Howrah: এবার হাওড়ায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু তৃণমূল নেতার!

TMC Leader: এবার ঘটনাস্থল হাওড়া। গুলিবিদ্ধ হলেন আরেক তৃণমূল নেতা।

Howrah: এবার হাওড়ায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু তৃণমূল নেতার!
অলঙ্করণ: অভিজিৎ বিশ্বাস

হাওড়া: ক্যানিংয়ে যুব তৃণমূল নেতার গুলিতে মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার হয়েছেন দলেরই পঞ্চায়েত উপপ্রধান সহ তিনজন। এর মধ্যে সোমবার গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হল আরেক তৃণমূল নেতার। এবার ঘটনাস্থল হাওড়া। জানা গিয়েছে, দুষ্কৃতীদের গুলিতে আহত ওই তৃণমূল নেতার নাম ওয়াজুল হক। তিনি হাওড়া জেলা সদরের তৃণমূলের সংখ্যালঘু সেলের সম্পাদক ছিলেন।

জানা গিয়েছে, এদিন হাওড়ার নাজিরগঞ্জে দুষ্কৃতীদের গুলিতে আহত হন ওয়াজুল হক। হাওড়া জেলা সদরের তৃণমূলের সংখ্যালঘু সেলের সম্পাদক ওয়াজুল খানকে খুব কাছ থেকে গুলি করে দুষ্কৃতীরা। সোমবার রাতে তিনি যখন বাড়ির সামনে বসে ছিলেন, সেই সময় দুষ্কৃতীরা গুলি করে চম্পট দেয়। কিন্তু কে বা কারা গুলি করেছে এখনও তা স্পষ্ট নয়।

এই তৃণমূল নেতার ভাই গুড্ডু খান বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। গুড্ডুর স্ত্রী নাসরিন খাতুন হাওড়া পুরসভা ৪৫ নম্বর ওয়ার্ডের প্রাক্তন টিএমসি কাউন্সিলর ছিলেন। পুরো ঘটনার তদন্তে নাজিরগঞ্জ থানার পুলিশ। এই গুলিকাণ্ডের পেছনে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র আছে, নাকি অন্য কোনো কারণ তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

গুলি চলার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় ওই এলাকায়। রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় তৃণমূল নেতাকে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে ভর্তি করা হয় হাওড়ার আন্দুলের এক বেসরকারি হাসপাতালে। সেখানে তাঁর মৃত্যু হয়।

তবে কে বা কারা এই গুলি চালিয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। পরিবারের অনুমান, রাজনৈতিক কারণেই গুলি করা হয়েছে ওয়াজুলকে। আবার ব্যবসায়িক কারণও থাকতে পারে বলে জানাচ্ছে পরিবার। তবে গোটা ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে পুলিশ। কে বা কারা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত তা খতিয়ে দেখছে তারা।

উল্লেখ্য, গত শনিবার রাতে ক্যানিংয়ের নিকারীঘাটা গ্রাম পঞ্চায়েতের বেলেখালি গ্রামে নিজের বাড়ির কাছেই গুলিবিদ্ধ হন ক্যানিংয়ের নিকারীঘাটা অঞ্চল যুব তৃণমূল সভাপতি মহরম শেখ। এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল তাঁকে। কিন্তু সেদিন গভীর রাতেই মৃত্যু হয় তাঁর। তৃণমূল নেতার খুনের ঘটনায় তিন জনকে গ্রেফতার করেছে ক্যানিং থানার পুলিশ। এরা সবাই তৃণমূলেরই কর্মী বলে খবর।

ধৃতদের মধ্যে রয়েছেন নিকারীঘাটা গ্রাম পঞ্চায়েতের উপ প্রধান পাঁচু সাফুই। তাছাড়া মলয় মণ্ডল, সাইফুল লস্কর নামে যে দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে, তাঁরা সকলেই তৃণমূল কর্মী বলে খবর। তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলেই ওই নেতার মৃত্যু হয় বলে প্রাথমিক ভাবে জানায় পুলিশ। এর মধ্যে শনিবার ঘটে গেল আরেক গুলি চালনার ঘটনা। এবার এক তৃণমূল নেতাকে লক্ষ্য করে গুলি চলল হাওড়ায়। তবে এর পিছনে কারণ কী তা এখনই জানা যায়নি।

আরও পড়ুন: TMC Leader Death: ক্যানিংয়ে তৃণমূল নেতা খুনের ঘটনায় দলের পঞ্চায়েত উপ প্রধান সহ গ্রেফতার ৩

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla