ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিতে হ্যাকারদের সাহায্য করে হোয়াটসঅ্যাপের ‘ইমেজ ফিল্টার বাগ’

গত বছরের শেষ থেকেই হোয়াটসঅ্যাপের প্রাইভেসি পলিসির আপডেট প্রসঙ্গে জোরদার জল্পনা শুরু হয়েছে। সেই সময় শোনা গিয়েছিল যে নতুন আপডেটেড প্রাইভেসি পলিসি গ্রহণ করলে হোয়াটসঅ্যাপ ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য অনলাইনে বিভিন্ন মাধ্যমে ফাঁস হয়ে যাবে।

ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিতে হ্যাকারদের সাহায্য করে হোয়াটসঅ্যাপের 'ইমেজ ফিল্টার বাগ'
ছবি প্রতীকী।
TV9 Bangla Digital

| Edited By: Sohini chakrabarty

Sep 06, 2021 | 1:58 PM

হোয়াটসঅ্যাপে ক্রমশ বাড়ছে সাইবার ক্রাইমের প্রবণতা। যত দিন যাচ্ছে ফেসবুক অধিকৃত এই মেসেজিং অ্যাপে সাইবার ক্রিমিনালদের আধিপত্য বৃদ্ধি পাচ্ছে। নানা ভাবে হোয়াটসঅ্যাপ হ্যাক করে ইউজারদের তথ্য (ব্যক্তিগত এবং গুরুত্বপূর্ণ) হাতিয়ে নিচ্ছে হ্যাকাররা। এ যাবৎ অসংখ্য অভিযোগ জমা পড়েছে হোয়াটসঅ্যাপের দফতরে। এর মধ্যে বেশিরভাগই নিরাপত্তা এবং গোপনীয়তা সংক্রান্ত। অর্থাৎ এই দুই ক্ষেত্রেই সবচেয়ে বেশি সমস্যা দেখা দিয়েছে।

সম্প্রতি একটি ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে একটি সিকিউরিটি ফার্মের তরফে জানানো হয়েছে হোয়াটসঅ্যাপের ইমেজ ফিল্টার বাগ (WhatsApp image filter bug) ইউজারদের ক্ষতি করছে। আপাতত হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তা সংক্রান্ত এই সমস্যা দূর করেছে। কিন্তু ওই সিকিউরিটি ফার্ম জানিয়েছে, এই bug ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য পেতে হ্যাকারদের সাহায্য করে। CheckPoint Research- এর মাধ্যমে জানা গিয়েছে, এর মধ্যেই হোয়াটসঅ্যাপ ‘out of bounds, read-write vulnerability’ এই সমস্যার সমাধান করেছে। এর সাহায্যে হ্যাকাররা হোয়াটসঅ্যাপের মেমরি থেকে সেনসিটিভি ডেটা বা তথ্য সংগ্রহ করতে বা জেনে নিতে পারে।

মূলত হোয়াটসঅ্যাপের ইমেজ ফিল্টারের মাধ্যমে ইউজারদের কাছে একটি maliciously crafted image অর্থাৎ আপত্তিকর ছবি পাঠানো হয়। এর ফলে ইউজারদের ডিভাইসে খারাপ প্রভাব পড়ে। আর এর প্রভাবেই সাইবারক্রিমিনাল বা সাইবার অপরাধীরা ইউজারের ব্যক্তিগত হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টের অ্যাকসেস পেয়ে যায় এবং হোয়াটসঅ্যাপ মেমোরি থেকে সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পড়ে ফেলতে পারে। ওই সিকিউরিটি ফার্মের রিসার্চার Dikla Barda এবং Gal Elbaz জানিয়েছেন, যখন ইউজার কোনও ছবিতে হোয়াটসঅ্যাপ ফিল্টার ব্যবহার করে, তখনই সুযোগ নেয় হ্যাকাররা। সেই সময়েই হোয়াটসঅ্যাপ মেমরির অ্যাকসেস পেয়ে যায় তারা। নিমেষে হাতিয়ে নেয় গুরুত্বপূর্ণ নথি। গত বছর অর্থাৎ ২০২০ সালে ১০ নভেম্বর প্রথম হোয়াটসঅ্যাপে এই সমস্যা দেখা দিয়েছিল, এমনটাই জানিয়েছে ওই সিকিউরিটি ফার্ম।

অন্যদিকে, গত বছরের শেষ থেকেই হোয়াটসঅ্যাপের প্রাইভেসি পলিসির আপডেট প্রসঙ্গে জোরদার জল্পনা শুরু হয়েছে। সেই সময় শোনা গিয়েছিল যে নতুন আপডেটেড প্রাইভেসি পলিসি গ্রহণ করলে হোয়াটসঅ্যাপ ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য অনলাইনে বিভিন্ন মাধ্যমে ফাঁস হয়ে যাবে। এরপরই এক ধাক্কায় এই মেসেজিং অ্যাপের জনপ্রিয়তা কমে গিয়েছিল। পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে টেলিগ্রাম অ্যাপের জনপ্রিয়তা। ২০১৩ সালে লঞ্চ হয়েছিল টেলিগ্রাম অ্যাপ। হোয়াটসঅ্যাপ এবং ফেসবুক মেসেঞ্জারকে বর্তমানে বেশ ভালভাবেই পাল্লা দিচ্ছে এই মেসেজিং অ্যাপ। সম্প্রতি একটি রিপোর্টের মাধ্যমে জানা গিয়েছে যে, আন্তর্জাতিক স্তরে অর্থাৎ বিশ্বজুড়ে টেলিগ্রামের ডাউনলোডের সংখ্যা পেরিয়েছে এক বিলিয়ন। আর পরিসংখ্যান অনুযায়ী ভারতেই টেলিগ্রামের সবচেয়ে বড় বাজার তৈরি হয়েছে। Sensor Tower- এর তথ্য অনুসারে এই খবর জানা গিয়েছে। উল্লেখ্য, গত ২৭ অগস্ট বিশ্বব্যাপী এক বিলিয়ন ডাউনলোডের মাইলফলক পেরিয়েছে টেলিগ্রাম মেসেজিং অ্যাপ।

আরও পড়ুন- ভারতে লঞ্চ হয়েছে রিয়েলমি Dizo GoPods এবং Dizo GoPods Neo, এই দুই ইয়ারবাডসের দাম কত?

Follow us on

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla