Nagaland Firing: ১৪ গ্রামবাসীর মৃত্যুর বিচার চেয়ে আজ নাগাল্যান্ডে যাচ্ছে তৃণমূলের প্রতিনিধি দল

Nagaland Firing: নিরাপত্তারক্ষী বাহিনীর অভিযান চলাকালীন বড়সড় ‘ভুল’। অভিযান চলাকালীন গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন বেশ কয়েকজন নিরপরাধ গ্রামবাসী। শেষ পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, এক জওয়ান সহ মোট ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

Nagaland Firing: ১৪ গ্রামবাসীর মৃত্যুর বিচার চেয়ে আজ নাগাল্যান্ডে যাচ্ছে তৃণমূলের প্রতিনিধি দল
নাগাল্যান্ড ইস্যুতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার সময় চাইছে তৃণমূল
TV9 Bangla Digital

| Edited By: tannistha bhandari

Dec 06, 2021 | 7:04 AM

কলকাতা : গতকাল নাগাল্যান্ডে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ১৪ জন গ্রামবাসীর মৃত্যুর ঘটনার পরই সরব হন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঘটনার পরের দিনই নাগাল্যান্ড পৌঁছে যাচ্ছে তৃণমূলের প্রতিনিধি দল। আজ, সোমবার তৃণমূল নেতারা নাগাল্যান্ডে যাবেন বলে দলের তরফে টুইট করে জানানো হয়েছে। গতকাল থেকেই তদন্তের দাবি জানিয়েছে তৃণমূল। এবার শোকস্তব্ধ পরিবারের সঙ্গে কথা বলতেই নাগাল্যান্ডে পৌঁছবেন তাঁরা।

নাগাল্যান্ডের মন জেলায় সীমান্তবর্তী তিরু গ্রামে অনুপ্রবেশ রুখতে নিরাপত্তারক্ষী বাহিনীর অভিযান চালায়। আর সেই অভিযানেই ঘটে যায় ‘ভুল’। শনিবার রাতে নিরাপত্তারক্ষী বাহিনীর গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন বেশ কয়েকজন নিরপরাধ গ্রামবাসী। প্রাথমিকভাবে ১৩ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, মোট ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ১৪ জন গ্রামবাসী এবং একজন সেনা জওয়ান। এই ঘটনার পরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইটে সমবেদনা জানান। পাশাপাশি সবাই যাতে বিচার পায়, তাই তদন্তের দাবিও জানান তিনি।

পরে দলের তরফে নাগাল্যান্ডে প্রতিনিধি দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আজই সেই প্রতিনিধি দল পৌঁছবে নাগাল্যান্ডে। প্রতিনিধি দলে থাকবেন তৃণমূল সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, সুস্মিতা দেব, অপরূপা পোদ্দার ও ড. শান্তনু সেন। সেখানে গিয়ে মৃত গ্রামবাসীদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলবেন তাঁরা। সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন একটি টুইটে পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন।

শুধু তৃণমূলই নয়, গতকালের ঘটনায় নিন্দা প্রকাশ করেছেন অনেক নেতাই। যদিও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ নিজে তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন, তবু ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে সরব হয়েছেন অনেকেই।

এই মন এলাকাটি হল নাগা গোষ্ঠী এনএসসিএন(কে) এবং অসমের আলফার (ইউনাইটেড লিবারেশন ফ্রন্ট অব অসম) ঘাঁটি। মন জেলাটির সঙ্গে মায়ানমারের আন্তর্জাতিক সীমানা রয়েছে এবং সেইসঙ্গে অসমের সঙ্গে অন্তর্দেশীয় সীমা করে। দীর্ঘদিন ধরে এই ভৌগোলিক অবস্থানের কারণে এলাকাটি অত্যন্ত অস্থির এবং স্পর্শকাতর বলে পরিচিত।

শনিবার বিকেল ৪টে নাগাদ সেনার একটি দল তিরু-ওটিং সড়কের উপর একটি পিক-আপ ট্রাককে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। ট্রাকটিতে আটজন আরোহী ছিলেন – তাঁদের মধ্যে ছয়জন ঘটনাস্থলেই মারা যান, হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে বাকি দুজনও মারা যান। প্রাথমিকভাবে অনুমান, ট্রাকে যাঁরা ছিলেন, তাঁরা সবাই স্থানীয় কয়লা খনির শ্রমিক।

এই ঘটনায় সমবেদনা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। রবিবার সকালেই টুইটে তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন তিনিও। ওই ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন তিনি। অমিত শাহ জানিয়েছেন, রাজ্য সরকার বিশেষ তদন্তকারী দল বা সিট গঠন করে তদন্ত করবে। বিচার পাবে মৃতদের পরিবার।

আরও পড়ুন : Bhupesh Baghel: ‘মোদীর সঙ্গে কী কথা হয়েছে, কেন প্রকাশ্যে আসে না?’ মমতাকে তোপ বাঘেলের

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla