ভোটে হারা নিয়ে মুখ খুলেছিলেন বিজেপির সব্যসাচী, শৃঙ্খলা ভাঙার অভিযোগ জমা পড়ল দলের অন্দরে

২০২০ সালের জুন মাসে তৃণমূল ছেড়ে মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দেন সব্যসাচী দত্ত (Sabyasachi Dutta)।

ভোটে হারা নিয়ে মুখ খুলেছিলেন বিজেপির সব্যসাচী, শৃঙ্খলা ভাঙার অভিযোগ জমা পড়ল দলের অন্দরে
ফাইল চিত্র

কলকাতা: ঠিক যেদিন মুকুল রায়ের তৃণমূলে যোগদানের সম্ভাবনা নিয়ে তুমুল চর্চা বঙ্গ রাজনীতিতে। সেই শুক্রবারই বিজেপি নেতা সব্যসাচী দত্তের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ জমা পড়ল বিজেপির রাজ্য নেতৃত্বের কাছে। সূত্রের খবর, দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) অমিতাভ চক্রবর্তী এবং শৃঙ্খলারক্ষা কমিটির আহ্বায়ক সুভাষ সরকারের কাছে এই অভিযোগ এসেছে। সম্প্রতি ভোটে বিজেপির হারের কারণ নিয়ে সমালোচনা শোনা গিয়েছিল বিধাননগরের নেতা সব্যসাচী দত্তের মুখে। তারই প্রেক্ষিতে এবার তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ জমা পড়ল দলের অন্দরে।

২০২০ সালের জুন মাসে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন সব্যসাচী দত্ত। তাঁকে বিজেপিতে আনার কারিগরই ছিলেন মুকুল রায়। এর পর ‘মুকুলদা’কে পথপ্রদর্শক করেই ‘সব্য’র বিজেপি-রাজনীতি এগিয়েছে। বিধাননগরে দল তাঁকে প্রার্থীও করেছে। কিন্তু তৃণমূলের সুজিত বসুর কাছে হারতে হয় তাঁকে। এরপর থেকেই সব্যসাচী খানিকটা চুপচাপ হয়ে গিয়েছিলেন।

গত মঙ্গলবার বিজেপির হেস্টিংস কার্যালয়ে সাংগঠনিক বৈঠক থেকে বেরিয়ে সব্যসাচী দলের হার নিয়ে প্রথম মুখ খোলেন প্রকাশ্যে। তাঁর দাবি ছিল, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের ভাষা বুঝতে পারেননি সাধারণ মানুষ। মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কোনও মুখ ছিল না তাঁদের। এই দুই কারণেই বাংলায় মুখ পুড়েছে গেরুয়া শিবিরের।

আরও পড়ুন: ভোটে হারা নিয়ে মুখ খুলেছিলেন বিজেপির সব্যসাচী, শৃঙ্খলা ভাঙার অভিযোগ জমা পড়ল দলের অন্দরে

সব্যসাচীর এই বক্তব্যের পরই তাঁর বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ তোলে বিজেপি। রাজ্য কমিটির সদস্য অনুপম ঘোষ এই অভিযোগ তুলে চিঠি লেখেন দলকে। নেতৃত্বের বিরুদ্ধে মুখ খোলা, বৈঠকের তথ্য বাইরে প্রকাশ করা শৃঙ্খলাভঙ্গের শামিল বলেই অভিযোগপত্রে লেখেন অনুপম। এই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে দল কী সিদ্ধান্ত নেয় এখন সেটাই দেখার।