জায়গা বাঁচাতে জলাধারের নীচেই সুড়ঙ্গ! জলে ১ সপ্তাহ ধরে বন্দী রইল ১৪ শ্রমিক, নির্মম পরিণতি অবশেষে

টানা এক সপ্তাহ ধরে জল ও কাদা মাটি বের করার পর গতকাল আরও ১০ জন শ্রমিকের দেহ উদ্ধার করা হয়। এই নিয়ে মোট ১৩ জন শ্রমিকের দেহ উদ্ধার হয়েছে। এখনও নিখোঁজ এক শ্রমিক।

  • Updated On - 9:16 am, Thu, 22 July 21 Edited By: ঈপ্সা চ্যাটার্জী
জায়গা বাঁচাতে জলাধারের নীচেই সুড়ঙ্গ! জলে ১ সপ্তাহ ধরে বন্দী রইল ১৪ শ্রমিক, নির্মম পরিণতি অবশেষে
উদ্ধারকার্য জারি রয়েছে এখনও। ছবি:PTI

সাংহাই: উপরে জলাধার, নীচে সুড়ঙ্গ পথ, সীমিত জায়গার মধ্যেই একসঙ্গে কাজ চলছিল দুটি প্রকল্পের। কিন্তু আচমকাই দেওয়াল ফুটো হয়ে জলাধার থেকে জল ঢুকতে থাকে নীচের সুড়ঙ্গে। আটকে পড়েন সেই মুহূর্তে সুড়ঙ্গে কাজ করা ১৪ জন শ্রমিকই। দীর্ঘ এক সপ্তাহের চেষ্টায় অবশেষে উদ্ধার হল ১৩ জনের মৃতদেহ। এখনও খোঁজ মেলেনি এক শ্রমিকের। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ চিনের জ়ুহাই শহরে।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ১৫ জুলাই  ম্যাকাও ও হংকংয়ের সঙ্গে সংযোগকারী এই সুড়ঙ্গের ভিতরে মেরামতির কাজ করছিলেন ১৪ জন শ্রমিক। সেই সময়ই আচমকা সুড়ঙ্গের দেওয়ালে ফাটল ধরে। হুড়মুড়িয়ে জল ঢুকে পড়ে উপরের জলাধার থেকে। জলের তোড়ে সুড়ঙ্গের ভিতরেই আটকে পড়েন ১৪ জন শ্রমিকই।

গত সপ্তাহ থেকেই উদ্ধারকার্য শুরু হলেও প্রথমে কেবল তিন শ্রমিকের দেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়। টানা এক সপ্তাহ ধরে জল ও কাদা মাটি বের করার পর গতকাল আরও ১০ জন শ্রমিকের দেহ উদ্ধার করা হয়। এই নিয়ে মোট ১৩ জন শ্রমিকের দেহ উদ্ধার হয়েছে। নিখোঁজ এখনও এক শ্রমিক। উদ্ধারকার্য জারি রাখা হলেও নিখোঁজ শ্রমিকের বাঁচার আশা নেই বলেই মনে করছেন উদ্ধারকারীরা।

গত মার্চ মাস থেকে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার দুর্ঘটনা ঘটল এই সুড়ঙ্গে। এর আগে মার্চ মাসে সুড়ঙ্গের এক পাশের দেওয়াল ধসে পড়ে দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়। গুয়াংডং প্রদেশের জ়ুহাই শহরের অন্য়তম গুরুত্বপূর্ণ এক্সপ্রেসওয়ে এটি। প্রতিদিনই প্রায় লক্ষাধিক গাড়ি যাতায়াত করে এই সুড়ঙ্গ দিয়ে। কিন্তু একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটায় জলাধারের ঠিক নীচেই সুড়ঙ্গ পথ তৈরি করা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। আরও পড়ুন: আড়ি পাতা হয়নি ম্যাক্রঁ-র ফোনে, পেগাসাস নিয়ে আর কী কী পর্দাফাঁস করল এনএসও গ্রুপ? 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla