Indian Railway: ট্রেনে করে কোথাও বাইক পাঠালে কী প্রক্রিয়া, কত টাকা খরচ পড়বে জানুন

Motor bike sent cost: বাইকটি ট্রেনে করে পাঠানোর সময় সেটির পেট্রোল ট্যাঙ্ক সাবধানে খালি করুন। একটি কার্ডবোর্ডে প্রস্থান এবং আগমন স্টেশনের নাম স্পষ্টভাবে লিখুন এবং সেটি টু-হুইলারের সঙ্গে বেঁধে দিন। মোটরবাইকটি প্যাকিং করার আগে, সেটির ক্লাচ এবং ব্রেক আলগা করে দিন, যাতে এগুলো নিরাপদ থাকবে এবং প্যাকিংও সহজ হবে।

Indian Railway: ট্রেনে করে কোথাও বাইক পাঠালে কী প্রক্রিয়া, কত টাকা খরচ পড়বে জানুন
প্রতীকী ছবি।Image Credit source: TV9 Bharatvarsh
Follow Us:
| Updated on: Feb 12, 2024 | 9:01 AM

নয়া দিল্লি: আজকাল অনেকেই বাইক ট্যুর করেন। একটা নির্দিষ্ট জায়গা পর্যন্ত ট্রেনে করে যাওয়ার পর বাকি রাস্তা বাইকে ট্রেকিং করেন। সেক্ষেত্রে অধিকাংশ লোকই বাইক ওই নির্দিষ্ট জায়গা পর্যন্ত পৌঁছে দেওয়ার জন্য ট্রেনের সাহায্য নেয়। আবার লোকজন এক শহর ছেড়ে অন্য শহরে যাওয়ার সময়ও তাঁদের জিনিসপত্রের সঙ্গে স্কুটার বা বাইক নিয়ে যান। সেক্ষেত্রেও বাইক নির্দিষ্ট জায়গায় পৌঁছনোর জন্য ট্রেনের সাহায্য নেন। তবে অনেকেই জানেন না যে, কীভাবে বাইক বা স্কুটি লাগেজ বা পার্সেল হিসাবে ট্রেনে পাঠানো যেতে পারে। আপনি কী আপনার বাইকটি এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে যাওয়ার কথা ভাবছেন, তাহলে এই প্রতিবেদনটি দেখুন।

আপনি যদি ট্রেনে ভ্রমণ না করেন এবং আপনার বাইকটি ট্রেনে পাঠাতে যান, তাহলে আপনার টু-হুইলারের রেজিস্ট্রি সার্টিফিকেটের একটি ফটোকপি নিয়ে পার্সেল অফিসে যেতে হবে। বাইক ট্রেনে পাঠানোর সেটির সমস্ত কাগজপত্র প্রস্তুত রাখতে হবে। এতে বাইক সংক্রান্ত বিমা ও আরসি থাকা আবশ্যক।

এই খবরটিও পড়ুন

পেট্রোল ট্যাঙ্ক খালি করুন

বাইকটি ট্রেনে করে পাঠানোর সময় সেটির পেট্রোল ট্যাঙ্ক সাবধানে খালি করুন। একটি কার্ডবোর্ডে প্রস্থান এবং আগমন স্টেশনের নাম স্পষ্টভাবে লিখুন এবং সেটি টু-হুইলারের সঙ্গে বেঁধে দিন। মোটরবাইকটি প্যাকিং করার আগে, সেটির ক্লাচ এবং ব্রেক আলগা করে দিন, যাতে এগুলো নিরাপদ থাকবে এবং প্যাকিংও সহজ হবে। পার্সেল অফিসে আপনাকে একটি ফর্ম দেওয়া হবে। সেটিতে পার্সেলটি কোথা থেকে কোথায় যাবে, পোস্টাল ঠিকানা, গাড়ির কোম্পানি, রেজিস্ট্রেশন নম্বর, গাড়ির ওজন এবং গাড়ির দামের মতো সমস্ত বিবরণ দিয়ে পূরণ করতে হবে।

রসিদ সঙ্গে থাকতে হবে

বাইকটি প্যাক করতে সাধারণত প্রায় ৩০০ টাকা খরচ পড়ে। তবে এটি দূরত্বের উপর নির্ভর করে। ফলে প্যাকিং খরচ কম বা বেশি হতে পারে। কখনও কখনও খরচ ১০০০ টাকা পর্যন্ত যায়। প্যাকিং করার পর আপনার বাইকটি চলে যাবে। পার্সেল ফর্ম পূরণ করার সময় সেটিতে আপনার বাইকের ইঞ্জিন নম্বর এবং চেসিস নম্বর দিতে হবে। এছাড়া প্রাপকের নাম অবশ্যই দেবেন। এর জন্য আপনাকে একটি রসিদ দেওয়া হবে। আপনি যখন বাইকটি গ্রহণ করতে যাবেন, তখন এটির প্রয়োজন হয়। রসিদের আসল কপি সঙ্গে থাকতে হবে।