ফেসবুক পোস্টের জেরে সাসপেন্ড বিধায়কের চিকিৎসক মেয়ে! পাঁচ দিন পর সাফাই দিল হাসপাতাল

সরকারের বিরুদ্ধে ফেসবুক পোস্ট করার পরই সাসপেন্ড করা হয় শাসক দলেরই বিধায়কের মেয়ে ড. অনিন্দিতা ভৌমিককে

ফেসবুক পোস্টের জেরে সাসপেন্ড বিধায়কের চিকিৎসক মেয়ে! পাঁচ দিন পর সাফাই দিল হাসপাতাল
বিধায়কের মেয়ে অনিন্দিতা ভৌমিক

আগরতলা: দিন পাঁচেক আগে সরকারি মেডিকেল কলেজ থেকে সাসপেন্ড করা হয় বিজেপি বিধায়কের মেয়ে অনিন্দিতা ভৌমিককে (Anindita Bhowmik)। তার আগে সরকারের বিরুদ্ধে ফেসবুক পোস্ট করেছিলেন তিনি। আর এবার হাসপাতালের তরফ থেকে দাবি করা হল আদতে সেটা সাসপেন্ড করার কারণ নয়। সিইও-র সঙ্গে খারাপ আচরণ করার জন্য এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়।

হাসপাতালের তরফে বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, সিইও-র সঙ্গে খারাপ আচরণ করার জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে অনিন্দিতাকে। সিইও-র অনুমতি ছাড়া শহর ছাড়তে পারবেন না তিনি। এরপর অনিন্দিতা আবার ফেসপুকে পোস্ট করেন। তিনি লিখেছেন, অকারণে সাসপেনশন নোটিস দেওয়ার জন্য আমি কৃতজ্ঞ। লড়াই করার পথ আরও সহজ হল।

ত্রিপুরা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ফিজিওথেরাপিস্ট অনিন্দিতা। সম্প্রতি তিনি ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন। একটি মেশিন কেনার কথা উল্লেখ করে সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খোলেন তিনি। এরপরই হাসপাতালের সরকারি চাকরি থেকে তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়। ত্রিপুরার বিজেপি বিধায়ক অরুণ চন্দ্র ভৌমিকের মেয়ে তিনি।

ফেসবুক পোস্টে সাম্প্রতিককালে একটি মেশিন নেওয়ার বিষয়ে অভিযোগ জানান অনিন্দিতা। তিনি লেখেন, কোনও টেন্ডারিং এর প্রক্রিয়া ছাড়াই ওই মেশিন নেওয়া হয়েছে। বিনা টেন্ডারে প্রাইভেট সংস্থাকে বরাত দেওয়া হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। নতুন মেশিন কেনা হল না সেই প্রশ্নও তুলেছেন অনিন্দিতা। এরপরই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের রোষের মুখে পড়তে হয় তাঁকে।

আরও পড়ুন: ত্রিপুরায় পাঁচদিনের লকডাউন? ভাইরাল ভিডিয়োর সত্যতা জানাল প্রশাসন

তিনি জানান এরপরই ফেসবুক পোস্ট ডিলিট করার জন্য বার বার চাপ দেওয়া হয় তাঁকে। তিনি পোস্ট ডিলিট না করায় তাঁকে হুমকি দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ। তিনি বলেছেন, ‘হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাকে বার বার চাপ দিতে থাকে। তা সত্ত্বেও আমি পোস্ট উড়িয়ে দিতে রাজি হইনি।’ এই ঘটনায় আইনি পথে হাঁটবেন বলেও জানিয়েছেন অনিন্দিতা।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla