নতুন ফাঁদ ‘হোয়াটসঅ্যাপ পিঙ্ক’, ডাউনলোড করলেই প্রতারণার শিকার হবেন ইউজাররা

পুলিশ এবং মিডিয়ায় থাকা লোকজনকেই মূলত নিশানা বানাচ্ছে হ্যাকাররা। দিল্লি এবং রাজস্থানে পুলিশ অফিসারদের কাছে ইতিমধ্যেই হোয়াটসঅ্যাপ পিঙ্কের লিঙ্ক পাঠিয়েছে তারা।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 17:25 PM, 19 Apr 2021
নতুন ফাঁদ 'হোয়াটসঅ্যাপ পিঙ্ক', ডাউনলোড করলেই প্রতারণার শিকার হবেন ইউজাররা
ফোনের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ চলে যেতে পারে হ্যাকারদের হাতে।

হোয়াটসঅ্যাপের সমস্যা যেন শেষই হয় না। প্রতিদিন নতুন নতু নিরাপত্তা সংক্রান্ত সমস্যা দেখা দিচ্ছে এই মেসেজিং অ্যাপে। সেই তালিনায় নবতম সংযোজন ‘হোয়াটসঅ্যাপ পিঙ্ক’। সিকিউরিটি রিসার্চাররা বলছেন, একবার ডাউনলোড করলে আর রক্ষা নেই। যেচে হ্যাকারদের আমন্ত্রণ জানাবেন ইউজাররা। ফোনের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ চলে যেতে পারে হ্যাকারদের হাতে।

কীভাবে ইউজারদের নিশানা বানাচ্ছে হ্যাকাররা?

জানা গিয়েছে, ইউজারদের একটি মেসেজ পাঠানো হচ্ছে। সেখানে বলা হচ্ছে কেবল সবুজ রঙে নয়, এবার থেকে হোয়াটসঅ্যাপের পরিষেবা পাওয়া যাবে গোলাপি রঙেও। সেই সঙ্গে থাকবে নিত্যনতুন ফিচার। এই প্রসঙ্গে উল্লেখ্য, কিছুদিনাগে শোনা গিয়েছিল যে এবার থেকে ইউজাররা হোয়াটসঅ্যাপের ব্যাকগ্রাউন্ডের রঙ পরিবর্তন করতে পারবেন। তাই নতুন মেসেজ পেয়ে অনেক ইউজারই ধরে নিয়েছেন এটা কর্তৃপক্ষের পাঠানো বার্তা। ভুয়ো হওয়ার সম্ভাবনা নেই। আর এরপরই যখন ওই লিঙ্কে ক্লিক করছেন ইউজার, সেই মুহূর্ত থেকেই প্রতারণার শিকার হচ্ছেন তিনি।

মেসেজে আসা ওই লিঙ্কে ক্লিক করলে পুরনো হোয়াটসঅ্যাপের কিছু পরিবর্তন হচ্ছে না। বরং সরাসরি একটি পেজ খুলে যাচ্ছে যেখানে হোয়াটসঅ্যাপ পিঙ্ক নামের একটি অ্যাপ ডাউনলোড করতে বলা হচ্ছে। এই অ্যাপ ফোনে ডাউনলোড করলেই ইউজারের ফোনে থাকা সবকিছুর অ্যাকসেস পৌঁছে যাবে হ্যাকারদের হাতে। জানা গিয়েছে, ফেসবুক কিংবা তার অধিকৃত সংস্থা হোয়াটসঅ্যাপের সঙ্গে এই ‘হোয়াটসঅ্যাপ পিঙ্ক’- এর কোনও সম্পর্কই নেই। অতএব সময় থাকতেই সাবধান হয়ে যান। নাহলে ইউজারদের যাবতীয় তথ্য হ্যাকারদের হাতে পৌঁছতে সময় লাগবে না বলেই জানিয়েছেন সিকিউরিটি রিসার্চার রাজশেখর রাজারিয়া।

আরও পড়ুন- হোয়াটসঅ্যাপে ফের নিরাপত্তা সংক্রান্ত সমস্যা, ইউজারদের অ্যাকাউন্ট হ্যাক এবং তথ্য ফাঁসের সম্ভাবনা

রাজশেখর এও জানিয়েছেন যে, পুলিশ এবং মিডিয়ায় থাকা লোকজনকেই মূলত নিশানা বানাচ্ছে হ্যাকাররা। দিল্লি এবং রাজস্থানে পুলিশ অফিসারদের কাছে ইতিমধ্যেই হোয়াটসঅ্যাপ পিঙ্কের লিঙ্ক পাঠিয়েছে তারা। দিল্লি পুলিশকে এ ব্যাপারে অবগত করেছেন রাজশেখর।