েট করতে পারবেন। IEM AI Writer নামক সফ্টওয়্যারটি নিয়ে আসার মূল উদ্দেশ্যই হল, পাঠক-মহলে একটা কন্টেন্ট যতটা বেশি পরিমাণে ছাপ ফেলা যেতে পারে, তার জন্য খুচখাচ কাজগুলি যতটা সম্ভব স্বয়ংক্রিয়ভাবে করে ফেলা। তবে এই আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স নির্ভর সফ্টওয়্যারটির সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ফিচার হল, এটি একটি বিরাট বড় কন্টেন্টের সারবত্তা মুহূর্তের মধ্যে প্রকাশ করতে পারে।

IEMLabs Software Launch

সফ্টওয়্যার লঞ্চ অনুষ্ঠানে IEMLabs-এর সদস্যরা এবং অতিথিরা।

IEMA রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট প্রাইভেট লিমিটেড অ্যান্ড IEMLabs-এর ডিরেক্টর ডক্টর সত্যজিৎ চক্রবর্তী এই সফ্টওয়্যার দু’টি সম্পর্কে বলছেন, “খুব আনন্দের সঙ্গে আমি জানাতে চাই যে, সফ্টওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, ISMS অ্যান্ড সিকিওরিটি অডিট, ISO কমপ্লায়েন্স সার্ভিস, ফ্রেমওয়ার্ক ম্যানেজমেন্ট সার্ভিস এবং সার্টিফিকেট কোর্সের পাশাপাশিই আমাদের এই নতুন সফ্টওয়্যার পড়ুয়া থেকে শুরু করে ইনস্টিটিউশনস, পেশাদার লোকজনকে পরিষেবা দিতে পারবে।”

IEMA রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট প্রাইভেট লিমিটেড অ্যান্ড IEMLabs-এর চিফ টেকনিক্যাল অফিসার হৃত্বিক লাল বলছেন, “এই AI রাইটার সফ্টওয়্যারটি সত্যিই অনন্য এবং দেশীয় প্রযুক্তিতে নির্মিত। তার সবথেকে বড় কারণ, এটি যে শুধু লিখতে সাহায্য করে এমনটা নয়। সেই সঙ্গেই আবার লেখকের প্রকৃত অভিব্যক্তি তুলে ধরতে পারে। পাশাপাশি রয়েছে মাল্টি-লিঙ্গুইস্টিক জেনারেশন সাপোর্ট। ইউজ়াররা নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী ভাষা বেছে নিতে পারবেন, যেখানে রয়েছে ৫০টি ভাষার সাপোর্ট। আমরা বিশ্বাস করি, হালফিলের ট্রেন্ডকে মাথায় রেখে এই সফ্টওয়্যার সবদিক থেকে ইউজারদের জন্য অত্যন্ত সহায়ক হতে চলেছে।”

এই খবরটিও পড়ুন

এই সফ্টওয়্যার দু’টি ব্যবহার করতে প্রাথমিকভাবে ইউজ়ারদের একটা টাকাও খরচ করতে হবে না। তার জন্য ইউজ়ারদের কেবল মাত্র সাইটে গিয়ে রেজিস্টার করতে হবে। অ্যাডভান্সড ইউজ়ের জন্য সামান্য কিছু টাকা ব্যবহারকারীদের কাছে চার্জ করবে IEMLabs। পাশাপাশি এই দুই সফ্টওয়্যার ব্যবহার করার সময় যদি গ্রাহকরা কোনও রকম সমস্যার সম্মুখীন হন, তার সমাধানে ২৪/৭ কাস্টমার সাপোর্টেরও বন্দোবস্ত করেছে সংস্থাটি।

Follow us on

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA