কুকুর-বিড়ালের করোনা সংক্রমণের জন্য দায়ী মানুষই, সিলমোহর হু-র

করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের বাড়ির পোষ্য ও অন্যান্য প্রাণীর সংস্পর্শ এড়িয়ে চলার পরামর্শই দেওয়া হয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 16:26 PM, 6 Apr 2021
কুকুর-বিড়ালের করোনা সংক্রমণের জন্য দায়ী মানুষই, সিলমোহর হু-র
মানুষের দেহ থেকেই পশুদের মধ্যে ছড়াচ্ছে করোনা সংক্রমণ।

জেনেভা: কেবল মানুষের দেহেই নয়, কুকুর, বিড়াল এমনকি বাঘ, সিংহের দেহেও করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেছিল। মানুষের থেকেই বাকি পশুর দেহেও করোনা সংক্রমণ ছড়াচ্ছিল। এ বার সেই তত্ত্বেই সিলমোহর দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (World Health Organization)। হু-র রাশিয়ার প্রতিনিধি মেলিটা ভুজনোভিক (Melita Vujnovic) সোমবার বলেন, “মানবদেহ থেকে কুকুর, বিড়াল, মিঙ্ক,রাকুন, সিংহ ও বাঘের দেহে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যায় না।”

সোমবার একটি সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, “কোভিড-১৯ ভাইরাস মূলত মানব দেহ থেকেই অপর মানবদেহে ছড়িয়ে পড়ে। তবে মানবদেহ থেকে পশুর দেহেও সংক্রমণের প্রমাণ মিলেছে। তবে ইন্টারমিডিয়েট হোস্ট অর্থাৎ সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার ক্ষেত্রে মধ্যস্থতাকারী প্রাণীর এখনও হদিশ মেলেনি।”

আরও পড়ুন: ১৮ বছরের বেশি প্রত্যেককেই টিকা দেওয়া হোক, প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন চিকিৎসকদের

মেলিটা জানান, করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের সংস্পর্শে আসার পরই একাধিক কুকুর, গৃহপালিত বিড়াল, সিংহ, বাঘ ও রেকুনের দেহেও করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছে।পশুদের দেহে এই ভাইরাসের কী প্রভাব পড়ে, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। একইসঙ্গে তিনি জানান, কোন প্রাণীর মাধ্যমে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা সবথেকে বেশি, তা জানা প্রয়োজন। এর মাধ্যমেই ভবিষ্যতে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রোধ করা সম্ভব।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের পোষ্যদের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলাই উচিত। এই বিষয়ে মেলিটা বলেন, “করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি এবং যাদের সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি, তাঁদের বাড়ির পোষ্য ও অন্যান্য পশুর সংস্পর্শ এড়িয়ে চলাই উচিত। যেহেতু মানবদেহ থেকে পশুদের মধ্যেও ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে, ফলত ভাইরাসের জিনগত পরিবর্তন হওয়াও সম্ভব। এতে ভবিষ্যতে মানুষও প্রভাবিত হতে পারে।”

আরও পড়ুন: ‘দেদার উড়ছে টাকা’, বিজেপির সুরেই এ বার অভিযোগ কমল হাসানেরও