জামিন পেয়ে ঘরে ফিরেই খুন বিজেপি নেতা! খয়রাশোলে তীব্র উত্তেজনা

বিজেপি (BJP)-র জেলা নেতৃত্বের দাবি, রাজনৈতিক প্রতিহিংসাতেই খুন হতে হয়েছে মিঠুনকে। অন্যদিকে তৃনমূলের (TMC) দাবি, পারিবারিক আক্রোশের জেরেই এই ঘটনা।

জামিন পেয়ে ঘরে ফিরেই খুন বিজেপি নেতা! খয়রাশোলে তীব্র উত্তেজনা
প্রতীকী চিত্র।

বীরভূম: বিজেপির (BJP)-র এক মণ্ডল সভাপতিকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগে তীব্র উত্তেজনা ছড়াল বীরভূমের খয়রাশোলে (Khoirashol)। জামিন মুক্তি পেয়ে শনিবারই বাড়ি ফিরেছিলেন ওই বিজেপি নেতা। আর তারপর এই ঘটনায় শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর।

জানা গিয়েছে, মৃত ওই বিজেপি নেতার নাম মিঠুন বাগদি। খয়রাশোল ব্লকের বিজেপির ‘এ’ মণ্ডলীর বুথ সহ-সভাপতিকে পিটিয়ে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে খয়রাশোল ব্লকের কাঁকড়তলা থানার অন্তর্গত নবসন গ্রামে। জানা গিয়েছে, বেশ কিছুদিন আগে গ্রামেরই ১০০ মিটার দূরে রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয় ২৭ বছর বয়সী রাজু বাগদি নামে এক যুবকের। তাতে নাম জড়ায় মিঠুনের।

ওই বিজেপি নেতার নামে অভিযোগ দায়ের করে মৃতের পরিবারের লোকেরা। তারপর তিনমাস ধরে জেল হেফাজতে ছিলেন ওই বিজেপি নেতা। জামিনে মুক্তি পেয়ে শনিবার বাড়ি ফিরলে মৃত রাজু বাগদির পরিবারের লোকেরা তাঁকে বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ। খবর পৌঁছয় পুলিশের কাছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় মিঠুনকে উদ্ধার করে কাঁকড়তলা থানার পুলিশ। তাঁকে ভর্তি করা হয় নাকড়াকোন্দা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে। কিন্তু চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ইতিমধ্যে এই ঘটনায় কাঁকড়তলা থানার পুলিশ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে।

আরও পড়ুন: ‘বিজেপিতে গিয়ে ভুল করেছিলাম,’ শপথ বাক্য পড়ে অনুব্রত গড়ে তৃণমূলে যোগদান! 

বিজেপির জেলা নেতৃত্বের দাবি, রাজনৈতিক প্রতিহিংসাতেই খুন হতে হয়েছে মিঠুনকে। অন্যদিকে তৃনমূলের দাবি, পারিবারিক আক্রোশের জেরেই এই ঘটনা। এর সঙ্গে দলের কোনও সম্পর্ক নেই।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla