সহ নাগরিকদের জন্য নিজেদের রান্নাঘর খুলে দিলেন এই দম্পতি

রান্না করে বাড়ি-বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছেন ওঁরা গড়িয়া, যাদবপুর, গলফগ্রিন আর নেতাজিনগর অঞ্চলে। সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এই পরিষেবা পেতে হলে করতে হবে একটি ফোন আর দেখাতে হবে করোনা থেকে সেরে ওঠার নেগেটিভ রিপোর্ট।

  • Publish Date - 12:24 am, Wed, 12 May 21


কৌস্তুভ সেনগুপ্ত করোনার টীকা নিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখন তিনি ও তাঁর স্ত্রী অনুভব করেছিলেন যাঁদের কোভিড হয়, তাঁদের কতটা কষ্ট হয়। আর সেই অনুভূতি থেকেই ১১ জনের জন্য রান্না করা শুরু করেন ওঁরা। গড়িয়া ৫ নম্বর বাসস্ট্যান্ডের কাছে কৌস্তুভ সেনগুপ্তর বাড়ির রান্নাঘর এখন পরিণত হয়েছে কোভিড কিচেনে। তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী কৌস্তুভ পাশে পেয়েছেন তাঁর বন্ধুদেরও। রান্না করে বাড়ি-বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছেন ওঁরা গড়িয়া, যাদবপুর, গলফগ্রিন আর নেতাজিনগর অঞ্চলে। সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এই পরিষেবা পেতে হলে করতে হবে একটি ফোন আর দেখাতে হবে করোনা থেকে সেরে ওঠার নেগেটিভ রিপোর্ট। করোনা থেকে সেরে ওঠার পর রোগীরা খুব দুর্বল হয়ে পড়ে। তাই তাঁদের খাবারে প্রোটিনের জোগানটা থাকা মাস্ট। তাই রোজই দু’বেলা থাকছে প্রোটিন সমৃদ্ধ ডায়েট।