Aadhir Chowdhury: ‘দিলীপ তো লাফাঙ্গা, ঝিনুকে দুধ খেতে খেতে রাজনীতিতে এসেছে অভিষেক’

Aadhir Chowdhury: "এ থেকে বোঝা যায় যে বিরোধী শক্তিকে যেখানে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার কাজ চলছে, সেখানে তৃণমূলীরা সেই ঐক্য ভাঙছে। এটা ভাতিজা শুধু বলছে তা নয়, তৃণমূল নেত্রীর অনুমতিতে এইসব কথা বলছেন।''

Aadhir Chowdhury: 'দিলীপ তো লাফাঙ্গা, ঝিনুকে দুধ খেতে খেতে রাজনীতিতে এসেছে অভিষেক'
ক্ষুব্ধ অধীরের নিশানায় অভিষেক ও দিলীপ। অলংকরণ: অভীক দেবনাথ।

মুর্শিদাবাদ: তিনি নাকি বিজেপিত (BJP) যোগ দেবেন! বৃহস্পতিবার জেলায় এসে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি প্রসঙ্গে এমনই ইঙ্গিত দেন দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। অন্যদিকে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও (Abhishek Banerjee) ভোট প্রচারে এসে অধীরকে তীব্র কটাক্ষ করেছেন। দুই বিরোধী রাজনৈতিক দলের প্রথম সারির নেতাকে এক পংক্তিতে ফেলে আক্রমণ শানালেন অধীর চৌধুরী (Aadhir Chowdhury)। তাঁর কথায়, “দিলীপ ঘোষ রাজনৈতিক লাফাঙ্গা। আর অভিষেক তো বাচ্চা ছেলে।”

অধীর চৌধুরী বিজেপি করে, অভিষেকের এই মন্তব্য প্রসঙ্গে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি বলেন, মুর্শিদাবাদে সংখ্যালঘু ভোট ব্যাঙ্ক রয়েছে। সেই জায়গায় মুর্শিদাবাদে এসে তো অধীর চৌধুরীকে বিঁধতে হবে। এর পর তাঁর সংযুক্তি, “একটা আশ্চর্যজনক বিষয় ইডি দফতর থেকে বেরনোর পর ভাতিজা কেন কংগ্রেসের উপর বিষোদগার করছে এ ব্যাপারে সন্দেহ রয়েছে! আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত, নীতিন গড়করি, রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে তৃণমূলের আঁতাত হয়েছে। তাই কংগ্রেসের উপরেই বিষোদগার।
বিজেপি চায় বিরোধী শক্তিকে আলাদা করে দিতে। সেই কাজই করছে ভাতিজা।”

এখানেই থামেননি অধীর। তাঁর কটাক্ষ, “ঝিনুকের দুধ খেতে খেতে রাজনীতিতে এসেছে (পড়ুন অভিষেক)। রাজনীতির আর কী বুঝবে? এসব বাচ্চা ছেলের কথা কী আর বলব। তবে রাজনৈতিক নেতা হিসেবে বলতে তো হবে।”

এদিকে এদিনই ভোট প্রচারে এসে দিলীপ ঘোষ মন্তব্য করেছেন, “অধীর চৌধুরী ডুবন্ত জাহাজ ছেড়ে যেতে চাইছেন। কিন্তু তিনি যেখানে যেতে চাইছেন সেটাও ফুটো হয়ে গিয়েছে। এখন তাঁর কাছে একটাই ভরসা, ভারতীয় জনতা পার্টি।” দিলীপের এই মন্তব্যই কার্যত রাজ্য রাজনীতিতে তোলপাড় ফেলে দিয়েছে। যা নিয়ে অধীরের তোপ, “কোথাকার কোন লাফাঙ্গা কী বলেছে, তাই আমাকে শুনতে হবে! পাঁচবারের সাংসদ আমি, কী করতে হবে আমি জানি।”

পাশাপাশি অভিষেকের মন্তব্য প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, “এ থেকে বোঝা যায় যে বিরোধী শক্তিকে যেখানে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার কাজ চলছে, সেখানে তৃণমূলীরা সেই ঐক্য ভাঙছে। এটা ভাতিজা শুধু বলছে তা নয়, তৃণমূল নেত্রীর অনুমতিতে এইসব কথা বলছেন।”

আরও পড়ুন: Adhir Chowdhury: ‘অধীরের একটাই ভরসা বিজেপি’, দিলীপের দাবিকে সিলমোহর দিল রাজ্য বিজেপিও 

এদিকে এদিনই হাত ছেড়ে ঘাসফুল তুলে নিয়েছেন মইনুল হক। তাঁর তৃণমূলে যোগদান প্রসঙ্গেও অধীরের প্রতিক্রিয়া, “শুধু শুধু অন্যের ওপর দোষ চাপানো নয়। কংগ্রেস আপনাকে পাঁচবার বিধায়ক বানিয়েছে, আর কয়েকদিন আগেই ফোন করে বলেছিলেন তৃণমূলে না গেলে আমি বাঁচতে পারব না। তাই অতি তৃণমূল হওয়ার চেষ্টা করবেন না, আমরা তো তৃণমূলের মত গালিগালাজ করতে পারি না।”

আরও পড়ুন: Dilip Ghosh: ‘সাতে হাফপ্যান্ট, ৭০-এ লুঙ্গি পরে জলে ঘুরছেন সৌগত’, কলকাতার ‘জলছবি’ নিয়ে ব্যঙ্গ দিলীপের 

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla