Agri Infra fund: ৪০০০ এর বেশি প্রোজেক্টের জন্য এখনও পর্যন্ত সরকারের খরচ হয়েছে ২০৭১ কোটি টাকা

Agri Infra fund: ৪০০০ এর বেশি প্রোজেক্টের জন্য এখনও পর্যন্ত সরকারের খরচ হয়েছে ২০৭১ কোটি টাকা
ফাইল চিত্র

Agri Infra fund: নরেন্দ্র সিং তোমর জানিয়েছেন, ৫০৬৭টি প্রোজেক্টকে প্রাইমারি এগ্রিকালচার কো-অপারেটিভ সোসাইটির জন্য মঞ্জুরী দেওয়া হয়েছে। ২৫৭৬টি প্রোজেক্টকে এগ্রি-এন্টারপ্রেনারের জন্য, ৬৮৫টি প্রোজেক্টকে চাষীগত চাষীদের জন্য আর ৫৩টি প্রোজেক্টকে স্টার্টআপের জন্য মঞ্জুরী দেওয়া হয়েছে।

TV9 Bangla Digital

| Edited By: Shubhendu Debnath

Dec 07, 2021 | 9:08 PM

নয়া দিল্লি: সরকার এগ্রিকালচার ইনফ্রাস্ট্রাকচার ফান্ডের অধীনে ৪০০৩টি প্রোজেক্টের জন্য ২০৭১ কোটি টাকার ফান্ড জারি করেছে। সংসদে এই তথ্য জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর। কৃষিমন্ত্রী লোকসভায় লিখিতভাবে জানিয়েছেন, মোট ৮৪৮৮টি প্রোজেক্টের জন্য এখনও পর্যন্ত ৬০৯৮ কোটি টাকার ফান্ডের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৪০০৩টি প্রোজেক্টের জন্য ২০৭১ কোটি টাকা ফান্ড দিয়ে দেওয়া হয়েছে।

নরেন্দ্র সিং তোমর জানিয়েছেন ৮৪৮৮টি প্রোজেক্টের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১৯৫৪টি প্রোজেক্ট মধ্য প্রদেশের জন্য অনুমোদিত হয়েছে। এর পর ১৪২৪টি প্রোজেক্ট অন্ধ্র প্রদেশ, ৯০০টি প্রোজেক্ট কর্ণাটকের জন্য, ৬৮৪টি প্রোজেক্ট উত্তর প্রদেশের জন্য, ৬৫৪টি প্রোজেক্ট রাজস্থানের জন্য আর ৫৫৫টি প্রোজেক্ট মহারাষ্ট্রের জন্য অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

কোথায় কতগুলি প্রোজেক্ট পেয়েছে মঞ্জুরী

নরেন্দ্র সিং তোমর জানিয়েছেন, ৫০৬৭টি প্রোজেক্টকে প্রাইমারি এগ্রিকালচার কো-অপারেটিভ সোসাইটির জন্য মঞ্জুরী দেওয়া হয়েছে। ২৫৭৬টি প্রোজেক্টকে এগ্রি-এন্টারপ্রেনারের জন্য, ৬৮৫টি প্রোজেক্টকে চাষীগত চাষীদের জন্য আর ৫৩টি প্রোজেক্টকে স্টার্টআপের জন্য মঞ্জুরী দেওয়া হয়েছে।

২০২০-তে গঠন করা হয়েছিল এই ফান্ড

সরকার ২০২০-তে এগ্রিকালচার ইনফ্রাস্ট্রাকচার ফান্ড গঠন করা হয়েছিল। এই ফান্ডের সাহায্যে ২০২৫-২৬ অর্থ বছর পর্যন্ত চাষী আর চাষের জন্য মিডিয়াম লং টার্ম লোন দেওয়া হয়।

এই পরিকল্পনার বিশেষত্ব কী

– এগ্রিকালচার ইনফ্রাস্ট্রাকচার ফান্ডের অধীনে লোনের উপর ৩ শতাংশ ছাড় পাওয়া যাবে। – ঋণ দেওয়া ব্যাঙ্ককে ২ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণে ব্যাঙ্ক গ্যারান্টি সরকার দেবে। – এক জায়গায় দু কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণের জন্য সুদের সাহায্য পাওয়া যাবে। – অর্থাৎ একটি গোষ্ঠী যদি বেশকিছু জায়গায় প্রোজেক্ট শুরু করে তাহলে সবকটির জন্যই সুদের সাহায্য পাওয়া যাবে। -প্রাইভেট সেক্টরের জন্য এমন প্রোজেক্টের সর্বোচ্চ সময়সীমা নির্ধারিত হয়েছে ২৫ বছর। – প্রকল্পের মোট সময়সীমা ১০ থেকে বাড়িয়ে ১৩ বছর করা হয়েছে ২০৩২-৩৩ বছর পর্যন্ত।

কৃষি বাজার বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা দূর করার চেষ্টা

এখন কৃষি উৎপাদন বাজার কমিটির (APMC) ক্ষমতা বিস্তারের জন্যও এই ফান্ডের ব্যবহার করা যাবে। এই জুলাই মাসের ৮ তারিখ এর যোজনা সংশোধন করে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ এখন কৃষি বাজারের ভেতর কোল্ড স্টোরেজ, সাইলো আর বাছাই ইউনিটের জন্য ২ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণের উপর সুদের সহায়তা দেওয়া যাবে। সরকারের এই প্রচেষ্টা রয়েছে কৃষক আন্দোলন করা চাষীদের মন থেকে এই আশঙ্কা দূর হোক যে নতুন কৃষি আইনের পর বাজার বন্ধ করে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন: Gold Price Today: বিয়ের মরশুমে খুশির খবর! সর্বোচ্চ স্তর থেকে ৮৫০০ টাকা কমল সোনার দাম

Follow us on

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA